kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

আখাউড়ায় আইনমন্ত্রী

এ দেশে সব অন্যায়েরই বিচার হবে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২০ মে, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এ দেশে সব অন্যায়েরই বিচার হবে

আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বর্তমান সরকার আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়। সে কারণে দেশে সব অন্যায়েরই বিচার হবে। তবে তার আগে মামলাসহ যে যে আইনি প্রক্রিয়া দরকার সেগুলো করতে হবে। শিক্ষককে কান ধরে উঠবোস করানো প্রসঙ্গে গতকাল বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে আখাউড়া স্থল শুল্ক স্টেশনে ‘বেলাজিও ডিউটি ফ্রি শপ’ নামের একটি বিপণিকেন্দ্র উদ্বোধন করে সেখানে এক সমাবেশে বক্তব্য দেন মন্ত্রী। তিনি ‘নূর আমতুল্লা রিণা হক পৌর পাঠাগার’-এরও উদ্বোধন করেন। এটি তাঁর প্রয়াত স্ত্রীর নামে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। মন্ত্রী বিকেলে আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত সভায় যোগ দেন।

বেলাজিও লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ মাইনুল বারীর আয়োজনে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গ্যালাক্সি গ্রুপের চেয়ারম্যান তৌফিক উদ্দিন আহমেদ। বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি এম তাজুল ইসলাম এমপি, এনবিআর সদস্য এফ এম শাহরিয়ার মোল্লা, কাস্টমস এক্সাইজ অ্যান্ড ভ্যাট কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মো. আজিজুল হক, আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. জয়নাল আবেদীন, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন বেলাজিও লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা এম ফরিদ আহম্মেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আনিসুল হক বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের উন্নতির লাইনে তুলে দিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশকে অন্ধকার থেকে আলোকিত করেছেন। তিনি নিজের সন্তানের মতোই দেশকে গড়ছেন। এখন সময় তাঁকে (শেখ হাসিনা) কিছু দেওয়ার।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি মানে ষড়যন্ত্র। আর ষড়যন্ত্র মানেই বিএনপি। একটাকে বাদ দিয়ে আরেকটা চিন্তা করা যায় না। দেশে ব্যর্থ হয়ে এখন বিদেশিদের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করছে। ইসলামের শত্রু মোসাদের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করছে। তবে এ ষড়যন্ত্রকে হারিয়ে আমাদের দেশ গড়তে হবে।’            

আইনমন্ত্রী মহানগর প্রভাতী ট্রেনে সকাল পৌনে ১১টার দিকে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে নামেন। সেখান থেকে পৌরসভা কার্যালয়ে গিয়ে পাঠাগারের উদ্বোধন করেন। কালের কণ্ঠ সম্পাদক ও সাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলনের পাঠানো ১০০টি বই দিয়ে পাঠাগারটির উদ্বোধন করা হয়।

বেলাজিও লিমিটেডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা এম ফরিদ আহম্মেদ জানান, আখাউড়া বন্দর দিয়ে যাতায়াতকারী পাসপোর্টধারী যাত্রীরা ডিউটি ফ্রি শপ থেকে সর্বোচ্চ ৪০০ ডলারের পণ্য কিনতে পারবে।

মন্তব্য