kalerkantho

শনিবার । ২৫ বৈশাখ ১৪২৮। ৮ মে ২০২১। ২৫ রমজান ১৪৪২

অ্যাপে বাংলা

অনলাইন ডেস্ক   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:৪৪ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



অ্যাপে বাংলা

মডেল : আজরিন, আলোকচিত্র : মোহাম্মাদ আসাদ

সরকারি-বেসরকারি নানা ধরনের সেবার জন্য তৈরি প্রায় প্রতিটি অ্যাপেই ব্যবহৃত হচ্ছে বাংলা ইন্টারফেস। দেশের বাইরে বিদেশি বেশ কিছু জনপ্রিয় অ্যাপও শুধু বাংলায় ইন্টারফেসই নয়, তাদের কনটেন্টও প্রকাশ শুরু করেছে। সেই অ্যাপগুলো সম্পর্কে জানাচ্ছেন এস এম তাহমিদ

বিআরটিএ সেবা
বাড়তি ঝক্কি এড়ানোর লক্ষ্যে এই সেবা অ্যাপ চালু করেছে বিআরটিএ। মোটরযান সম্পর্কিত সব সেবা অ্যাপেই দেওয়া হয়ে থাকে। অ্যাপটির ইন্টারফেস সম্পূর্ণ বাংলা। এটি ব্যবহার করে খোলা যাবে বিআরটিএ বিএসপি অ্যাকাউন্ট। এরপর নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদনসহ করা যাবে নতুন মোটরযান নিবন্ধনের আবেদনও। এই অ্যাপের সবচেয়ে বড় সুবিধা বলা যায় লাইসেন্স ও রেজিস্টারকৃত মোটরযান অ্যাকাউন্টে অ্যাড করে রাখার সুবিধা। এর মাধ্যমে কত দিন পর নতুন করে লাইসেন্স ও অন্যান্য কাগজপত্র নবায়ন করতে হবে, তার জন্য কত টাকা ফি প্রদান করতে হবে, সে তথ্যও পাওয়া যাবে, চাইলে ফি প্রদান করাও যাবে অনলাইনে। নানা ধরনের সেবার জন্য বিআরটিএতে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেওয়াও যাবে অ্যাপের মাধ্যমে।

রেলসেবা
ট্রেনে যাত্রা করার প্রতিটি ধাপ আরো সহজ করার জন্য রেলসেবা অ্যাপের যাত্রা শুরু হয়েছিল বেশ আগেই। ধীরে ধীরে যাত্রীদের আস্থা অর্জন করে এ অ্যাপটি নতুন সব সরকারি সেবার অ্যাপের দুয়ার খুলে দিয়েছিল। এখনো পর্যন্ত বলা যায় সব সরকারি অ্যাপের মধ্যে এটিই সবচেয়ে জনপ্রিয়। অ্যাপটির ইন্টারফেস পুরোপুরি বাংলা। এটির মাধ্যমে রেলের সময়সূচি জানা যাচ্ছে, দেখা যাচ্ছে ট্রেনের ভেতরের ছবিও যাতে কোন শ্রেণির আসন কেমন তা নিয়ে সন্দেহ না থাকে। টিকিট কাটা থেকে শুরু করে বর্তমানের ট্রেনের অবস্থান কোথায়, লেট করছে কি না সেটিও অ্যাপের মাধ্যমেই জানা যাবে। ভবিষ্যতে অ্যাপের মাধ্যমেই টিকিট চেক করার সুবিধাও যুক্ত করা হতে পারে।

বাংলাদেশ বেতার
বাংলাদেশ বেতারের অনুষ্ঠান শোনার এ অ্যাপটি একেবারেই সাধারণ, ফলে ব্যবহার খুবই সহজ। অনলাইনে রেডিও শোনার জন্য আরো অনেক অ্যাপ থাকলেও, এ অ্যাপটির পুরো ইন্টারফেস বাংলায় হওয়ায় সাধারণ জনগণের কাছে এর ব্যবহারযোগ্যতা অনেক বেশি। এ অ্যাপের মাধ্যমে শুধু নিজস্ব অঞ্চলের বেতার সম্প্রচার শোনা যাবে তা-ই নয়, অন্যান্য বিভাগের বেতার অনুষ্ঠান শোনারও অপশন রয়েছে। বেতারের এফএম ব্যান্ডের সম্প্রচার অনেক ফোনে থাকা রেডিওর মাধ্যমে শোনা গেলেও, এএম ব্যান্ডের সম্প্রচারগুলো, বিশেষ করে সেই চ্যানেলগুলোতে আবহওয়াজনিত তাত্ক্ষণিক বিপদসংকেত দেওয়া হয় সেসব শোনার জন্য এ অ্যাপ ছাড়া গতি নেই।

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস
জরুরি সেবার জন্য হটলাইন চালু থাকলেও, কোথাও আগুন দেখামাত্র বা অন্যান্য উদ্ধারকাজের জন্য প্রয়োজন হয় নিকটস্থ ফায়ার স্টেশনের ঠিকানা এবং ফোন নম্বর। আর সে জন্য বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস অ্যাপটি চালু করা হয়েছে। তেমন একটা ফিচার এতে নেই, শুধু দ্রুত জরুরি সেবা ডায়ালের বাটন, নিকটস্থ ফায়ার স্টেশন বের করার জন্য ডিরেক্টরি আর কিছু টুকিটাকি তথ্য। কিন্তু জরুরি সময় ফিচার বহুল অ্যাপের চেয়ে দ্রুত এবং সহজবোধ্য ইন্টারফেসই জীবন বাঁচাতে পারে। যাঁরা প্রায় সময়ই বিভিন্ন অপরিচিত এলাকায় ভ্রমণ করেন, তাঁদের জন্য অ্যাপটি বিশেষ উপকারী, কেননা দ্রুত জরুরি উদ্ধার সেবার প্রয়োজনে যোগাযোগের জন্য অ্যাপটিই যথেষ্ট।

নগদ
মোবাইলে অর্থ লেনদেন এবং ক্ষুদ্র সেভিংসের জন্য নগদ হতে পারে একটি চমৎকার মাধ্যম। বিশেষ করে জমাকৃত অর্থের ওপর পাওয়া ইন্টারেস্ট এবং প্রয়োজনে তা সহজেই বন্ধ করার সেবাটি নগদকে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং থেকে করেছে একেবারে আলাদা। সাধারণ জনগণের কথা মাথায় রেখে শুরু থেকেই নগদ চেষ্টা করেছে তাদের ইন্টারফেস সহজ রাখার জন্য, আর শুরু থেকেই অ্যাপটির ভাষা বাংলা। ফলে ব্যবহারকারীরা ঝুটঝামেলা ছাড়াই শুধু অ্যাপটি চালু করে অ্যাকাউন্ট করা থেকে শুরু করে যাবতীয় সব ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন ইংরেজি ব্যবহার না করেই। স্টোর অনুসন্ধান ফিচারটিও চমৎকার কাজের, কেননা হঠাৎ করেই নগদের আউটলেট অনেক সময় খুঁজে পাওয়া হয়ে ওঠে দুষ্কর। অবশ্য দিন দিনই বাড়ছে নগদের স্টোর, ফলে সামনে আর এই ফিচারের ওপর নির্ভর করতে হবে না ব্যবহারকারীদের।

গুগল কিপ
ছোটখাটো নোট লিখে রাখার জন্য গুগল কিপ অ্যাপটি চমৎকার। চালু করলেই ছোট ছোট চিরকুটের মতো করে সর্বশেষ সব লেখা নোট, পিন করে রাখা জরুরি নোট চোখের সামনে হাজির হয়ে যাবে। বাজারের তালিকা থেকে শুরু করে জরুরি ফোন নম্বর, ঠিকানা, দিনের কার্যক্রমের তালিকা এতে রাখা যাবে। শুধু লেখা নোটই নয়, সঙ্গে নোটগুলোর মধ্যে অডিও বা ছবিও জুড়ে রাখা সম্ভব। প্রতিটি নোটই খোলার সঙ্গে সঙ্গে সেভ হতে শুরু করবে, সংরক্ষিত থাকবে গুগলের সার্ভারে। চাইলে গুগল ডকসে কাজ করার সময় কিপের নোটগুলো পাশাপাশি খুলে রাখা যাবে, বড় ডকুমেন্ট থেকে প্রয়োজনীয় অংশ নিয়ে সাজানো যাবে নতুন নোট। আর এসব কাজই করা যাবে বাংলায়, কেননা গুগল কিপের ইন্টারফেসের পুরোটাই বাংলায় দেখার অপশন যুক্ত করা হয়েছে।

বাংলা ক্যালেন্ডার
বাংলায় ক্যালেন্ডার অ্যাপের অভাব না থাকলেও, আউটস্কারের তৈরি বাংলা ক্যালেন্ডারের মত চমৎকার ইন্টারফেস এবং প্রয়োজনীয় ফিচারের সম্বনয় কমই আছে। অ্যাপটিতে বাংলা, ইংরেজি এবং হিজরি—সবগুলো ক্যালেন্ডারই একত্রে পাওয়া যাবে, প্রতিটি দিনের বিশেষ ঘটনাবলী, সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের সময়ও দেখাবে এটি। বয়স গণনা এবং দিন গণনার ফিচারও পাওয়া যাবে এই অ্যাপে। তবে নিজস্ব অ্যালার্ম বা রিমাইন্ডার যুক্ত করার ফিচার এতে নেই, আর কখনও কখনও বিজ্ঞাপণ কিছুটা বিরক্তিকর মনে হতে পারে। বেশ কিছু থিমও অ্যাপটিতে রাখা হয়েছে, আর ইন্টারফেসও একেবারেই সহজবোধ্য এবং পুরোপুরি বাংলায়, ফলে ব্যবহার করাও খুবই সহজ।  

