kalerkantho

বুধবার ।  ২৫ মে ২০২২ । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩  

কান্নার মিছিলে এবার স্বয়ং জায়েদ খান

রংবেরং প্রতিবেদক    

২৩ জানুয়ারি, ২০২২ ১৭:৪৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কান্নার মিছিলে এবার স্বয়ং জায়েদ খান

ক্রন্দনরত শিল্পীরা। [বাঁ থেকে] জায়েদ খান, নাসরিন, জেসমিন ও রিয়াজ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে দুই প্যানেলের প্রার্থীরা একের পর এক কাণ্ড ঘটিয়েই চলেছেন। কয়েক দিন আগেই ভোটাধিকার হারানো শিল্পীদের সামনে অভিনেতা রিয়াজের কান্না দেশজুড়ে আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে দাঁড়িয়েছিল। রিয়াজের আগে ও পরে কেঁদে আলোচনায় এসেছিলেন অভিনেত্রী জেসমিন ও নাসরিন। কারো কাছে এই কান্না মায়াকান্না, কেউ আবার মানবিক দিক দিয়েও বিচার করেছেন।

বিজ্ঞাপন

 

ক্রন্দনরত রিয়াজ


সমিতির সদ্য সাবেক হওয়া সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান রিয়াজের কান্নাটাকে ভালো চোখে দেখেননি। ভোটের মাঠে আবেগ দেখিয়ে সুবিধা পাওয়ার অস্ত্র হিসেবেই দেখেছেন। এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে জায়েদ বলেছিলেন, 'রিয়াজ ভাইয়ের কান্না দেখে আমি অবাক, মানুষ এত নিচে নামতে পারে!'
এবার নিজেই সেই কান্নার মিছিলে যোগ দিলেন জায়েদ খান। পান্থপথের একটি কনভেনশন সেন্টারে আজ হয়ে গেল মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেলের পরিচিতি অনুষ্ঠান।  

সেখানে আবেগাপ্লুত হয়ে কেঁদে জায়েদ বলেন, 'রাত ১টার সময় আমাকে মার্ডার কেসের আসামি বানানো হলো এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে। নায়িকা শিমু মারা গেছে। সেই শিমু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আমাকে জড়িয়ে একটি চক্র বক্তব্য দেওয়া শুরু করে রাতে। রাতেই আমাকে খুনি বানিয়ে দেওয়ার সকল আয়োজন করে ফেলা হয়েছে। শিমুর বাসায় লোক পাঠানো হয়েছে। তারা গিয়ে বলে, আপনারা শুধু একবার বলেন, আপনারা জায়েদ খানকে সন্দেহ করছেন। আপনাদের যা লাগে দেব। ' বলতে বলতেই কেঁদে ফেলেন তিনি। কান্নাজড়িত কণ্ঠেই বক্তব্য শেষ করেন জায়েদ।
প্যানেল পরিচিতি অনুষ্ঠানে জায়েদ আরো বলেন, ‌'আমি জীবনটা দিয়ে দিয়েছি শিল্পীদের পেছনে। বিনিময়ে পেয়েছি মানুষের গালি, অবহেলা। আমাকে খুনি সাজানো হচ্ছে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে।  আমার একটাই বোন, যার কাছে মানুষ হয়েছি সে ক্যান্সারে আক্রান্ত। আমি যার কাছে মানুষ হয়েছি। আমার বোন বলল তুমি এখান থেকে ফিরে আসো। তোমাকে হারাতে চাই না। '

প্যানেল পরিচিতি অনুষ্ঠানে ক্রন্দনরত জায়েদ খান 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবারের শিল্পীদের কান্না  নিয়ে কম আলোচনা-সমালোচনা হয়নি। রিয়াজের কান্নার ভিডিও অন্তর্জালে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে পড়েছিল। ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেলের সহসভাপতি পদপ্রার্থী এই অভিনেতা পরে অভিমান করে গণমাধ্যমে বলেছেন, 'কেঁদে যদি ভুল করে থাকি মাফ করে দেবেন। '
রিয়াজের আগে কেঁদে আলোচিত হয়েছিলেন অভিনেত্রী জেসমিন। ৯ জানুয়ারি ইলিয়াস কাঞ্চন নিপুণের প্যানেল ঘোষণার সময় মিশা সওদাগর-জায়েদ খান কমিটির বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন এই অভিনেত্রী। মজার ব্যাপার হলো, সেদিন রিয়াজের পেছনে দাঁড়িয়েই কেঁদেছিলেন জেসমিন।

জেসমিন ও রিয়াজের পর এফডিসিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন আরেক অভিনয়শিল্পী নাসরিন। আর এবার কাঁদলেন সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জায়েদ খান।  



সাতদিনের সেরা