kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

আ. লীগের মনোনয়ন

উৎসবের পাশাপাশি আছে উৎকণ্ঠাও

রাজশাহীর রাজনীতি

রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উৎসবের পাশাপাশি আছে উৎকণ্ঠাও

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজশাহীর ছয়টি আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন ৩৯ জন। এঁদের মধ্যে কে কে শেষ পর্যন্ত দল থেকে মনোনয়ন পাবেন, তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনা চলছে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে। অন্যদিকে অনেক প্রার্থী ও তাঁদের সমর্থকরা মনোনয়ন নিশ্চিত হয়ে গেছে প্রচার চালিয়ে মিষ্টি বিতরণও শুরু করেছে। কোনো কোনো মনোনয়নপ্রত্যাশী ও তাঁদের লোকজন আছে উৎকণ্ঠায়। আবার এক পক্ষ আরেক পক্ষকে হুমকি দিচ্ছে—এমন অভিযোগও উঠছে প্রতিনিয়ত।

একসময় বিএনপির ঘাঁটি হিসেবেই পরিচিত ছিল রাজশাহী। ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের নির্বাচনে সেখানে বিএনপি প্রার্থীদের জয়জয়কার ছিল। দৃশ্যপট পাল্টে যায় ২০০৮ সালের নির্বাচনে। সেবার সব কটি আসনে জয় পায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোট। বর্তমানে রাজশাহী সদর আসনের এমপি হিসেবে আছেন ওয়ার্কার্স পার্টির ফজলে হোসেন বাদশা। আর বাকি পাঁচটিতে আওয়ামী লীগের এমপি।

সাধারণ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছয়টি আসনে কোন দল কয়টি আসনে জিতবে, তা খুব বেশি আলোচনায় নেই। বরং আওয়ামী লীগ থেকে কে কে মনোনয়ন পাচ্ছেন—এ মুহূর্তে সেটাই আলোচনার সবচেয়ে ‘মুখরোচক’ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এ আলোচনায় বাড়তি রসদ জোগাচ্ছে নানা প্রচার-অপপ্রচার। চলছে হুমকি-ধমকিও। কোনো কোনো নেতা মনোনয়ন পেয়ে গেছেন দাবি করে নিজ এলাকায় মিষ্টি বিতরণও শুরু করেছেন।

রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ওমর ফারুক এবারও মনোনয়ন পাচ্ছেন—এমন খবর ছড়িয়ে গত রবিবার দুপুরে এলাকায় মিষ্টি বিতরণ করে তাঁর সমর্থকরা। অভিযোগ উঠেছে, তাঁর লোকজন নিজ দলের বিরোধী অংশের নেতাকর্মীদের ‘দেখে নেওয়ারও’ হুমকি দিচ্ছে। গতকাল কালের কণ্ঠকে কয়েকজন ফোন করে এবং ফেসবুকে এমন হুমকির অভিযোগ তুলেছে।

মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার খবর ছড়িয়ে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে রাজশাহী-৩, ৪ ও ৬ নম্বর আসনেও। সবচেয়ে আগে মিষ্টি বিতরণ হয় রাজশাহী-৬ আসনে।

সেখানে বর্তমান সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের পক্ষে মিষ্টি বিতরণ করে তাঁর সমর্থকরা।

রাজশাহী-৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। গত ১৬ নভেম্বর খবর ছড়ানো হয়, তাঁকে সরিয়ে এবার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এর দুই দিন পর এলাকায় মিষ্টি বিতরণ করে আয়েনের সমর্থকরা।

এদিকে রাজশাহী-৩ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য এনামুল হক। অভিযোগ উঠেছে, তাঁর বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় মনোনয়নপ্রত্যাশী আবুল কালাম আজাদ এবং জাকিরুর ইসলাম সান্টুর লোকজনকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। জাকিরুল ইসলাম সান্টুর সমর্থক ও বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘এখনো মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়নি। কিন্তু এমপির অনুসারীরা যে আচরণ শুরু করেছে, তাতে মনে হয় স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি বড় অংশকে বাদ দিয়েই তিনি জয়ী হতে পারবেন। কিন্তু এটা ভাবলে এমপি এনামুল ভুল করবেন।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা