kalerkantho

সবিশেষ

সমুদ্রের প্লাস্টিক শনাক্ত হবে মহাশূন্য থেকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সমুদ্রের প্লাস্টিক শনাক্ত হবে মহাশূন্য থেকে

মহাশূন্য থেকে সাগরে প্লাস্টিক বর্জ্য খুঁজে বের করার কৌশল বের করতে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা। কিন্তু বর্জ্য বা ধ্বংসপ্রাপ্ত টুকরোগুলো যখন ন্যূনতম বস্তুর চেয়েও ছোট, তখন তা উপগ্রহের মাধ্যমে খুঁজে বের করা খুবই চ্যালেঞ্জের।

এ ক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা যে নতুন পদ্ধতির কথা বলছেন, সেটি কাজ করে প্লাস্টিক থেকে পানিতে প্রতিফলিত আলোর সূত্র সন্ধানের মাধ্যমে। আর এ বিষয়ে যুক্তরাজ্যের প্লাইমাউথ মেরিন ল্যাবরেটরিতে যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে, তার ফল খুবই আশাব্যঞ্জক। গবেষক ড. লরেন বিয়ারম্যান বলেন, ‘আপনি সমুদ্রে ভাসমান একটি পৃথক প্লাস্টিকের বোতল হয়তো দেখতে পারবেন না, কিন্তু আমরা এই উপাদানের একত্রকরণকে শনাক্ত করতে পারি।’

২০১৫ ও ২০১৭ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ‘সেনটিল-টু’ উপগ্রহের কক্ষপথে স্থাপন করা হয় মাল্টি স্পেকট্রাল ইনস্ট্রুমেন্টস বা এসএসআই নামের দুটি যন্ত্র। এটি পরিচালনা করছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি।

এই মিশনের প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল, ভূপৃষ্ঠের একটি ক্রমবর্ধমান মানচিত্র তৈরি করা। তবে এই প্রক্রিয়া উপকূলীয় অংশের পানির দৃশ্যও ধারণ করতে পারে। আর এটিই মহাসাগরে প্লাস্টিক বর্জ্য শনাক্ত করার সুযোগ তৈরি করে দেয়। কেননা প্রতিবছরে অন্তত আট মিলিয়ন টন প্লাস্টিক নদী কিংবা অন্য সব উেসর মাধ্যমে সমুদ্রের গর্ভে গিয়ে পড়ে।

কিভাবে প্লাস্টিক শনাক্ত হবে—এমন প্রশ্নের জবাবে ড. লরেন বলেন, ‘সমুদ্রের পানি নিকটবর্তী ইনফ্রারেড রশ্মি জোরালোভাবে শোষণ করে। উদ্ভিদ এবং পানিতে ভাসমান অন্যকিছু এই নিকটবর্তী ইনফ্রারেড রশ্মি প্রতিফলিত করে। তবে উদ্ভিদে প্লাস্টিক মিশে থাকলে তার কিছু পরিবর্তন দেখা যাবে। আর এই উদ্ভিদ ও প্লাস্টিকের ইনফ্রারেড প্রতিফলের ভিন্নতাই তাদের শনাক্ত করার অন্যতম উপায়।’ সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য