kalerkantho

অনিবার্য কারণে আজ শেয়ারবাজার প্রকাশিত হলো না। - সম্পাদক

আইটি-আইটিএসের প্রতিষ্ঠানগুলোর মিলনমেলা

২০ হাজার চাকরি প্রার্থীর অংশগ্রহণ

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



২০ হাজার চাকরি প্রার্থীর অংশগ্রহণ

চাকরি মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

তথ্য-প্রযুক্তি খাতে ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী তরুণ-তরুণী ও প্রতিষ্ঠানগুলোর মিলনমেলার মধ্য দিয়ে শেষ হলো এক দিনের ‘ঢাকা আইটি-আইটিইএস জব ফেয়ার-২০১৯’।

মেলায় বাংলাদেশের প্রথম সারির ৫০টি আইটি কম্পানি ও করপোরেট কম্পানির প্রতিনিধিরা উপস্থিত থেকে চাকরি প্রার্থী তরুণ-তরুণীদের সাক্ষাৎকার নেন এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করেন। চাকরি মেলায় যোগ দিতে ১০ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অনলাইনে নিবন্ধন করেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজারের বেশি তরুণ-তরুণী মেলায় আসে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে আয়োজিত এ চাকরি মেলার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রতিম দেব, এলআইসিটি প্রকল্প পরিচালক রেজাউল করিম, এক্সপ্রেশানস্ লিমিটেডের এমডি রামেন্দু মজুমদার এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য হলো-২০২১ সালের মধ্যে আইটি-আইটিইএস খাতে রপ্তানি আয় পাঁচ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করা এবং ২০ লাখ আইটি পেশাজীবী গড়ে তোলা। সে লক্ষ্যে আমরা দেশজুড়ে সারা বছর নানান ধরনের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। কারণ জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গড়ে তোলার জন্য তরুণ-তরুণীদের প্রশিক্ষিত করে তোলার বিকল্প নেই। প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা আমাদের আইটিশিল্পে কাজ করছে বা কাজ করবে।’

মেলায় আজ ও আগামীর ক্যারিয়ার এবং ক্যারিয়ার থ্রো দ্য লেন্স অব ফেসবুক শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনার আয়োজন করা হয়। প্রতিটি সেশনে আগত দর্শনার্থীদের জন্য ছিল কুইজ ও পুরস্কার। অন্যতম আকর্ষণ ছিল সারা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে অ্যাপ আইডিয়া প্রতিযোগিতা এবং প্রযুক্তি বিষয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা।

সমাপনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল করিম, এলআইসিটি প্রকল্পের পরিচালক মো. রেজাউল করিম এনডিসি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি সেলের পরিচালক ড. আসিফ হোসেন খান, বেসিসের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারহানা এ রহমান, বাক্য এর প্রেসিডেন্ট ওয়াহিদ শরিফ প্রমুখ। মেলার আয়োজনে সহযোগিতায় রয়েছে বেসিস, বাক্য এবং ডিইউসিসি।

 

মন্তব্য