kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

এলো গুগল কিন

নতুন এক সেবা নিয়ে ব্যবহারকারীদের মাঝে হাজির হয়েছে গুগল। ‘গুগল কিন’ নামের এই সেবায় ব্যবহার করা হয়েছে মেশিন লার্নিং ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের। অনেকে মনে করছেন পিনটারেস্টের বিকল্প হতে যাচ্ছে গুগলের এই সেবা। বিস্তারিত এস এম তাহমিদের কাছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ জুন, ২০২০ ০৯:৫২ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এলো গুগল কিন

অবসর সময় কাজে লাগাতে বা মনের আনন্দে শখ করে অনেক কিছুই আমাদের করতে ইচ্ছা করে, কিন্তু দেখা যায় সঠিক তথ্যের অভাবে তা আর শুরু করাই হয়ে ওঠে না। এই যেমন ধরুন—হয়তো কারো বাগান করার ইচ্ছা কিন্তু শুরুটা কিভাবে করবেন তা জানেন না? গাছের ব্যাপারে কিছু তো জানেনই না, অন্যদের করা বাগানের ছবি ও নকশার উদাহরণ কিছুই তাঁর নাগালে নেই। সে কাজটি সহজ করার জন্য গুগল চালু করেছে তাদের নতুন সেবা ‘গুগল কিন’।

ইংরেজিতে কিন শব্দের অর্থ উৎসাহী, ব্যবহারকারীর উৎসাহ যেসব জিনিসে সেগুলোর এক তালিকা করে সেসব সম্পর্কিত তথ্য তাঁর সামনে হাজির করাই এ সেবাটির কাজ। সেবাটির নির্মাতা যেহেতু গুগল, তাই মেশিন লার্নিং ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহার এবং গুগলের অন্যান্য সেবা ও অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সঙ্গে গভীর সংযোগ ‘গুগল কিনে’ দেখা যাবে।

গুগল কিনের সম্পর্কে পড়ে যদি সেবাটি পরিচিত মনে হয় তাহলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। ঠিক এ সেবাটিই অনেক বছর ধরে পিনটারেস্ট দিয়ে আসছে। অর্থাৎ গুগল আবারও নতুন করে আরো একটি ব্লগ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের হাইব্রিড সেবা চালু করেছে। বারবার ব্যর্থ হয়েও গুগলের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা ব্লগ সেক্টর নিয়ে কাজ করার উৎসাহে যেন কোনো ভাটাই পড়েনি।

পিনটারেস্টের মতো আগ্রহ অনুযায়ী বিষয়বস্তু নির্ভর তালিকা তৈরি এবং সবার মধ্যে শেয়ার করার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে এর আগে কাজ অবশ্য করেনি গুগল। যেহেতু পিনটারেস্টের কোনো বড়সড় প্রতিদ্বন্দ্বী বাজারে এখনো নেই, গুগল কিন হয়তো অন্তত এ ঘরানায় দ্বিতীয় স্থান দখল করতেও পারে।

গুগল কিনে সাইন-ইন করতে প্রয়োজন হবে গুগল অ্যাকাউন্ট। শুরুতেই নিজের শখের বিষয়বস্তু অনুযায়ী সংকলন তৈরি করার বাটন পাওয়া যাবে। তবে নিজে গোড়া থেকে শুরু করতে না চাইলে অন্যদের তৈরি সংকলন নিজের অ্যাকাউন্টেও জুড়ে তাতে নিজে লেখা, ছবি ও অন্যান্য তথ্য যোগ করা যাবে। এ ধরনের পাবলিক সংকলনগুলোই হবে সবচেয়ে তথ্যবহুল। পিনটারেস্ট এ ধরনের সংকলনকে পিন বোর্ড বললেও গুগল এটির নাম দিয়েছে ‘কিন’।

পিনটারেস্টের সঙ্গে এটির সবচেয়ে বড় তফাত, বিষয়বস্তু অনুযায়ী কিন শুরু করার পর শুধু ব্যবহারকারীরাই তথ্য খুঁজে সেখানে যুক্ত করবেন না বরং গুগলে মেশিন লার্নিং ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সও নিজ থেকে সম্পর্কিত তথ্য খুঁজে বের করে দেবে। এর ফলে পিনটারেস্টের চেয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যাবে। ফলে ব্যবহারকারীকে হন্যে হয়ে তথ্য খুঁজতে হবে না বা গবেষণার জন্য বিশাল সময়ও ব্যয় করতে হবে না।

সেবাটি মাত্রই চালু করেছে গুগল। এখনো পরীক্ষাধীন এরিয়া ১২০ প্রজেক্টের অন্তর্গত ‘গুগল কিন’। সরাসরি ওয়েবপেজ থেকেই সেটি ব্যবহার করা যাবে। প্লেস্টোরে একটি অ্যানড্রয়েড অ্যাপ থাকলেও সেটি সরাসরি ওয়েবপেজেই নিয়ে যাবে ব্যবহারকারীদের। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই হয়তো অ্যাপটি প্লেস্টোরে যুক্ত করে রাখা হয়েছে। পরে তা ওয়েবঅ্যাপ থেকে পরিপূর্ণ ফিচারধারী অ্যাপে পরিণত করা হবে। যদিও এখনো এটির আইওএস সংস্করণ তৈরি করা হয়নি।

শুধু মেশিন লার্নিং এবং এআই পুঁজি করে গুগল পিনটারেস্টের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবে কি না তা নিয়ে এখনো সন্দেহ কাটেনি। বিশেষ করে অ্যাপের অভাব, সাইট ডিজাইনের দৈন্য নতুন ব্যবহারকারীদের আগ্রহী করে তোলা কষ্টকর হবে বৈকি। গুগলের উচিত হবে আরো সময় নিয়ে ফিচার ও ডিজাইনে পরিপক্বতা এনে তবেই সবার জন্য সেবাটি উন্মুক্ত করা। না হলে পিনটারেস্ট ছেড়ে ব্যবহারকারীরা গুগল কিনে আসতেও চাইবেন না। আর এ ধরনের কাজে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ডিভাইস আইপ্যাডের জন্য সহজে ব্যবহারযোগ্য অ্যাপ বানাতে না পারলে গুগলের আরো আরেকটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হয়তো আঁতুড়ঘরেই ঝরে পড়বে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা