kalerkantho

সোমবার । ২১ অক্টোবর ২০১৯। ৫ কাতির্ক ১৪২৬। ২১ সফর ১৪৪১                       

অনলাইনে ক্রয়ে ঝুঁকি হ্রাসে সিটিজেন্স অ্যাডভাইসের কিছু টিপস

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ মে, ২০১৯ ১৩:৫৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনলাইনে ক্রয়ে ঝুঁকি হ্রাসে সিটিজেন্স অ্যাডভাইসের কিছু টিপস

অনলাইন বাজার বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এবং আরো বেশি হচ্ছে। আমাদের দেশেও অনলাইন স্টোরগুলো বড় পরিসরে ব্যবসা করে যাচ্ছে। যদিও ক্রেতাদের হরহামেশা অভিযোগ পাওয়া যায়। কেউ হয়তো অনলাইনে কোনো পণ্য পছন্দ করে দাম দিয়ে দিয়েছেন, কিন্তু ওটার আর কোনো খবর নেই। কেউ একটা জিনিস অর্ডার করেছেন, কিন্তু হাতে পেলেছেন ভিন্ন কিছু। এমনকি এখানে মোবাইল অর্ডার করে প্যাকেট পেঁয়াজ পাওয়ার মতো প্রতারণার ঘটনাও ঘটছে। কোনো ক্রেতা হয়তো ত্রুটিপূর্ণ পণ্য পেয়েছেন, এখন অর্থ ফেরত চান। কিন্তু এ নিয়ে বিক্রেতা হয়রানি করে চলেছেন। এমন অনেক সমস্যা থেকে বাঁচতে ক্রেতাদের সাবধান হওয়া জরুরি। সমস্যাটা কেবল আমাদেরই নয়। গোটা বিশ্বেই অনলাইন স্টোরের ক্রেতাদের সাবধান হতে নানা পরামর্শ দেয় সে দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

ইংল্যান্ডের নর্থআম্বারল্যান্ডের অধিবাসীদের অনলাইনে কেনা-বেচার ঝুঁকি থেকে বাঁচতে কৌশল বাতলে দিয়েছে সিটিজেন্স অ্যাডভাইস। তারা জানায়, কোনো ব্যক্তিগত উদ্যোক্তার কাছ থেকে পণ্য কেনার সময় ভোক্তা অধিকার বলতে তেমন কিছু পান না ক্রেতারা। তবে কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ক্রয় করলে ক্রেতাদের অধিকার এতটা খর্ব হওয়ার সুযোগ থাকে না। তাই ব্যক্তিগত উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে কিছু কিনতে 'বায়ার বিওয়্যার' নীতি প্রযোজ্য হবে। এ পদ্ধতিতে কোনো পণ্য সম্পর্কে ভুল বয়ান দেয়া যাবে না। আবার কোনো তথ্য উহ্য রাখাও যাবে না। ধরুন, কোনো ল্যাপটপ সম্পর্কে লেখা হয়েছে 'দারুণ কাজ করে', অথচ তাতে ত্রুটি আছে। সেক্ষেত্রে আপনি অর্থ ফেরত চাইতে পারেন। কিন্তু যদি তাতে 'দারুণ কাজ করে' কথাটি না লেখা থাকে এবং ত্রুটিপূর্ণ জিনিস পেয়ে থাকেন তবে অর্থ ফেরত পাবেন না। 

অনলাইনে থেকে কিছু কিনতে হলে ক্রেতাদের পণ্যের সকল তথ্য মনোযোগ দিয়ে পরীক্ষা করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বাড়তি সাবধানতার জন্যে অতীতের রিভিও, স্ক্রিনশট ইত্যাদি দেখে নিলে আরো ভালো। 

অনলাইন থেকে কিছু কেনার জন্যে সিটিজেন্স অ্যাডভাইস নর্থআম্বারল্যান্ডের পরামর্শগুলো দেখে নেয়া যাক। এগুলো দেখে নিলে আমাদের দেশের ক্রেতাদের জন্যেও উপকারি হবে। 

১. পণ্য বিস্তারিত দেখুন। সেখানে ছবি, বর্ণনা, দাম, ডেলিভারির খরচ, যোগাযোগ ইত্যাদি দেখতে হবে। 

২. কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিগত উদ্যোক্তার কাছ থেকে পণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে ক্রেতার অধিকার ভিন্ন হবে। এ বিষয়ে আপনি ওই পণ্যের অতীতের রিভিউগুলো দেখে নিতে পারে। কোনো ক্রেতার অভিযোগ থাকলে আপনি বিক্রেতার বিষয়ে ধারণা পাবেন। 

৩. যে পণ্যটি কিনতে যাচ্ছেন তার স্ক্রিনশটটি রেখে দিন। অর্ডারের পর ভিন্ন কোনো পণ্য আসলে আপনি মিলিয়ে দেখতে পারবেন। আবার অভিযোগও করতে পারবেন। 

৪. পণ্যের দাম পরিশোধের নানা অপশন দেয়া থাকে। ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডে দাম পরিশোধের ক্ষেত্রে সাবধান হতে হবে। ব্যাংকের মাধ্যমে দাম দেয়ার পদ্ধতিকে এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে সিটিজেন্স অ্যাডভাইস। 

৫. কোনো ধরনের সমস্যায় বিক্রতার সাথে যোগাযোগ করুন। প্রয়োজনে তাদের অফিসে যেতে হবে। পণ্য নিয়ে কোনো অভিযোগ থাকলে তা নিয়ে সরাসরি কথা বলুন। 

৬. কোনো ব্যক্তিগত উদ্যোক্তার কাছ থেকে অর্থ ফেরত পাওয়াটা কঠিন। এক্ষেত্রে অবশ্যই পণ্যের বর্ণনা এবং প্রাপ্ত পণ্যের অবস্থার মধ্যে পার্থক্যটা স্পষ্টভাবে তুলে ধরতে হবে। ছবিতে দেখানো পণ্য এবং হাতে পাওয়া পণ্যের মধ্যে পার্থক্য থাকলেও আপনি অর্থ ফেরত চাইতে পারেন। 

সূত্র: নর্থআম্বারল্যান্ড গেজেট 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা