kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

নিম্নমানের জন্য আরো ২৫ পণ্যের লাইসেন্স স্থগিত

দুটি বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিম্নমানের জন্য আরো ২৫ পণ্যের লাইসেন্স স্থগিত

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় নিম্নমান প্রতীয়মান হওয়া ৫২টি পণ্যের উৎপাদনের জন্য দেওয়া ২৭টি লাইসেন্সের মধ্যে দুটি বাতিল ও ২৫টি স্থগিত করা হয়েছে। এর আগে সাতটির লাইসেন্স বাতিল ও ১৮টি প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স স্থগিতের কথা জানিয়েছিল বিএসটিআই। এর মধ্য দিয়ে বিএসটিআই ৫২টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিল।

গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। পিওর হাটহাজারী মরিচের গুঁড়া এবং কিরণের লাচ্ছা সেমাইয়ের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। যেসব পণ্যের লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে সেগুলো হলো—বাঘাবাড়ির স্পেশাল ঘি, নিশিতা সুজি, মঞ্জিল হলুদের গুঁড়া, গ্রিন ল্যান্ডস মধু, শান হলুদের গুঁড়া, মধুমতির আয়োডিনযুক্ত লবণ, জেদ্দা লাচ্ছা সেমাই, নূর স্পেশাল আয়োডিনযুক্ত লবণ, অমৃত লাচ্ছা সেমাই, দাদা সুপার আয়োডিনযুক্ত লবণ, তিন তীর আয়োডিনযুক্ত লবণ, মদিনার আয়োডিনযুক্ত লবণ, স্টারশিপ আয়োডিনযুক্ত লবণ, তাজ আয়োডিনযুক্ত লবণ, ডলফিন মরিচের গুঁড়া, ডলফিন হলুদের গুঁড়া, সূর্য মরিচের গুঁড়া, মধুফুল লাচ্ছা সেমাই, মিঠাই লাচ্ছা সেমাই, কে আর ফুডের ময়দা, ওয়েল ফুডের লাচ্ছা সেমাই, রূপসা ফারমেন্টেড মিল্ক, মেহেদী বিস্কুট, মিষ্টি মেলা লাচ্ছা সেমাই, মক্কা চানাচুর ও মধুবন লাচ্ছা সেমাই।

এতে বলা হয়েছে, প্রথম ধাপে ১৮টি পণ্য উৎপাদনের লাইসেন্স স্থগিত এবং সাতটির লাইসেন্স বাতিল করা হয়। দ্বিতীয় পর্যায়ে বাকি ২৭টি পণ্যের লাইসেন্সও স্থগিত করা হলো। যদিও প্রথম অবস্থায় শুধু উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। এরপর এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার তাগিদ দেয়। এর পরিপ্রেক্ষিতেই সব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল বিএসটিআই।

বিএসটিআই বলছে, পণ্যগুলোর মানোন্নয়ন করে পুনঃ অনুমোদন ছাড়া সংশ্লিষ্ট উৎপাদনকারী, সরবরাহকারী, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের ওই পণ্য বিক্রি, বিতরণ, সংরক্ষণ ও বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন প্রচার থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করা হলো। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট উৎপাদনকারীকে বিক্রীত মালামাল বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ভোক্তারা এসব পণ্য কেনা থেকে যাতে বিরত থাকে সে বিষয়েও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা