kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

অনন্তকে আমার কথা কেউ ভুলভাবে বুঝিয়েছে : মিশা

বিনোদন প্রতিবেদক   

১৫ আগস্ট, ২০২২ ১৩:২৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনন্তকে আমার কথা কেউ ভুলভাবে বুঝিয়েছে : মিশা

মিশা ও অনন্ত

‘আমার কথা ভুলভাবে বুঝেছেন অনন্ত জলিল কিংবা কেউ ভুলভাবে তাঁকে ব্যাখা করেছেন। আমি আসলে অনন্ত জলিলের সমালোচনা করিনি। করেছিলাম বাজেটের। ’

অনন্ত জলিলের বক্তব্যের পর এভাবেই প্রতিক্রিয়া জানালেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় খল অভিনেতা মিশা সওদাগর।

বিজ্ঞাপন

এর আগে শত কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ‘দিন দ্য ডে’-এর মাধ্যমে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কোনো লাভ হয়নি বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। আর এ কারণেই অনন্ত জলিলের তোপের মুখে পড়েন মিশা। মিশার সমালোচনার জবাবে অনন্ত বলেন, চলচ্চিত্রের উন্নয়নে মিশার কোনো অবদানই নেই। তিনি আমার ছবি নিয়ে বলার কে?’

শনিবার রাজধানীর ব্লকবাস্টার সিনেমাসে ছবি দেখতে এসে সাংবাদিকদের সামনে অনন্ত জলিল বলেন, ‘মিশা সওদাগর একজন পুরোনো আর্টিস্ট। তিনি যেটা ভেবেছেন, সেটা বলেছেন। তিনি প্রযোজক না, ক্রিয়েটিভ পার্সনও না। তার দ্বারা সিনেমার উন্নতি হয় না। যার কোনো ধরনের ইনভেস্টমেন্ট নেই, যার নতুন ক্রিয়েটিভিটি নেই তার দ্বারা চলচ্চিত্রের উন্নতি হবে কীভাবে- প্রশ্ন রাখেন অনন্ত?’

অনন্ত জলিলের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মিশাও চুপ থাকেননি। কালের কণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে মিশা বলেন, ‘অনন্ত জলিল আমার কথা ভুলভাবে বুঝেছেন কিংবা ভুলভাবে ব্যাখা করেছেন। হতে পারে কেউ আমার কথার ভুল ব্যাখ্যা তাকে দিয়েছে। আমি আসলে অনন্ত জলিলের সমালোচনা করিনি। করেছিলাম বাজেটের।

মিশা বলেন, ‘১২০ কোটি টাকা বাজেট নিয়ে। তো বাজেট দিয়ে একটা ছবি না বানিয়ে যদি এই বাজেট দিয়ে শাহরুখ খানের রেড চিলির মতো একটা স্টুডিও বানিয়ে দিতেন তাহলে সেই স্টুডিও থেকে শাকিব খান, শুভ, বাপ্পি, সাইমন ও সিয়ামদের ছবিও বানানো যেতো।   আমরা সবার ছবির সেখানে কাজ হতো। অনন্ত যেহেতু শখে ছবি করেন তিনিও বছরে  একটা করে ভালো ছবি বানাতেন। আমার কথার মূল উদ্দেশ্য ছিলো এটাই।

মিশা চলচ্চিত্রে নিজের অবদান প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার অবদান না থাকলে তো আর তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেতাম না। আমি নিজেও ছবি প্রযোজনা করেছি। ছবিটি ততটা ব্যবসা করেনি। একজন মানুষ হিসেবে অনন্ত দারুণ। ভালো ব্যবসায়ী। একজন ভালো প্রযোজক। মানুষের পাশে দাঁড়ানোর দারুণ একটা গুণ আছে তার। কিন্তু মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ফলাও করে বলাটা হয়তো উচিত নয়। ’

এই অভিনেতা বলেন, ‘শুধু অনন্তই কিন্তু দাঁড়ান না, আরও অনেকে আছেন। তারা কিন্তু কখনও এগুলো সামনে আনেন না। তাদের মধ্যে আছেন আলমগীর ভাই, উনি কত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা জানলে সবাই অবাক হবেন। কিন্তু সেটা উনি সামনে আনতে চান না। ডিপজল সাহেব কি পরিমাণ হেল্প করেন ধারণা আছে কারও? আরও অনেকেই আছেন এই তালিকায়। ’ 



সাতদিনের সেরা