kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

নির্বাচন শিল্পীদের মধ্যে বিভাজন তৈরি করে, কেন বললেন বাপ্পী?

রংবেরং প্রতিবেদক   

২৭ জানুয়ারি, ২০২২ ১১:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নির্বাচন শিল্পীদের মধ্যে বিভাজন তৈরি করে, কেন বললেন বাপ্পী?

বাপ্পী চৌধুরী

সংগঠনের ভূমিকা অনেক ধরনের হতে পারে। সেটা শুধু নির্বাচনে সীমাবদ্ধ থাকলে হবে না। বরং আমার মনে হয়, নির্বাচন শিল্পীদের মধ্যে বিভাজন তৈরি করে। এক টার্মে যারা বিজয়ী হয়, তারাই ক্রিকেট খেলে, পিকনিকে সক্রিয় থাকে, পরাজিত দলের কেউ এসবে থাকতে চায় না।

বিজ্ঞাপন

অথচ আমরা সবাই একসঙ্গে চলতে চাই। এখন সিনিয়র-জুনিয়র একে অন্যকে আক্রমণ করে কথা বলছি। সংগঠনের প্রতিনিধি সিলেকশন করা যেতে পারে। সিনিয়ররা বসে সিদ্ধান্ত নেবেন। কেউ যদি মনে করেন, এই পদে তিনি ভালো করবেন, নিজের পরিকল্পনা জানাবেন। ধরুন, একজন আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হলেন। তাঁর কাজটা কী, সে সম্পর্কে তো তাঁকে অবগত হতে হবে। গেল কয়েকটা নির্বাচনের পর সংগঠনের দু-একজন ছাড়া কারো কোনো তৎপরতা চোখে পড়েনি। আলোচনা-সমালোচনা সেই দু-একজনকে ঘিরেই। তাহলে এত পদই বা কেন! নির্বাচনে নাকি অনেক খরচও করতে হয়। এই খরচ কেন করতে হয়, এতে কে লাভবান হয়, সেটাও আমি নিশ্চিত নই।

ঢাকাই ছবির আলোচিত নায়ক বাপ্পী

শিল্পীরা দুস্থ, সেটা কেন ঢাকঢোল পিটিয়ে জানানো হবে! শিল্পীদের নিরাপত্তার জন্য বীমার ব্যবস্থা থাকতে পারে। অভিনয়ের মানোন্নয়নে কাজ করতে পারে সংগঠনগুলো। আমরা আর কত বিচ্ছিন্ন হব! সবাই মিলে বসে আমরা ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করতে পারি, কিভাবে ছবির নির্মাণ বাড়তে পারে, সেটা নিয়ে আলোচনা করতে পারি।



সাতদিনের সেরা