kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

‘পুঁজিবাজারে ফড়িয়া ব্যবসায়ী চাই না’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৩১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিনিয়োগ শিক্ষা কার্যক্রমের গুরুত্ব তুলে ধরে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, ‘আমরা ফড়িয়া ব্যবসায়ী চাই না, ফড়িয়া বিনিয়োগকারী ও পুঁজি সংগ্রহকারীও চাই না। আমরা চাই দক্ষ বিনিয়োগকারী, দক্ষ পুঁজি সংগ্রহকারী এবং দক্ষ ব্যবসায়ী, যারা সুশাসনে বিশ্বাস করবে। পুঁজিবাজারে জ্ঞাননির্ভর বিনিয়োগের বিকল্প নেই।’

গতকাল শনিবার নগরীর কাজীর দেউড়ির ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে বিনিয়োগকারী ও উদ্যোক্তা কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিএসইসির কমিশনার প্রফেসর মো. হেলাল উদ্দিন নিজামী ও ড. স্বপন কুমার বালা। বিএসইসি ‘দেশব্যাপী বিনিয়োগ শিক্ষা কার্যক্রম’-এর অংশ হিসেবে এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বুঝে শুনে বিনিয়োগের পরিবর্তে জেনে বুঝে বিনিয়োগের পরামর্শ দিয়ে বলেন, ‘বিনিয়োগকারীরা নিজের পুঁজি কিংবা ধার করে হলেও সর্বস্ব দিয়ে পুঁজিবাজারে কিছু মুনাফা লাভের আশায় একটা মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে আসেন। কিন্তু আমাদের কাছ থেকে যাঁরা বিনিয়োগ নিতে চান তাঁদের উদ্দেশ্য কতটা মহৎ সেটা যাচাই-বাছাইয়ের দায়িত্ব নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বিএসইসির।’

বিএসইসি চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন বলেন, ‘পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের প্রধান হাতিয়ার জ্ঞান। জেনে বুঝে বিনিয়োগ করতে হবে, জেনে শুনে নয়। কখন বিনিয়োগ করতে হবে, কোন শেয়ারে বিনিয়োগ করতে হবে এবং কখন এক্সিট করতে হবে তা জানাই হচ্ছে বিনিয়োগ শিক্ষা। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত ও শ্রীলঙ্কায় পাঠ্যপুস্তকে বিনিয়োগ শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আমরাও পাঠ্যপুস্তকে বিনিয়োগ শিক্ষাকে অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছি। এ জন্য সরকারের কাছ থেকেও ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেছে।’

প্রফেসর মো. হেলাল উদ্দিন নিজামী বলেন, ‘বিনিয়োগ শিক্ষা কার্যক্রমের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের সচেতন করতে হবে।’

 

মন্তব্য