ডাউনলোড লিংক: https://urlzs.com/f9Ve2

মাইক্রোসফট অফিস
জনপ্রিয় তিনটি মূল অ্যাপ—ওয়ার্ড, এক্সেল এবং পাওয়ার পয়েন্ট একত্র করে ফোনের জন্য একটি অ্যাপ এনেছে মাইক্রোসফট আর সেটা হলো ‘মাইক্রোসফট অফিস’। এর মাধ্যমে খোলা যাবে ডক ফাইল, লেখা যাবে দীর্ঘ রিপোর্ট, এক্সেল শিটে রাখা যাবে হিসাব আর প্রেসেন্টেশনে চট করে কোনো পরিবর্তন করতে চাইলে সেটিও করা যাবে। প্রতিটি ফাইল জমা থাকবে ওয়ানড্রাইভে, ফলে পিসি ও ফোনের মধ্যে ডকুমেন্ট থাকবে সব সময় সিঙ্ক্রোনাইজ করা। সবচেয়ে বড় বিষয়, মাইক্রোসফট অফিসের ইন্টারফেসেও আজ পাওয়া যাবে বাংলা ব্যবহারের সুবিধা। তবে বিজয় ফন্ট ইনস্টল করা এখনো অ্যানড্রয়েডে সম্ভব নয়, সামনে অবশ্য সেটিও যুক্ত করা হতে পারে।

হোয়াটসঅ্যাপ
চরম জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপের ইন্টারফেসেও আজ বাংলার দেখা মিলেছে। ফেসবুকের অন্য সেবাগুলোর অ্যাপের পাশাপাশি হোয়াটসঅ্যাপেও বাংলার ব্যবহারের পেছনে রয়েছে বাংলা ভাষাভাষীদের মধ্যে ফেসবুকের প্রতিটি সেবার তুমুল জনপ্রিয়তা। হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে সহজেই প্রিয়জনদের সঙ্গে মেসেজিং করা যাবে, বলা যাবে কথা এবং চাইলে ভিডিও কলও করা যাবে। এ সেবাগুলো আরো অনেক অ্যাপেই পাওয়া গেলেও, হোয়াটসঅ্যাপে বিজ্ঞাপন, বিরক্তিকর নোটিফিকেশন বা ইন্টারফেসে অপ্রয়োজনীয় কনটেন্টের বালাই নেই, সঙ্গে আছে হোয়াটসঅ্যাপের নিজস্ব ডাটা বাঁচানোর কমপ্রেশন। এর বাইরেও আছে বিজনেস অ্যাকাউন্ট করে ক্রেতাদের জন্য হেল্পলাইন চালুর সুবিধা, অটো রিপাই করার সেবা, যাতে অফলাইন থাকলেও ক্রেতারা কিছু তথ্য জানতে পারে। বড় গ্রুপচ্যাট খুলে একাধিক কন্ট্যাক্টের সঙ্গে কথাবার্তা চালানো এবং ফাইল শেয়ার করার সুবিধাটাও চমৎকার। জনপ্রিয় অন্যান্য মেসেজিং সেবার চেয়ে হোয়াটসঅ্যাপ এখনো অনেক এগিয়ে, বাংলা ইন্টারফেস বলা যায় বাড়তি পাওয়া।

গুগল ট্রান্সলেট
ভাষান্তর করার জন্য গুগল ট্যান্সলেট বহুদিন ধরেই প্রথম পাঁচটি সেবার তালিকায় অবস্থান করছে। অন্যান্য ভাষা থেকে বাংলায় ও বাংলা থেকে অন্যান্য ভাষায় লেখা ভাষান্তর করার সুবিধা দীর্ঘদিন ধরে চালু থাকলেও বাংলা কথা ভাষান্তর করা এবং কথোপকথন দোভাষীর মতো লাইভ ট্রান্সলেট করার সেবাও এবার যুক্ত করা হয়েছে। অ্যাপটির ইন্টারফেসও চাইলে বাংলা করে ফেলা সম্ভব। সবচেয়ে চমকপ্রদ বিষয়, খুব পরিষ্কারভাবে উচ্চারণ না করলেও গুগল সুন্দরভাবে বাংলা শব্দগুলো সঠিকভাবে শনাক্ত করতে পারে। শুধু টাইপ করা টেক্সট বা মুখের ভাষাই নয়, ক্যামেরা ব্যবহার করে বাংলা লেখা শনাক্ত করাতেও গুগল সমান পারদর্শী। লেখা, কথোপকথন থেকে শুরু করে ছাপা লেখা ভাষান্তর করায় সমান পারদর্শী এই অ্যাপ ফোনে থাকা উচিত সবার।



সাতদিনের সেরা