kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

উত্তরবঙ্গে ইউরিয়া সার কারখানা করতে চায় জেবিআইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোর ক্রমবর্ধমান ইউরিয়া সারের চাহিদা বিবেচনা করে একটি ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছে জাপান ব্যাংক ফর ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন (জেবিআইসি)। নরসিংদী জেলার পলাশে বাস্তবায়নাধীন ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্পের মতোই উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন প্রকল্প হবে এটি।

বাংলাদেশ সফররত জেবিআইসির এক উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনের সঙ্গে বৈঠককালে এ প্রস্তাব দেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ে গতকাল এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে জেবিআইসির নিউ এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার ফাইন্যান্স বিভাগের মহাপরিচালক ফুমিউ সুজুকি, উপদেষ্টা ইয়াসুয়ুকি ইয়ামাতু, এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রধান প্রতিনিধি ইয়াসুকি কমিনামি, বিসিআইসির পরিচালক (বাণিজ্যিক) মো. আমিন উল আহসান এবং ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্পের পরিচালক মো. রাজিউর রহমান মল্লিক উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা জানান, বাংলাদেশে ১৯৯০ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি শিল্প খাতে বিনিয়োগ করে আসছে। এর মধ্যে কাফকো ফার্টিলাইজার প্রকল্প, ডিএপি ফার্টিলাইজার প্রকল্প এবং বিবিয়ানা গ্যাস ফায়ারড পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্পে বিনিয়োগের কথা তাঁরা তুলে ধরেন।

প্রতিনিধিদলের সদস্যরা আরো বলেন, বিনিয়োগের ক্ষেত্রে জেবিআইসি পরিবেশ সংরক্ষণ এবং কার্যকর প্রযুক্তির প্রয়োগের প্রতি অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে। জেবিআইসি সম্প্রতি নরসিংদী জেলার পলাশে গৃহীত ‘ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রজেক্টে (জিপিইউএফপি)’ অর্থায়ন করছে। নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহের নিশ্চয়তা পেলে তাঁরা ভবিষ্যতে বাংলাদেশের শিল্প খাতে আরো বিনিয়োগ করবেন বলে জানান।

শিল্পমন্ত্রী নতুন সার কারখানা স্থাপনের প্রস্তাবকে ইতিবাচক হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোর ক্রমবর্ধমান সারের চাহিদা মেটাতে সরকার উত্তরবঙ্গে একটি ইউরিয়া সার কারখানা স্থাপনের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। বিসিআইসি এরই মধ্যে প্রাক-সমীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে। তিনি সার কারখানা স্থাপনে একটি পরিপূর্ণ প্রস্তাব পেশের জন্য প্রতিনিধিদলকে পরামর্শ দেন।

মন্তব্য