kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

পোস্ট অফিস চাই

১০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী চন্দকোনায় রয়েছে শতবর্ষী একটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি পুলিশ তদন্তকেন্দ্র, একটি মহাবিদ্যালয় ও একটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং বেশ কয়েকটি উচ্চ বিদ্যালয় ও মাদরাসাও। বেশ কিছু সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, অনেক মসজিদ-মক্তব, একটি পোস্ট অফিসের শাখা রয়েছে, সেটি ঠিকমতো চলে না। এ এলাকার অনেক মানুষ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব থেকে শুরু করে দেশ-বিদেশে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকরিরত। চিঠি আদান-প্রদান ও পার্সেল পাঠানো বা গ্রহণে এবং দূরের কোনো সংবাদগ্রাহককে চিঠি বিলি করতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। চাকরির ইন্টারভিউর কার্ড সময়মতো না পেয়ে পরীক্ষা দিতে পারে না। অস্থায়ীভাবে চিঠিপত্র আদান-প্রদানের জন্য বসতঘরের একটি কক্ষ আপাতত ব্যবহার করা হচ্ছে; তবে বিষয়টি চন্দ্রকোনার বেশির ভাগ মানুষের জানা নেই। এ জন্য তারা কোনো সুবিধা ভোগ করতে পারছে না। সেখানে চিঠি পাঠানোর জন্য গিয়ে প্রায় সব সময় তালা ঝুলতে দেখা যায়। গুরুত্বপূর্ণ চিঠি, মনিঅর্ডার, পার্সেল সার্ভিস, খাম, ডাকটিকিট, পোস্টাল অর্ডার, পোস্ট কার্ড ইত্যাদি সেবা ও সামগ্রী কেউ প্রয়োজনের সময় পায় না। এসব সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ইউনিয়নবাসী। তাই তিন টাকার চিঠি প্রেরণ করতে চন্দ্রকোনার মানুষকে ৫০ টাকা ভাড়া দিয়ে উপজেলা শহরে যাতায়াত করতে হয়। চন্দ্রকোনায় একটি পোস্ট অফিস স্থাপন জরুরি বলে মনে করছে সর্বসাধারণ। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

মো. মোশারফ হোসেন, নকলা, শেরপুর।

মন্তব্য