kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

ফেসবুক অফলাইন

অনলাইনে মজার মজার গল্প, বুদ্ধিদীপ্ত কৌতুক, সাম্প্রতিক বিষয়-আশয় নিয়ে নিয়মিত স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন পাঠক-লেখকরা। সেগুলোই সংগ্রহ করলেন ইমন মণ্ডল

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



ফেসবুক অফলাইন

বিক্রেতা

প্রাইভেট চাকরি ছেড়ে কানাডায় গিয়ে একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে সেলসম্যানের চাকরি নেওয়া এক বাঙালি ডাক্তারের গল্প।

চাকরির প্রথম দিন তিনি খুব মনোযোগ দিয়ে কাজ করলেন। সন্ধ্যায় ছুটির সময় বস তাঁকে জিজ্ঞেস করলেন, আজ তুমি কজন ক্রেতার কাছে পণ্য বিক্রি করেছ?

তিনি উত্তর দিলেন, আজ সারা দিনে একজন ক্রেতার কাছে বিক্রি করেছি।

মালিক অবাক হয়ে বললেন, মাত্র একজন? এখানকার প্রত্যেক সেলসম্যান দিনে ২০-৩০ জন ক্রেতার কাছে পণ্য বিক্রি করে। তা তুমি কত ডলারের পণ্য বিক্রি করেছ?

তিনি বললেন, ৯৮,৭৬,৫৪৩ ডলার।

বস অবাক হয়ে বললেন, কী! এটা তুমি কিভাবে করলে?

তিনি বললেন, ওই ক্রেতার কাছে প্রথমে মাছ ধরার একটি ছোট্ট বড়শি বিক্রি করেছি। তারপর একটি বড় ও একটি মাঝারি বড়শি। এরপর একটি বড় ফিশিং রড আর কয়েকটি ফিশিং গিয়ার বিক্রি করলাম। তারপর আমি তাঁকে প্রশ্ন করলাম, আপনি কোথায় মাছ ধরবেন? বললেন, তিনি সমুদ্রতীরবর্তী এলাকায় মাছ ধরবেন। তখন আমি তাঁকে বললাম, তাহলে তো আপনার একটি নৌকার প্রয়োজন হবে। আমি তাঁকে নিচতলায় নৌকার ডিপার্টমেন্টে নিয়ে গেলাম। ভদ্রলোক সেখান থেকে দুই ইঞ্জিনের নৌকা কিনলেন। এরপর আমি তাঁকে বললাম, এই নৌকা তো আপনার ভক্সওয়াগনে ধরবে না, একটা বড় গাড়ির প্রয়োজন! আমি ভদ্রলোককে অটোমোবাইল ডিপার্টমেন্টে নিয়ে গেলাম। আমার পরামর্শে তিনি নৌকাটি বহন করার উপযোগী একটি গাড়ি বুকিং দিলেন। তারপর আমি তাঁকে জিজ্ঞেস করলাম, মাছ ধরার সময় কোথায় থাকবেন? তিনি জানালেন, এ বিষয়ে কোনো পরিকল্পনা করেননি। আমি তাঁকে ক্যাম্পিং ডিপার্টমেন্টে নিয়ে গেলাম। তিনি আমার পরামর্শমতো ছয়জন লোক ঘুমানোর উপযুক্ত একটি তাঁবু কিনলেন। সব শেষে আমি তাঁকে বোঝালাম, আপনি যখন এত কিছু কিনেছেন, এখন কিছু খাবার ও পানীয় কিনে নেওয়া উচিত। ভদ্রলোক ২০০ ডলার দিয়ে কিছু মুদিদ্রব্য ও বিয়ার কিনলেন।

এবার স্টোরের মালিক একটু দমে গিয়ে বিস্ময়ের সঙ্গে বলে উঠলেন, যে লোকটা একটি বড়শি কিনতে এসেছিল, তুমি তাঁকে দিয়ে এত কিছু কেনালে!

ডাক্তার ভদ্রলোক বললেন, না স্যার, ওই ভদ্রলোক শুধু মাথা ব্যথার ওষুধ কিনতে এসেছিলেন। আমি তাঁকে বোঝালাম, মাছ ধরলে মাথা ব্যথার উপশম হবে।

স্টোরের মালিক এবার জানতে চাইলেন, এর আগে তুমি কী কাজ করতে?

