kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

উদ্যোক্তা

মধ্যপ্রাচ্যের ‘রিটেইল কিং’ ইউসুফ আলী

বাণিজ্য ডেস্ক   

৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মধ্যপ্রাচ্যের ‘রিটেইল কিং’ ইউসুফ আলী

এম এ ইউসুফ আলী, চেয়ারম্যান ও এমডি, লুলু গ্রুপ ইন্টারন্যাশনাল

২০১৯ সালের ফোর্বস ম্যাগাজিনের বিলিয়নেয়ার তালিকায় সংযুক্ত আরব আমিরাতে (ইউএই) অবস্থানরত পাঁচজন ভারতীয়র নাম উঠে এসেছে। তাঁদের অন্যতম মধ্যপ্রাচ্যের ‘রিটেইল কিং’ খ্যাত এম এ ইউসুফ আলী। ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকায় তিনি বিশ্বের ৩৯৪তম ধনী এবং মধ্যপ্রাচ্যে শীর্ষ ভারতীয় ধনী। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৪.৭ বিলিয়ন ডলারের বেশি।

পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত ইউসুফ আলী ভারতের কেরালার থ্রিশার জেলার নাটিকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি লুলু গ্রুপ ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান ও এমডি। এ প্রতিষ্ঠানের অধীনে রয়েছে বিশ্বজুড়ে বিস্তৃত চেইনশপ লুলু হাইপার মার্কেট এবং লুলু ইন্টারন্যাশনাল শপিং মল।

১৯৭৩ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে ইউসুফ আলী কপর্দকহীন অবস্থায় আবুধাবিতে আসেন এবং চাচার বিতরণ ব্যবসায় কাজ শুরু করেন। ১৯৯০ সালে তিনি পণ্য আমদানি ও পাইকারি ব্যবসা শুরু করেন। এরপর গড়ে তোলেন সুপারশপ। লুলু হাইপারমার্কেট নামে তাঁর ব্যবসার যাত্রা শুরু হয়। ক্রমান্বয়ে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে লুলু স্টোর গড়ে তোলেন তিনি।

বর্তমানে লুলু গ্রুপ ইন্টারন্যাশনালের চেইন ব্যবসায় বার্ষিক লেনদেন ৮.১ বিলিয়ন ডলার। এ ছাড়া স্বাস্থ্যসেবায়ও তাঁর ব্যবসা সম্প্রসারিত হয়। মধ্যপ্রাচ্যে বিনিয়োগের পাশাপাশি ইউসুফ আলী জন্মভূমি কেরালায়ও বিপুল বিনিয়োগ করেন। কচিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাঁর বড় অঙ্কের শেয়ার রয়েছে। ২০১৩ সালে তিনি কেরালার কচিতে লুলু আন্তর্জাতিক শপিং মল প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১৬ সালে তিনি লন্ডনের হোয়াইট হলে ১৭০ মিলিয়ন ডলারে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড পুলিশ স্টেশন ভবন ক্রয় করেন।

বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্য ও কেরালায় লুলু গ্রুপ ইন্টারন্যাশনালের চেইন শপে ১৫০টিরও বেশি স্টোরে ৪৮ হাজার কর্মী রয়েছে। প্রবাসে সবচেয়ে বেশি ভারতীয় নিয়োগদাতা ইউসুফ আলী। তিনি বলেন, ‘আমরা মধ্যপ্রাচ্যের পাশাপাশি মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ইরাক, আলজেরিয়া ও মরক্কোতে ব্যবসা সম্প্রসারণ করছি।’

ভারতের সবচেয়ে বড় শপিং মল লুলু গ্রুপের। এ ছাড়া থ্রিশারভিত্তিক ক্যাথলিক সিরিয়ান ব্যাংক, আলুভাভিত্তিক ফেডারেল ব্যাংক, যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইস্ট ইন্ডিয়া কম্পানিতে তাঁর বিনিয়োগ রয়েছে।

মানুষের দৈনন্দিন জীবনের অপরিহার্য সব পণ্য নিয়ে লুলু গ্রুপের খুচরা ব্যবসা। এর কারণ কী এমন প্রশ্নের জবাবে ইউসুফ আলী বলেন, ‘যদি একটি অর্থনৈতিক সংকট হয় এবং মানুষের খাবারের প্রয়োজন হয়, সে কারণেই আমরা বিলাস পণ্যের ব্যবসায় যাচ্ছি না, মানুষের মৌলিক চাহিদা মেটানোর পণ্য নিয়ে ব্যবসা করছি।’

তিনি বলেন, ‘বিজ্ঞানভিত্তিক কৌশল নিয়ে কাজ করে আমাদের কম্পানি। আমরা সেখানেই স্টোর খুলি, যেখানে চাহিদা আছে। আবার স্টোরগুলো একটি আরেকটির কার্বন কপি নয়, বরং সেসব পণ্যেরই জোগান দেওয়া হয়, যা ওই অঞ্চলের মানুষের প্রয়োজন ও চাহিদায় রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা তিনটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে ব্যবসা করি, যা আমাদের সাফল্য এনে দিয়েছে। তা হচ্ছে গুণগত মান, মূল্য ও সেবা। যেখানেই আমরা ব্যবসা করি অভিজাত এলাকা কিংবা সাধারণ মানুষের এলাকা—আমাদের পণ্যের দাম, মান ও সেবায় হেরফের হয় না।’

এম এ ইউসুফ আলী বলেন, ‘আমার ব্যবসা জীবনের অনুপ্রেরণা মুহাম্মদ (স.), প্রথম জীবনে তিনি ছিলেন একজন ব্যবসায়ী। তিনিই আমাকে শিখিয়েছেন কিভাবে ব্যবসা করতে হবে। কোনো প্রতারণা নয়। আমি সবার কাছে আস্থাভাজন থাকতে চাই এবং নিজের কর্মে সৎ থাকতে চাই। জি বিজনেস, নিউজ মিনিট, উইকিপিডিয়া, অ্যারাবিয়ান বিজনেস।

মন্তব্য