kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অমিতাভকে সাথে নিয়ে ঋতুস্রাব বিষয়ে কথা বললেন নাতনি নভ্যা

বিনোদন প্রতিবেদক   

৬ অক্টোবর, ২০২২ ১৮:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অমিতাভকে সাথে নিয়ে ঋতুস্রাব বিষয়ে কথা বললেন নাতনি নভ্যা

অমিতাভ ও নাতনি নভ্যা

বলিউডের অন্যতম আলোচিত স্টারকিড নভ্যা নভেলি নন্দা। বচ্চন পরিবারের এই মেয়ে অভিনয় নয়, ব্যবসাতেই মন দিয়েছেন। অমিতাভকন্যা শ্বেতা নন্দা বচ্চন এবং নিখিল নন্দার মেয়ে নভ্যা। অল্প বয়সেই নভ্যা একজন সফল উদ্যোক্তা, পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন নভ্যা।

বিজ্ঞাপন

 

সম্প্রতি প্রকাশ্য সভায় দাদু অমিতাভ বচ্চনের উপস্থিতিতে ঋতুস্রাব বা মাসিক নিয়ে কথা বললেন নভ্যা। তাঁর কথায়, বাড়িতে খুব স্বস্তিদায়ক পরিবেশে বড় হয়েছেন তিনি, তাঁর পরিবারে পিরিয়ড নিয়ে আলোচনা কোনো ট্যাবু নয়।

সম্প্রতি স্বাস্থ্য সচেতনতা নিয়ে একটি আলোচনাচক্রে যোগ দিয়েছিলেন অমিতাভ, দিয়া মির্জা, রাশমিকা মন্দনা ও নভ্য়া। সেখানে নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনতার বিষয়টি নিয়েও বিশদ আলোচনা হয়। অভিনেত্রী রাশমিকা মন্দনা বলেন, বয়ঃসন্ধিকালে ছেলে-মেয়েরা ট্যাবু বিষয়গুলো নিয়ে বাবা-মার সঙ্গে খোলাখুলি আলোচনা করতে অস্বস্তিবোধ করে। নায়িকার সঙ্গে সহমত পোষণ করেন অমিতাভ, যোগ করেন তাঁর মতে ঋতুস্রাব হলো ‘পুনর্নির্মাণের চিহ্ন’।

দাদুর সঙ্গে সুর মিলিয়ে নভ্যা জানান, ‘যেমনটা উনি বললেন, এটা জীবনের একটা চিহ্ন। এটা এমন কোনো বিষয় নয় যেটা নিয়ে মেয়েদের লজ্জিত হওয়ার প্রয়োজন রয়েছেন বা বিষয়টা এড়িয়ে যাওয়ার দরকার রয়েছে। ঋতুস্রাব বিষয়টা দীর্ঘদিন ধরে একটা ট্যাবু বলে গণ্য হয়ে আসছে। কিন্তু সময় পাল্টাচ্ছে। ’ 

তিনি বলেন, ‘আজ এই মঞ্চে আমি বসে রয়েছি আমার দাদুর সঙ্গে এবং পিরিয়ডস নিয়ে কথা বলছি, এটাই তো প্রগতির একটা চিহ্ন। আজ এই মুক্তমঞ্চে বসে রয়েছি আমরা, এত মানুষ আমাদের দেখছে, আর আমরা খোলাখুলি ঋতুস্রাব নিয়ে আলোচনা করছি―এটা প্রমাণ করে আমি অনেকটা পথ এগিয়ে গেছি, একজন নারী হিসেবে শুরু নয়, আমাদের দেশও প্রগতিশীল হয়েছে। ’

ঋতুস্রাব নিয়ে আলোচনা কোনো ট্যাবু নয়, এই ধারণা ভাঙতে শুধু মেয়েরা নয় ছেলেরাও এগিয়ে আসছে, মত নভ্যার। তিনি বলেন, ‘আমি সৌভাগ্যবান যে আমি এমন বাড়িতে বড় হয়েছি যেখানে ঋতুস্রাব নিয়ে কথা বলাটা খুব সহজ ছিল। ’

হিন্দুস্তান টাইমস



সাতদিনের সেরা