kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

জোকস: হুজুর, আর পারছি না

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ মার্চ, ২০১৯ ১৭:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জোকস: হুজুর, আর পারছি না

ভক্ত: হুজুর, আর পারছি না!

পাগলা বাবা: কী হয়েছে রে বৎস? খুলে বল দেখি।

ভক্ত: বউয়ের নির্যাতনে ঝামা হয়ে গেলাম। কোনো তাবিজ-কবচ দেন দয়া করে...
পাগলা বাবা: মামু কয় কী? সেই তাবিজ জানা থাকলে কি আর আমার জঙ্গলে আসতে হইতো রে পাগলা!

                                                (২)
কুখ্যাত সন্ত্রাসী হেলমেট-জামান তখন তরুণ- সবে অপরাধ জগতে পদচারণা শুরু করেছে। একদিন ঘটনা এমন হলো যে মারামারি ছাড়াই হাতে পায়ে মাথায় বেশকিছু ব্যান্ডেজ পড়লো তার। সকাল সকাল চ্যাংরা চ্যালা ঘাউরা-সেলিম ওস্তাদের এই অবস্থা দেখে মর্মাহত।

ঘাউরা-সেলিম: বস, বস! কেমতে কি! চেহারা-নক্সা ইমুন অইলো কেমনে? কার এতবড় সাহস! অর হাত আমি ভাইঙ্গা...

হেলমেট-জামান: হুদাই লাফাইছ না তো! কেউ আমারে মারে নাইক্ক্যা।

ঘাউরা-সেলিম: তো! ইমুন অবস্থা কেমনে হইলো তোমার?

হেলমেট-জামান: ঘটনা হইছে কি... গত রাইতে বাড়ি ফিরার আগে দিয়া একটা খুব দামি বিদেশি মদের বোতল পায়া গেলাম। জিনিসটা ব্যাগে ভইরা নিয়া মোটরসাইকেলে দিলাম টান। কিন্তু আতকা মনে অইলো- রাস্তায় যদি আছার-মাছার খাই তাইলো তো বোতলটা ভাইঙ্গা সব জিনিস মাটিতে পইরা যাইবো!

ঘাউরা-সেলিম: তারপর ওস্তাদ?

হেলমেট-জামান: তো এত দামি জিনিস মাটিরে খাওয়ায়া লাভ আছে? তুই ক?

ঘাউরা-সেলিম: না বস! কুনু মতেই না। তো শেষে কি করলা?

হেলমেট-জামান: শেষে আর কি! বাইকটা রাস্তার সাইডে দাঁড়া করায়া বোতলটা খুইলা ঢক ঢক কইরা পুরা সাফ কইরা দিলাম।

ঘাউরা-সেলিম: কও কি ওস্তাদ! কঠিন... তুমি আসলে মাল-ই একটা!

হেলমেট-জামান: তো একটা জিনিস কিন্তু শেষ তক ঠিক ঠিক ঘটলো-ই।

ঘাউরা-সেলিম: কী?

হেলমেট জামান: আমি কিন্তুক ঠিক-ই আন্দাজ করছিলাম। বাড়িতে ফিরার সময় রাস্তায় কমপক্ষে চার বার ডিগবাজি খাইছি মোটরসাইকেল নিয়া। এরপর তো হাত-পা-মাথায় একটু চোট-চাপট লাগবো-ই... কী বলিস! 

ঘাউরা সেলিম: বুঝছি ওস্তাদ! বুদ্ধি কইরা তুমি বোতলটা আগে-ই পেটে চালান না দিলে বাঁচান যাইতো না কিছুতেই...সব রাস্তায় খাইতো।

                                                (৩) 
শিক্ষক: ক্লাসে আজও দেরি করে এসেছো! এবার কী বাহানা শোনাবে?

ছাত্র: ম্যাডাম! এত জোড়ে দৌড়ায়া আসছি যে বাহানা তৈরির সময়-ই পাই নাই!

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা