kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১২ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৩০ সফর ১৪৪৪

‘পাশা ভাইয়ের সঙ্গে শিরিনের প্রেম নয়, একটা মিষ্টি সম্পর্ক রয়েছে’

বিনোদন প্রতিবেদক   

৮ আগস্ট, ২০২২ ২০:০৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘পাশা ভাইয়ের সঙ্গে শিরিনের প্রেম নয়, একটা মিষ্টি সম্পর্ক রয়েছে’

মনিরা মিঠু

মনিরা মিঠু এই সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী। ব্যাচেলর পয়েন্ট ধারাবাহিকে তাঁর ভূমিকা রয়েছে। কেননা তাঁর বাড়িতেই ব্যাচেলররা ভাড়া থাকে। সমসাময়িক নাটক ও বিভিন্ন প্রসঙ্গে এই অভিনেত্রী কথা বলেছেন কালের কণ্ঠের সঙ্গে।

বিজ্ঞাপন

ব্যাচেলর পয়েন্টের জনপ্রিয়তার কারণ কী? আপনার কী মনে হয়?
খুব স্বাভাবিক, সহজ ও সুন্দর করে আমাদের বাস্তব জীবনে যা ঘটে, হুবহু তার সাথে মিল রেখে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের খুব সহজ-স্বাভাবিকভাবে অভিনয়ই ব্যাচেলর পয়েন্ট নাটকের জনপ্রিয়তার কারণ। সেখানে ব্যাচেলরসহ একটি পরিবারের দুষ্টুমি, হাসি, কান্না সবই দেখানো হয়েছে।

জনপ্রিয়তার আরেকটি কারণ, বিশেষ কোনো চরিত্র নাকি সমন্বিত প্রচেষ্টা?
এই ধারাবাহিকে অনেকেই কাবিলাকে পছন্দ করেন, অনেকেই মারজুক রাসেল, অনেকেই হাবু ভাইকে আবার অনেকেই আমাকে পছন্দ করেন। তবে কাবিলা সবার মধ্যে এক ধাপ এগিয়ে আছে, এটা অস্বীকার করার উপায় নেই।

আপনি এই প্রজন্মের সাথে কাজ করছেন, বিষয়টি কেমন উপভোগ করছেন?
আমি প্রচণ্ড উপভোগ করি। ব্যাচেলর পয়েন্টের সবার সাথেই আমার বোঝাপড়াটা খুবই চমৎকার। ওদের সাথে সুখ, দুঃখ, হাসি, আনন্দ সব কিছু আদান-প্রদান হয়। ওদের সবার সাথেই আমার বহু আগে থেকে পরিচয় এবং একসাথে কাজ করা হচ্ছে, খুব আপন আমরা।

মারজুক রাসেলের চরিত্র পাশা ভাই সম্পর্কে যদি একটু মূল্যায়ন করতেন... 
মারজুক রাসেল ভাই পাশা ভাই চরিত্রে পুরোপুরি মিশে গেছেন যেখানে চরিত্রের প্রতি শতভাগ সুবিচার করেছেন উনি। ধারাবাহিকে পাশা ভাইয়ের সাথে শিরিনের (মনিরা মিঠু) টুকটাক কথায় প্রেম বা পরকীয়া দেখানো হচ্ছে না, খুব মিষ্টি একটা বন্ধুত্বের সম্পর্ক দেখানো হচ্ছে। উনার অভিনয়ের প্রতি আমি নিজেও মুগ্ধ।

ব্যাচেলর কোরবানি নাটকে আপনার ভূমিকা একটা মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন, দর্শকদেরে কোনো প্রতিক্রিয়া পেয়েছেন?
আমি অনেক কমেন্ট পড়েছি এবং এখনো পড়েই যাচ্ছি। নাটকটিতে আমার অভিনীত শেষ দৃশ্যে অনেকের কান্না চলে এসেছে, অনেকে কান্নাও করেছেন, এ রকম অনেক অনেক প্রতিক্রিয়া পেয়েছি এবং এখনো পাচ্ছি।

সামনে আপনার কী কী কাজ আসছে?
খুব তাড়াতাড়ি আমার ‘জ্বলে জ্বলে তারা’ নামের একটি অনুদানের সিনেমা আসছে। ইতিমধ্যে সেটির ডাবিং শেষ করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে অভিনয় করে তৃপ্তি পেয়েছেন এমন একটি কাজের কথা যদি উল্লেখ করতে বলা হয় তাহলে কোন কাজটির কথা উল্লেখ করবেন? 

আলহামদুলিল্লাহ, মাশাআল্লাহ। একটা দৃশ্য দিয়েও দর্শকদের মনের গভীরে জায়গা করে নেওয়া যায় তার প্রমাণ অমানুষ। এই নাটকের একটা দৃশ্যে ছিলাম, এত দর্শকের ইতিবাচক মন্তব্য, ভালোবাসা পেয়েছি, যা বলে বোঝানোর মতো নয়। এ জন্য অবশ্যই এর পরিচালক সঞ্জয় সমাদ্দারকে ধন্যবাদ জানাই।

মনিরা মিঠু

প্রয়াত শর্মিলী আহমেদের সঙ্গে আপনি কাজ করেছেন, বিশেষ করে ফ্যামিলি ক্রাইসিসে, এখন উনি নেই... 
উনাকে নিয়ে যদি ৫০০টি বই লেখা হয় তবু শেষ হবে না। ওনার মতো সভ্য, সুন্দর ব্যক্তিত্বের অধিকারিণী আমি পৃথিবীতে কোথাও দেখি নাই। উনি আমাকে বলেছিলেন, আমাকে আন্টি না, বুবু বলে ডাকবে। তিন বছরে শর্মিলী বুবুর সাথে কাটানো সময়ের কথা ভাবলে মনে হয় ওনার সাথে তিন যুগ সময় পার হয়ে গেছে। ফ্যামিলি ক্রাইসিস ধারাবাহিকের শ্যুটিং শুরু হলে সম্ভবত আমার ট্রমা শুরু হয়ে যাবে কারণ আমি সেখানে শর্মিলী আহমেদকে আর পাব না। তিনি সব সময় চুপচাপ থাকতেন, আমাদের সবার কথার মাঝেমধ্যে দু-একটি কথা বলে সবাইকে মাতিয়ে রাখতেন। শর্মিলী আহমেদের মতো এত নীরব থেকে সরব মানুষ আর কখনো পাব না।



সাতদিনের সেরা