kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

ঈদের বড় প্রাপ্তি পরিবারসহ দর্শকদের হলে ফিরিয়েছি : শাকিব খান

বিনোদন প্রতিবেদক   

১৮ মে, ২০২২ ১৬:০৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঈদের বড় প্রাপ্তি পরিবারসহ দর্শকদের হলে ফিরিয়েছি : শাকিব খান

গলুই চলচ্চিত্রের একটি দৃশ্যে শাকিব খান

পরিচ্ছন্ন গল্প, নিজেদের সংস্কৃতি নিয়ে সিনেমা কম তৈরির কারণে দর্শকরা অনেকটাই সিনেমা হল বিমুখ হয়ে ছিলেন। পরিবার নিয়ে দর্শকের সিনেমা হলে আসার রীতি থেকে আগেই সরে গিয়েছিলেন দর্শক। তবে ঈদে মুক্তি পাওয়া 'গলুই' দেখতে দর্শকদের আবারও পরিবার নিয়ে হলমুখী হতে দেখা যায়।  

শুধু ঢাকা নয়, দেশের বিভিন্ন জেলা শহরে পরিবার নিয়ে দলে দলে সিনেমা হলে গিয়ে গলুই উপভোগ করেন দর্শক।

বিজ্ঞাপন

পরিবার নিয়ে দর্শক যে আবার সিনেমা হলে ফিরেছেন, সেই 'অসাধ্য সাধন' করতে পারাটাকে এবারের ঈদের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হিসেবে দেখছেন অভিনেতা শাকিব খান।  

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পর মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে দলে দলে গিয়ে ‘গলুই’ দেখছে। পরিচ্ছন্ন পারিবারিক গল্প আছে বলে মুক্তির আগে পরিবার নিয়ে সিনেমা হলে আসার আহ্বান জানিয়ে ফেসবুকে পোস্টও দিয়েছিলাম। ঈদের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হচ্ছে, পরিবারসহ মানুষকে হলে ফেরাতে পেরেছি। সিনেমা হল বিমুখ এই সময়ে এটা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন ছিল।

ঈদে শাকিব খানের 'গলুই' ও 'বিদ্রোহী' দুটি সিনেমা মুক্তি পায়। সিনেমা হল সংকটের মধ্যে তিন ভাগের দুই ভাগ হল পেয়ে রেকর্ড গড়ে 'বিদ্রোহী'। আরেক ছবি 'গলুই' মুক্তি পায় তুলনামূলক কম হলে। শাকিব খান জানান, বিভিন্নভাবে 'গলুই'-এর প্রদর্শনী বন্ধ করতে একটি অপশক্তি কাজ করেছে। তবে শেষ পর্যন্ত আটকাতে পারেনি। মানুষ পরিবার নিয়ে সিনেমা হলে এসে ঠিকই সিনেমাটি উপভোগ করে সাধুবাদ জানিয়েছে। এ জন্য তাদের কাছে শাকিব কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।  

শাকিব খান বলেন, কিছু মানুষ হয়তো চেষ্টা করছে ‘গলুই’ আটকিয়ে অন্য সিনেমাকে এগিয়ে রাখার। গুটি কয়েক মানুষের চেষ্টায় যদি কোনো সিনেমা হিট হতো, তাহলে বলিউডের ‘স্টার কিড’রা সবাই ‘স্টার সুপারস্টার’ হতো। বলিউডের অনেক নামকরা প্রযোজক নিজেদের সন্তানদেরকে চেষ্টা করেও স্টার বানাতে পারেননি। তাই জোর করে কিছু করা যায় না। তবে ইন্ডাস্ট্রিতে যে অবস্থা, অন্যদের সিনেমা যদি হিট হয়, অবশ্যই এটা ইন্ডাস্ট্রির সবার জন্য মঙ্গলজনক।

তিনি বলেন, গুটি কয়েক মানুষের জন্য নয়, আমি সিনেমা করি লাখ লাখ মানুষের জন্য। তারা কেউ আমার সিনেমা ফ্রি দেখে না। কষ্টে উপার্জিত টাকার একটি অংশ থেকে সময় ব্যয় করে আমার সিনেমা দেখে। দিনশেষে সিনেমা হিট কিংবা ফ্লপ করায় তারা। যত বাধা-বিপত্তি আসুক না কেন, সব সময় আমার লাখ লাখ দর্শক দূর-দূরান্তে গিয়ে হলেও আমার সিনেমা দেখেছে। এবারও চেষ্টা ছিল আমার সিনেমা আটকানোর। তার মানে নিশ্চয়ই পরিষ্কার, আমার সিনেমা বেশি এগিয়ে আছে! একজন অভিনেতার ক্যারিয়ার নির্ভর করে দর্শকের ওপর। প্রভাব খাটিয়ে মানুষের ভালোবাসা বাদে হয়তো সব পাওয়া যায়।



সাতদিনের সেরা