kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশেও সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা চলছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলাদেশেও সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা চলছে

গণভবন থেকে গতকাল ভিডিও কনফারেন্সে হুইসেল বাজিয়ে ও সবুজ পতাকা নাড়িয়ে বনলতা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি : বাসস

শ্রীলঙ্কার মতো বাংলাদেশেও জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হামলা চালানোর চেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করে দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, সারা দেশে প্রতিটি মসজিদে জুমার নামাজের খুতবায় জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে

এবং ইসলাম যে শান্তির ধর্ম সে কথাটা ভালোভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা-রাজশাহী রুটে প্রথম বিরতিহীন আন্ত নগর ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে গত রবিবার ইস্টার সানডের দিনে শ্রীলঙ্কার রাজধানীর কয়েকটি গির্জা ও হোটেলে একযোগে বোমা হামলার প্রসঙ্গ তোলেন। ওই হামলায় এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা সাড়ে তিন শ ছাড়িয়ে গেছে। নিহতদের মধ্যে শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই শেখ ফজলুল করিম সেলিমের আট বছর বয়সী নাতি জায়ান চৌধুরীও রয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন জায়ানের বাবাও।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে জঙ্গিবাদ শুধু বাংলাদেশে নয়, বিশ্বব্যাপী একটা সমস্যা। মাত্র কয়েক দিন আগেই শ্রীলঙ্কায় যে ঘটনা ঘটল সেখানেও আমরা বাংলাদেশের কয়েকজনকে হারিয়েছি। সবচেয়ে দুর্ভাগ্য, অনেক শিশু সেখানে মারা যায়। সেখানে বাংলাদেশের শিশু জায়ানকে আমাদের হারাতে হয়েছে এই জঙ্গি-সন্ত্রাসের কারণে, এই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশেও এই ঘটনা ঘটানোর অনেক চেষ্টা চলছে। তবে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করে যাচ্ছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি দেশবাসীকে আহ্বান জানাব, এই ধরনের সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের সঙ্গে যারা সম্পৃক্ত থাকবে, কে কোথায় এই ধরনের সন্ত্রাসী-জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে লিপ্ত সেটা শুধু আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা নয়, দেশবাসীকেও সতর্ক থাকতে হবে, খুঁজে বের করতে হবে এবং সঙ্গে সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাকে জানাতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘কারণ আমরা দেশে শান্তি চাই। শান্তিই দিতে পারে উন্নতি। শান্তিপূর্ণ পরিবেশ হলেই দেশ এগিয়ে যাবে।’

আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের কথা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ‘রেলের নতুন নতুন বগি কিনেছি, সেগুলো আগুন দিয়ে পুড়িয়েছে। বাস কিনেছি, সেগুলো পুড়িয়েছে। তা ছাড়া প্রাইভেট গাড়ি, বাস, ট্রাক, লঞ্চ এমন কিছু নেই যা অগ্নিসন্ত্রাসের কবলে ধ্বংস হয়নি।’ তিনি বলেন, ‘সাথে সাথে সাধারণ মানুষের জীবন। ছোট শিশু, নারী, পুরুষ। বাবা দেখেছে চোখের সামনে ছেলে পুড়ে যাচ্ছে, স্ত্রী দেখেছে চোখের সামনে স্বামী পুড়ে যাচ্ছে, মা দেখেছে সন্তান বা কন্যা পুড়ে যাচ্ছে—এই রকম ভয়াবহ চিত্র আমরা বাংলাদেশে দেখেছি। আমরা চাই না এ জাতীয় ঘটনা বাংলাদেশে ঘটুক।’

ইসলামকে শান্তির ধর্ম উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা ইসলাম ধর্মের নাম নিয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ চালায় তারা এই পবিত্র ধর্মকে কলুষিত করছে। বিশ্বব্যাপী এই পবিত্র ধর্মের বদনাম করছে। তারা আসলে ইসলাম ধর্মের প্রচণ্ড ক্ষতি করে দিচ্ছে।’

মসজিদে মসজিদে জুমার খুতবায় জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করার আহ্বানের পাশাপাশি অভিভাবক, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, সব ধর্মের শিক্ষাগুরুদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

রেলের উন্নয়নের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সারা দেশে রেল নেটওয়ার্ক চালু করতে চাই। রাজধানীর সাথে যোগাযোগটা আরো উন্নত করে দিতে চাই।’

ভিডিও কনফারেন্সে গণভবন প্রান্তের মঞ্চে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহিরয়ার আলম, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহেমদ পলক উপস্থিত ছিলেন। অন্য প্রান্তে রাজশাহীতে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন ও রাজশাহীর মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী হুইসেল বাজিয়ে এবং সবুজ পতাকা উড়িয়ে ট্রেনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। রেলের পশ্চিমাঞ্চল মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খোন্দকার শহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, আগামীকাল শনিবার থেকে বনলতা এক্সপ্রেস ঢাকা-রাজশাহী রুটে নিয়মিত চলাচল করবে।

বনলতা ট্রেনটি উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সাতটি উন্নয়ন প্রকল্পেরও উদ্বোধন করেন। সূত্র : বাসস।

 

 

মন্তব্য