তিনি বললেন, আমি বাংলাদেশে একটি প্রাইভেট হাসপাতালের ডাক্তার ছিলাম। দরকার না হলেও রোগীদের নানা ধরনের প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা, ইকো, ইসিজি, সিটি স্ক্যান, এক্স-রে, এমআরআই ইত্যাদি পরীক্ষা করানোর পরামর্শ দিতাম।

স্টোরের মালিক বললেন, তুমি এখন থেকে আমার চেয়ারেই বসবে, আর আমি তোমার দেশে গিয়ে প্রাইভেট হাসপাতালে ট্রেনিং নিয়ে আসব।

মাহমুদ হাসান আরিফ

 

রোগী-ডাক্তার

রোগী : ডাক্তার সাহেব, আমার স্বামী রাতে ঘুমের মধ্যে কথা বলে! ওষুধ কী এই রোগের?

ডাক্তার : তাকে জেগে থাকতে কথা বলার সুযোগ দিন!

রুবেল আজমিন

মশা

একসঙ্গে দুটি মশা পায়ে এসে বসল। মারলাম না, তাড়িয়ে দিলাম। বিয়ের মৌসুম চলছে তো, হয়তো কোনো নবদম্পতি আশীর্বাদ নিতে এসেছিল আমার।

বাবা মঈন

 

সান্ত্বনা

আজকাল কারো বাইকের পেছনে সুন্দরী কেউ থাকলে, পাঠাও/উবার/ও ভাই ভেবে নিজেকে সান্ত্বনা দিই...।

রিশাদ হাসান

 

আগে-এখন

আগে নৌকার মাঝিরা নৌকা ছাড়ার আগে আকাশের দিকে তাকিয়ে দোয়া করত। আর এখন কাজটা ঢাকা শহরে বাইকাররা করে!

সাব্বির রহমান বিপ্লব

 

পকেট খরচ

আম্মুর কাছে পকেট খরচ চাইছিলাম, আম্মু বলল, কাল থেকে লুঙ্গি পরো, তাইলে আর পকেট খরচ লাগবে না।

শাহবাজ এক্স বাঁধন

 

গালি

গিরগিটিসমাজে প্রচলিত গালি, ‘মানুষের মতো এত ঘন ঘন প্রফাইল পিকচার পাল্টাইস না।’

সন্দীপন বসু

 

চার্জ

মোবাইলে কোনো value added service চালু করতে গেলে সিম কম্পানি বলে, চার্জ প্রযোজ্য। ভালো কথা। আপনারা চার্জ নেন, ফুল চার্জ দেওয়া আছে। টাকা কাটেন কেন?

অনামিকা মণ্ডল

ঘুষ

ঘুষের টাকার মধ্যে একটা জাল নোট পেয়ে ঘুষখোর স্ত্রীর কাছে দুঃখ করে বলল, ‘দেশটা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।’

শামিম জাহিদ

 

ল্যাংড়া আম

 

 

বোকা পিচ্চি

সেলুনে এক ভদ্রলোক চুল কাটাচ্ছিলেন। নাপিত তাঁকে ফিসফিস করে বলল, ‘ওই যে পিচ্চি পোলাডা আছে, ওইডার মতোন বোকা আর নাই!’

ব্যাপারটা প্রমাণ করতে ভদ্রলোকের সামনেই নাপিত পকেট থেকে একটা পাঁচ টাকার নোট আর একটা এক টাকার কয়েন বের করে ছেলেটিকে ডাকল, ‘ওই পিচ্চি, কোনডা নিবি?’

ছেলেটি এক টাকার কয়েন বেছে নিল।

নাপিত হাসতে হাসতে ভদ্রলোককে বলল, ‘কইছিলাম না! বোকারা কখনোই শেখে না!’

চুল কাটা শেষে ভদ্রলোক সেলুন থেকে বের হয়ে দেখলেন, ছেলেটা আইসক্রিম খাচ্ছে। তাকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘এই পোলা! তুই প্রতিদিন পাঁচ টাকা থুইয়া এক টাকার কয়েন নিস কেন?’

ছেলেটা আইসক্রিম খেতে খেতে জবাব দিল, ‘কারণ, যেইদিন আমি পাঁচ টেকা নিমু, সেইদিনই এই খেলা শেষ হইয়া যাইব!’

মেহেদী হাসান আফগানি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা