kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

চ্যানেল আই-বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম

মার্কেটিং সুপারস্টার সম্মাননা পেলেন সৈয়দ আলমগীর

বাণিজ্য ডেস্ক   

৩১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মার্কেটিং সুপারস্টার সম্মাননা পেলেন সৈয়দ আলমগীর

চ্যানেল আই-বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম মার্কেটিং সুপারস্টার অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হলো মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ সৈয়দ আলমগীরকে। পদক তুলে দেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ও চ্যানেল আইয়ের এমডি ফরিদুর রেজা সাগর

প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত চ্যানেল আই-বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম মার্কেটিং সুপারস্টার অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হলো মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ সৈয়দ আলমগীরকে। তিনি এসিআই কনজ্যুমার ব্র্যান্ডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। গত বৃহস্পতিবার ঢাকার ওয়েস্টিন হোটেলে এক অনুষ্ঠানে তাঁর হাতে এই বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। পদক তুলে দেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর।

এ ছাড়া সৈয়দ আলমগীরকে বিশেষ গাউন, ক্যাপ, সার্টিফিকেট এবং ফুলের তোড়া প্রদান করেন যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের পরিচালক সৈয়দ ফারহাত আনোয়ার, টেলিকম বিশেষজ্ঞ মেহবুব চৌধুরী, চ্যানেল আইয়ের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ এবং বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরিফুল ইসলাম।

চ্যানেল আই-বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম দ্য মার্কেটিং সুপারস্টার অ্যাওয়ার্ডের জুরিবোর্ডের সদস্যদের মনোনয়নে এ বছরের অ্যাওয়ার্ডের জন্য নির্বাচিত হন সৈয়দ আলমগীর। তিনি ১৯৭৬ সালে তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন ফার্মাসিউটিক্যাল কম্পানি তৎকালীন মে অ্যান্ড বেকার প্রতিষ্ঠানে, যা এখন সানোফি বাংলাদেশ নামে পরিচালিত। সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনি দায়িত্ব পালন করেন বেশ কয়েকটি কম্পানির গুরুত্বপূর্ণ পদে। সর্বশেষ ১৯৯৮ সালে তিনি এসিআইয়ের সঙ্গে যাত্রা শুরু করেন এবং দীর্ঘ দুই দশকে তিনি প্রতিষ্ঠানটিকে দেশের শীর্ষস্থানীয় ভোক্তা পণ্য উৎপাদনকারী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন। তাঁর আবিষ্কৃত ১০০ ভাগ হালাল সাবানের ভাবনা দেশের এমনকি বিশ্বের মার্কেটিং গোষ্ঠীকে তাক লাগিয়ে দেয়। মার্কেটিং অধ্যাপক ফিলিপ কটলার তাঁর প্রিন্সিপালস অফ মার্কেটিং বইয়ে আলমগীরের হালাল সাবানের কৌশলকে কেইস স্টাডি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে সৈয়দ আলমগীর বলেন, ‘এই প্রথম বাংলাদেশে মার্কেটিংকে গুরুত্ব দিয়ে আমরা যাঁরা পণ্যের পেছনে কাজ করি তাঁদের সামনে এনে পরিচয় করে দেওয়ার প্রয়াস নেওয়া হয়েছে। মার্কেটিং একটি ব্যবসার প্রাণকেন্দ্র। মার্কেটিংয়ের সফলতা ছাড়া কোনো ব্যবসা টিকে থাকতে পারে না।’ তিনি বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্প একটি দেশের প্রাণ। মার্কেটিংয়ের সফলতা শুধু আর্থিক নয় বরং একটি দেশকে ব্র্যান্ড হিসেবে অনেক দূর এগিয়ে নিতে সাহায্য করে।

 

মন্তব্য