kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

ভারতীয় কাস্টমসের নির্দেশনা

পেট্রাপোল-বেনাপোলে আমদানি-রপ্তানি ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা

বেনাপোল প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেনাপোলের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক থেকে চালান খালাস হওয়ার আগে আনলোড করে শতভাগ পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনা জানাজানির পর গত বৃহস্পতিবার সাময়িকভাবে ভারত থেকে রপ্তানি করা পণ্য বাংলাদেশে প্রবেশে বিঘ্ন ঘটে। শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির কারণে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকে। গতকাল শনিবার আমদানি-রপ্তানি স্বাভাবিক ছিল। তবে এ ব্যাপারে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ এখনো বাংলাদেশ কাস্টমস কর্তৃপক্ষকে আনুষ্ঠানিক কিছু জানায়নি।

ওপারের সিঅ্যান্ডএফ সূত্রে জানা গেছে, গত ৪ এপ্রিল ভারতের চিফ কমিশনার অব কাস্টমসের নির্দেশ দেওয়ার পর গত ১৬ এপ্রিল ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার এইচ এল সঙ্গীত স্বাক্ষরিত পত্রে (সার্কুলার নং-১১(২৬)/১১৩/পিটিপিএল-আরডি/ইমপোর্ট/মিসিলেন্স/২০১৮-১৯/২৭২৫) বলা হয়েছে এখন থেকে ভারত ও বাংলাদেশ থেকে ট্রাকে যেসব পণ্য আমদানি-রপ্তানি হবে তার প্রতিটি চালান পেট্রাপোল বন্দরে আনলোড করে শতভাগ পরীক্ষা সম্পন্ন করে আমদানি-রপ্তানির অনুমতি দেবেন কাস্টমস কর্মকর্তারা। এই নির্দেশনার কারণে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে বড় ধরনের ধস নামার আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা।

ভারতের পেট্রাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, কাস্টমসের এই আদেশে দুই দেশের বাণিজ্য সম্পাদন কঠিন হয়ে পড়বে। আদেশটি এখনো বাস্তবায়ন করেনি কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। বিষয়টির সমাধান না হলে যেকোনো সময় অচল হয়ে পড়বে এ পথে আমদানি-রপ্তানি।

ভারত-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ল্যান্ডপোর্ট সাবকমিটির চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান বলেন, ‘ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমসের আদেশ সম্পর্কে জানার পর বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার/সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনসহ বাণিজ্যসংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। বিষয়টি সমাধান এখনি না করলে এ বন্দর দিয়ে বাণিজ্য মুখ থুবড়ে পড়বে।’

বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার আকরাম হোসেন জানান, এ বিষয়ে ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ আমাদের কোনো চিঠি দেয়নি। ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বিষয়টি শুনেছি। এ নিয়ম চালু হলে বাণিজ্য সম্পাদন ব্যাহত হবে।

মন্তব্য