kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

ওইসিডির প্রতিবেদন

বাণিজ্য যুদ্ধ না থামালে প্রবৃদ্ধি কমবে যুক্তরাষ্ট্র-চীনের

বাণিজ্য ডেস্ক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাণিজ্য যুদ্ধ না থামালে প্রবৃদ্ধি কমবে যুক্তরাষ্ট্র-চীনের

যুক্তরাষ্ট্র-চীন বাণিজ্য যুদ্ধ না থামালে আগামী ২০২১ ও ২০২২ সালে দুই দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি গড়ে ০.২-০.৩ শতাংশ করে কমবে। এর নেতিবাচক প্রভাব এরই মধ্যে বিশ্ব প্রবৃদ্ধিতেও পড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (ওইসিডি) তাদের সান্মাষিক প্রতিবেদনে এমন দাবি করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছর বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কমে হবে মাত্র ৩.২ শতাংশ। কারণ এ বছর বাণিজ্যপ্রবাহ প্রায় অর্ধেক কমে হবে ২.১ শতাংশ। ২০১৬ সালের পর থেকে এটাই বিশ্ব অর্থনীতিতে সবচেয়ে ধীরগতি, যা সংস্থার আগের পূর্বাভাস ৩.৩ শতাংশ থেকে কম।

ওইসিডি জানায়, আগামী বছর বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কিছুটা বেড়ে হবে ৩.৪ শতাংশ। তবে এটা সম্ভব হবে যদি যুক্তরাষ্ট্র ও চীন নতুন করে নিজেদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি শুল্ক আরোপ থেকে পিছু হটে। আর তা না হলে বিশ্ব প্রবৃদ্ধি কমার পাশাপাশি নিজেদের নিম্নমুখী ভাগ্যও তারা বদলাতে পারবে না।

ওইসিডির মতে, এ বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি অন্যান্য উন্নত দেশগুলোর চাইতে কিছুটা বেশি হবে। প্রবৃদ্ধি হবে ২.৮ শতাংশ, তবে আগামী বছর কমে হবে ২.৩ শতাংশ। অন্যদিকে ওইসিডির বাইরে থাকা দেশ চীনের এ বছর প্রবৃদ্ধি হবে ৬.২ শতাংশ এবং ২০২০ সালে হবে ৬.০ শতাংশ, যা গত ৩০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে।

বিশ্বজুড়ে বাণিজ্যপ্রবাহ কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে রপ্তানিনির্ভর জাপান। ২০১৯ সালে জাপানের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে মাত্র ০.৭ শতাংশ এবং ২০২০ সালে হবে ০.৬ শতাংশ। বাণিজ্য কমে যাওয়ায় এর মূল্য দিচ্ছে ইউরোজোনভুক্ত দেশগুলোও। এ বছর দেশগুলোর প্রবৃদ্ধি হবে ১.২ শতাংশ। তবে এ বছর ব্রিটেনের প্রবৃদ্ধি বেড়ে হবে ১.২ শতাংশ। রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা