kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

ফেসবুক, গুগল, অ্যামাজন ও টুইটারের কাজে পর্যালোচনা করবে যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ জুলাই, ২০১৯ ১৭:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফেসবুক, গুগল, অ্যামাজন ও টুইটারের কাজে পর্যালোচনা করবে যুক্তরাষ্ট্র

ফেসবুক, টুইটার, গুগল ও অ্যামাজনের মতো অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলোর কাজে পর্যালোচনা করবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ। ভোক্তা বিরোধী ক্রিয়াকলাপগুলোর জন্যই এই ধরনের পর্যালোচনা করবে বলে জানিয়েছে দেশটির বিচার বিভাগ। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার এই তথ্য জানায় তারা।

সংস্থাটি এক ঘোষণায় জানায়, বিচার বিভাগের এন্টিট্রাস্ট বিভাগ এই বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনা করবে। তারা বাজরে প্রতিযোগিতার সমস্যা, উদ্ভাবনে হ্রাস বা অন্যকোনো উপায়ে ভোক্তাদের ক্ষতিগ্রস্থ করছে কিনা তা পরীক্ষা করবে।

বিচার বিভাগের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মাকান দেলারহিম এক বিবৃতিতে জানান, শৃঙ্খলা ছাড়া একটি অর্থপূর্ণ বাজারভিত্তিক প্রতিযোগিতা এবং ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলো ভোক্তাদের চাহিদাগুলোর প্রতি সংবেদনশীল হয়ে কাজ করছে না। এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে অনুসন্ধান করবে এন্টিট্রাস্ট বিভাগ।

মাকান দেলারহিম জানান, পর্যালোচনাটি দায়িত্বের সঙ্গে করা হবে। ভোক্তার অনুসন্ধান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং কিছু খুচরা অনলাইন সেবা সম্পর্কে ভোক্তা, ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান এবং উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে।

যুক্তরাষ্ট্র অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলোকে নিয়ে পর্যালোচনা করতে যাচ্ছে কারণ দেশটির আইন প্রণেতারা এই বিষয়টি নিয়ে অনেক উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তারা অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলোকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণের দাবি জানান। তাদের দাবি, প্ল্যাটফর্মগুলোর ব্যবহারকারীরা ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিয়ে সবসময় ঝুঁকিতে থাকেন।

গত সপ্তাহের এক প্রতিবেদনে দেশটির বিচার বিভাগ জানায়, বিচার বিভাগ ইতোমধ্যেই এন্টিট্রাস্ট অনুসন্ধান শুরু করেছে। তারা গুগলের অভ্যন্তরীণ অনুশীলন অনুসন্ধানের র‌্যাঙ্কিংয়ের এন্টিট্রাস্ট প্রতিবেদন তৈরি করছে।

এদিকে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে ৫০০ কোটি ডলার জরিমানা করেছেন মার্কিন আইন নিয়ন্ত্রকরা।

সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও বিশ্বের বড় বড় প্রযুক্তিক কোম্পানিগুলোকে নিয়ে সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম রক্ষণশীলদের বিরুদ্ধে ভয়ানকভাব পক্ষপাতী।

অ্যামাজন ফেসবুক এবং গুগল এই বিষয়ে কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। তবে টুইটার কোনো ধরনের মন্তব্য করবে না বলে জানিয়েছে।

সূত্র: ইউএসএ টুডে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা