kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

কাভার্ড ভ্যান কেড়ে নিল মেহেদীর স্বপ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাভার্ড ভ্যান কেড়ে নিল মেহেদীর স্বপ্ন

ঢাকায় থাকা ও লেখাপড়ার খরচ জোগাতে অ্যাপসভিত্তিক মোটরসাইকেল নিয়ে রাজপথে নেমেছিলেন ঢাকা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ছাত্র মেহেদী হাসান (২৬)। স্বপ্ন ছিল মাস্টার্স পাস করে বড় চাকরি করার। কিন্তু ঘাতক কাভার্ড ভ্যান কেড়ে নিয়েছে এই তরুণের স্বপ্ন। গতকাল বুধবার রাজধানীর রামপুরার বনশ্রী এলাকায় তাঁকে পিষে দিয়েছে কাভার্ড ভ্যানের চাকা। এ ঘটনায় পুলিশ চালককে আটক ও কাভার্ড ভ্যানটি জব্দ করেছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া।

পুলিশ ও স্বজন সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বনশ্রী এলাকা দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় কাভার্ড ভ্যানটি পেছন থেকে মেহেদীকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি ছিটকে রাস্তায় পড়েন। এরপর তাঁর মাথার ওপর দিয়ে কাভার্ড ভ্যানের চাকা উঠিয়ে দেয় ঘাতক চালক। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। রাত পৌনে ১০টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। জানা গেছে, কাভার্ড ভ্যানটি বনশ্রী এলাকার আল-রাজী হাসপাতালের।

মেহেদীর ভাই মিরাজ কালের কণ্ঠকে জানান, ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র ছিলেন মেহেদী। তাঁদের ছয় ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিলেন তিনি। এলাকার এক ভাতিজার সঙ্গে বাড্ডা এলাকায় একটি বাসায় থেকে মেহেদি পড়ালেখা করছিলেন। টিউশনি করে পড়ার ও থাকার খরচ চালাচ্ছিলেন। কিছু কিছু টাকা জমিয়ে বাড়তি আয়ের জন্য কিনেছিলেন একটি মোটরসাইকেল। সেটি অ্যাপসভিত্তিক পাঠাওয়ে চালিয়ে কিছু অর্থ আয় করতেন। নিজের এই বাড়তি পরিশ্রমের কথা পরিবারের কাউকে জানতেও দেননি।

পিরোজপুরের জিয়ানগর থানার হোগলাবুনিয়া গ্রামের আব্দুস সোবাহান হাওলাদারের ছেলে মেহেদী। বড় ভাই মিরাজ কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘ভাইকে নিয়ে আগামী ২ জুন ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার কথা ছিল। এখন ওর লাশ নিয়ে যেতে হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা