kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

অনেক কিছুর ব্যাখ্যা দিতে পারছেন না আসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মে, ২০১৬ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনেক কিছুর ব্যাখ্যা দিতে পারছেন না আসলাম

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে বাংলাদেশের সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ছাড়া অন্য অভিযোগেরও তদন্ত চলছে। ইসরায়েলের লিকুদ পার্টির নেতা মেন্দি এন সাফাদি এবং গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে আসলামের সম্পর্ক খতিয়ে দেখার পাশাপাশি দেশে নাশকতায় সম্পৃক্ততার অভিযোগও তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ। আসলামকে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে এসব বিষয়ে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে ষড়যন্ত্রের কথা অস্বীকার করেছেন আসলাম। তবে তাঁকে বেশ কিছু ছবি ও তথ্য দেখিয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হলে সন্তোষজনক ব্যাখ্যা দিতে পারছেন না তিনি। এদিকে আসলামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার জন্য তথ্য-প্রমাণ জড়ো করছেন তদন্তকারীরা। দুই-এক দিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মামলার অনুমোদন চেয়ে আবেদন করবে পুলিশ। তদন্তসংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) এক কর্মকর্তা গতকাল জানান, মোসাদের সঙ্গে গোপন বৈঠক বা ষড়যন্ত্রের অভিযোগের পাশাপাশি আসলাম চৌধুরীর রাষ্ট্রবিরোধী আরো কর্মকাণ্ড আছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই কর্মকর্তা বলেন, সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে বেশ সক্রিয় আসলাম চৌধুরী। সাকা চৌধুরীর ফাঁসি ঠেকাতেও দেশে-বিদেশে কর্মকাণ্ড চালান তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে জঙ্গি তৎপরতা ও নাশকতায় বিদেশি ষড়যন্ত্রের আলামত মিলেছে। এসবের সঙ্গে আসলামের সম্পৃক্ততা আছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার কিছু ভিত্তি বা সুর্নির্দিষ্ট অভিযোগ লাগে। আমরা এসব জড়ো করছি। যেকোনো সময় অনুমোদন চাইব। মামলাও হবে। আর কেউ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধেও মামলা হবে।’

ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ এবং অভিযোগসংশ্লিষ্ট সব বিষয় আমরা খতিয়ে দেখছি। তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ চলছে। আইনগত প্রক্রিয়া মেনেই নতুন মামলা দায়ের বা পুরনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হবে।’

গত রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে আসলামকে গ্রেপ্তার করে ডিবির উত্তর বিভাগের একটি দল। সোমবার তাঁকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়। গতকাল পর্যন্তও তাঁকে তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ডিবির সূত্র জানায়, ভারতে এক সেমিনারের আগে মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলামকেও ফুলের মালা দিয়ে বরণ করেন আয়োজকরা। সেই অনুষ্ঠানের ছবি গত ১০ মার্চ মেন্দি এন সাফাদি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ডিপ্লোমেসি অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনসের ফেসবুক পেজে আপলোড করা হয়। ছবিগুলো সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকেও ছড়িয়ে পড়েছে। আওয়ামী লীগ নেতারা অভিযোগ করছেন, শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করতে বিএনপি ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েল এবং দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে মিলে ষড়যন্ত্র করছে। তবে বিএনপি ইসরায়েল বা মোসাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, আসলামের ওই সফর ছিল ‘ব্যক্তিগত’।

মন্তব্য