kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

ইপসোর জরিপে তথ্য

আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতিতে উদ্বিগ্ন বিশ্বের ৩৪% মানুষ

৩৩ শতাংশ নাগরিক উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেকারত্ব নিয়ে

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতিতে উদ্বিগ্ন বিশ্বের ৩৪% মানুষ

বিশ্বে মানুষ সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন দুর্নীতি ও দারিদ্র্য নিয়ে। এর পাশাপাশি সামাজিক অসাম্য, বেকারত্ব, সন্ত্রাস বা সংঘাত এবং স্বাস্থ্যসেবাও তাদের উদ্বেগের মধ্যে রয়েছে। বিশ্বের আর্থ-সামাজিক অবস্থা নিয়ে এমন চিত্র উঠে এসেছে প্যারিসভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইপসোর এক জরিপে।

‘বিশ্বকে কী উদ্বিগ্ন করে’ শীর্ষক মাসিক এ অনলাইন জরিপ পরিচালিত হয় ২৮ দেশের ১৬ থেকে ৬৪ বছর বয়সী ২০ হাজার মানুষের মধ্যে। যেসব দেশের নাগরিকরা অংশগ্রহণ করেন তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে—যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, ভারত, ব্রিটেন, ফ্রান্স, কানাডা, তুরস্ক, অস্ট্রেলিয়া, বেলজিয়াম, ব্রাজিল, সুইডেন, সৌদি আরব ইত্যাদি।

জরিপে ২২ দেশের মানুষ মনে করে তাদের দেশ সঠিক পথে নেই। বৈশ্বিকভাবে ৫৮ শতাংশ মানুষ মনে করে তাদের দেশ সঠিক পথে নেই। এতে দেখা যায়, আর্থিক ও রাজনৈতিক দুর্নীতি নিয়ে বিশ্বের ৩৪ শতাংশ মানুষ উদ্বিগ্ন, দারিদ্র্য ও সামাজিক অসমতা নিয়ে উদ্বিগ্ন ৩৪ শতাংশ মানুষ। ৩৩ শতাংশ নাগরিক উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেকারত্ব নিয়ে। সন্ত্রাস ও সংঘাত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ৩১ শতাংশ মানুষ। স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে উদ্বিগ্ন ২৪ শতাংশ মানুষ ও শিক্ষা নিয়ে ২০ শতাংশ।

এ ছাড়া কর নিয়ে উদ্বিগ্ন ১৭ শতাংশ নাগরিক, নৈতিক অবক্ষয়ে উদ্বেগ ১৫ শতাংশের, অভিভাসন নিয়ন্ত্রণে উদ্বিগ্ন ১৩ শতাংশ, পরিবেশের বিরুদ্ধে হুমকি ও সন্ত্রাসের কারণে উদ্বিগ্ন ১২ শতাংশ মানুষ, জলবায়ু পরিবর্তনে উদ্বেগে ১২ শতাংশ, মূল্যস্ফীতিতে উদ্বিগ্ন ১১ শতাংশ, উগ্রবাদের উত্থানে উদ্বিগ্ন ৯ শতাংশ, সামাজিক প্রগ্রাম চালিয়ে যাওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন ৯ শতাংশ, শিশুর স্থূলতা নিয়ে উদ্বিগ্ন ৪ শতাংশ এবং ঋণপ্রাপ্তি নিয়ে উদ্বিগ্ন ২ শতাংশ মানুষ।

প্রতিবেদনে ভারত নিয়ে বলা হয়, ভারতীয়রা সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন সন্ত্রাস, বেকারত্ব ও আর্থিক বা রাজনৈতিক দুর্নীতি নিয়ে। যদিও ৭৩ শতাংশ মানুষ আশাবাদী যে তাদের দেশ সঠিক পথে যাচ্ছে। অন্যদিকে চীন বর্তমানে আর্থিক সংকটে থাকলেও দেশটির প্রতি ১০ জন নাগরিকের মধ্যে কমপক্ষে ৯ জনই মনে করে দেশ সঠিক পথে যাচ্ছে। আশাবাদের এ তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে সৌদি আরব, এরপর আছে ভারত ও মালয়েশিয়া।

মন্তব্য