kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

সবিশেষ

আহত পশুপাখির জন্য তহবিল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আহত পশুপাখির জন্য তহবিল

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত হওয়া নিজ এলাকার কোনো বাড়ি আস্ত রয়েছে কি না, তা দেখতে গিয়েছিলেন জেফ হিল। ‘ক্যাম্প ফায়ার’ তত দিনে ছারখার করে দিয়েছে গোটা প্যারাডাইস শহর। সেই শহরেরই বাসিন্দা তিনি। এক জায়গায় গিয়ে চোখ আটকে যায় জেফের। পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ির পেছনের দিকে সুইমিং পুলে জড়সড় হয়ে শুয়ে একটা ঘোড়া।

‘পুল কভার’-এর মধ্যে এমনভাবেই সে ফেঁসে গেছে যে সেখান থেকে বেরিয়ে আসারও উপায় নেই। অনেক চেষ্টা করে জেফ শেষ পর্যন্ত ঘোড়াটিকে উদ্ধার করে পশু চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যান। এরপর পুরো ঘটনা নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেন জেফ। বেশ কয়েকটি ছবিও দিয়েছেন আটকে পড়া অসহায় ঘোড়াটির। জেফের বক্তব্য, আগুনের তাপ থেকে বাঁচতে কোনোভাবে পুলের পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল ঘোড়াটি। কিন্তু ‘পুল কভার’-এর মধ্যে আটকে পড়ে সেখান থেকে আর উঠতে পারেনি।

জেফের দেখা এ ঘটনা ব্যতিক্রম নয় একেবারেই। দিন যত গড়াচ্ছে, পশু-পাখির অসহায়তার ছবি আরো স্পষ্ট  হচ্ছে উদ্ধারকারীদের কাছে। আর এটাও স্পষ্ট হচ্ছে, ক্যালিফোর্নিয়ার বিধ্বংসী দাবানলে শুধু মানুষ নয়, বন্য প্রাণীর একটা বড় অংশও ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। কত পশুপাখির মৃত্যু হয়েছে, সে সংখ্যাটা স্পষ্ট নয়। তবে উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, আগুনে পুড়ে বা দম বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে এমন খরগোশ, বিড়াল, হাঁস ও কুকুরের সংখ্যা কম নয়। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, নিজেরা কোনোমতে গাড়ি নিয়ে অন্যত্র যেতে পারলেও পোষ্যদের বাড়িতে ছেড়ে গিয়েছে অনেকে। অসহায় প্রাণীগুলো হয় ছটফট করতে করতে মারা গেছে, অথবা সারা শরীরে ভয়াবহ পোড়ার ক্ষত নিয়ে আপাতত চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি। জেফের সেই ঘোড়া তো বটেই, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে পুড়ে কালো হয়ে যাওয়া একটা বিড়াল, একটি ল্যাব্রাডর আর জার্মান শেফার্ডের ছবিও।

আহত এসব পশুপাখি বাঁচাতে উদ্যোগ নিয়েছেন হলিউড অভিনেত্রী স্যান্ড্রা বুলক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চাঁদা তোলার জন্য একটি পেজ খুলেছেন তিনি। যেখানে নিজেই প্রথমে এক লাখ ডলার দিয়েছেন। এরপর অবশ্য অনেকেই সাড়া দিয়েছে তাতে। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

 

 

মন্তব্য