kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

এক দিন পরই উল্টো চিত্র পুঁজিবাজারে

আগের দিন বড় উত্থান হলেও গতকাল শেয়ার বিক্রির চাপ বেড়েছে, এতে সূচক ও লেনদেন কমেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ সক্ষমতা বৃদ্ধিতে এক্সপোজার নীতিমালায় সংশোধনীতে বড় উত্থানের পরদিন আবারও পতন ঘটেছে। আগের দিন শেয়ার কেনার চাপে বড় উত্থান হলেও গতকাল সোমবার শেয়ার বিক্রির চাপ বেড়েছে, এতে পুঁজিবাজারে সূচক ও লেনদেন কমেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমার সঙ্গে লেনদেনও কমেছে। আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকে বড় পতনের পাশাপাশি লেনদেনও হ্রাস পেয়েছে। সোমবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৮৭ কোটি ৭৩ লাখ টাকা আর সূচক কমেছে ৫৯ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৪৩ কোটি ৫৫ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছিল ১০৪ পয়েন্ট।

গত বৃহস্পতিবার পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগসীমা বিষয়ক এক্সপোজারে সংশোধনী এনেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকের (একক ও সমন্বিত) বিনিয়োগ হিসাবায়নের ক্ষেত্রে নন-লিস্টেড কম্পানির অর্থাৎ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন প্রতিষ্ঠানের ইক্যুইটি শেয়ার, নন-কনভার্টেবল প্রেফারেন্স শেয়ার, নন-কনভার্টেবল বন্ড, ডিবেঞ্চার, ওপেন-ইন্ড মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগকে এক্সপোজারের বাইরে রাখা হয়। এই প্রজ্ঞাপন জারির পর রবিবার ডিএসইর সূচক এক শ পয়েন্টেরও বেশি বাড়ে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, আগের দিন শেয়ার কেনার চাপ থাকলেও গতকাল ছিল বিক্রির চাপ। এতে দিনের সূচক কমার মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২৭৬ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ১৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮৩৩ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ১৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ১৯৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৫০টির, দাম কমেছে ২৬২টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০ কম্পানির শেয়ারের দাম।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক। কম্পানিটির লেনদেন হয়েছে ৪০ কোটি টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা এসকে ট্রিমসের লেনদেন হয়েছে ১৯ কোটি ২৭ লাখ টাকা আর তৃতীয় স্থানে থাকা ফরচুন শুজের লেনদেন হয়েছে ১১ কোটি ৩০ লাখ টাকা। অন্যান্য শীর্ষ কম্পানি হচ্ছে ব্যাংক এশিয়া, আইএফআইসি ব্যাংক, ডরিন পাওয়ার, প্রিমিয়ার ব্যাংক, রূপালী লাইফ, মুন্নু সিরামিকস ও এস্কয়ার নিট কম্পোজিট।

মূল্যবৃদ্ধির শীর্ষে রয়েছে এসকে ট্রিমস, আইসিবি ৩য় এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, গ্লোবাল হেভি কেমিক্যাল, ডেফোডিল কম্পিউটার, পপুলার ১ মিউচুয়াল ফান্ড, বে-লিজিং ইন্ডাস্ট্রি, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, রংপুর ফাউন্ড্রি ও ন্যাশনাল টিউবস।

অন্যদিকে দর কমার শীর্ষে রয়েছে আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, ন্যাশনাল ফিডস, রূপালী লাইফ, মাইডাস ফাইন্যান্স, ইউনাইটেড ইনস্যুরেন্স, এফএএস ফাইন্যান্স, প্রাইম ইনস্যুরেন্স, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, তাক্কাফুল ইনস্যুরেন্স ও রূপালী ইনস্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ৬২ লাখ টাকা আর সূচক কমেছে ১২২ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৩২ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছিল ১৮৪ পয়েন্ট। সোমবার লেনদেন হওয়া ২৩৯ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৪৬টির, দাম কমেছে ১৬৬টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭ কম্পানির শেয়ারের দাম।

ন্যাশনাল ফিডের এক প্লান্টে উৎপাদন বন্ধ : মেশিনের রক্ষণাবেক্ষণে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ন্যাশনাল ফিড মিলসের একটি প্লান্টে উৎপাদন বন্ধের কথা জানিয়েছে কম্পানিটি। গতকাল সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের এক বার্তার মাধ্যমে তিনটি প্লান্টের মধ্যে একটির উৎপাদন সাময়িক বন্ধে কথা জানানো হয়।

তথ্যানুযায়ী, প্লান্টটির উৎপাদন অন্তত ৬০ দিন বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকার সম্ভাব্য সময় ১৫ মে থেকে ১৪ জুলাই। প্লান্টটির উৎপাদন বন্ধ থাকায় কম্পানিটির মুনাফায় প্রভাব পড়তে পারে।

চলতি হিসাব বছরের তিন প্রান্তিকে কম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা ০.২৬ টাকা। তবে চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (২০১৮ সালের জুলাই-ডিসেম্বর) প্রতিষ্ঠানটি প্রতি শেয়ারের বিপরীতে ০.৩ টাকা লোকসান হয়। তবে ৯ মাসের হিসাবে কম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে ০.২৩ টাকা মুনাফা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা