kalerkantho

শনিবার । ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৪ ডিসেম্বর ২০২১। ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

'তুই ভালোবাসায় ভরিয়ে দিলি আমার ছোট দুনিয়া'

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ অক্টোবর, ২০২১ ১৪:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'তুই ভালোবাসায় ভরিয়ে দিলি আমার ছোট দুনিয়া'

দুই বাংলার জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী শায়ান চৌধুরী অর্ণব বিয়ে করেছেন গত বছর। পাত্রী সুনিধি নায়েক একজন সংগীতশিল্পী। ২০২০ সালের ২৮ অক্টোবর পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলে তাদের রেজিস্ট্রি ম্যারেজ হয়। বিয়ের এক বছর পূর্ণ হলো আজ। আর দিনটিকে বেশ স্মরণে রেখেছেন অর্ণব। স্ত্রী সুনিধিকে ব্যাপক ভালোবাসা জানিয়েছেন সোশ্যাল হ্যান্ডেলের মাধ্যমে। 

শত ভালোবাসার প্রকৃতি এঁকে পোস্ট করেছেন, পোস্ট করেছেন স্ত্রীর গালে চুম্বনরত একটি ছবি-। লিখেছেন, হ্যাপি অ্যানিভার্সারি নশাই...  এর পরেই ভালোবাসা কিংবা হার্ট সংবলিত চিহ্নগুলো। লিখেছেন, আই লাভ ইউ সো মাচ। ইংরেজি অক্ষরে সো লেখার পূর্বে অনেকগুলো ও ব্যবহার করেছেন। যা দিয়ে অর্ণব ভালোবাসার ব্যাপ্তি বোঝাতে চেয়েছেন। এরপর লিখেছেন, 'তুই ভালোবাসায় ভরিয়ে দিলি আমার ছোট দুনিয়া।' 

শান্তিনিকেতনে পড়ার সময় পরিচয় হয় শাহানা বাজপেয়ির সঙ্গে। শাহানার জন্য পুরো একটি রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবামের সংগীত ডিজাইন করেছিলেন অর্ণব। শাহানার সঙ্গে সম্পর্ক চুকে গেলেও সেই রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবামের সব গান এখনো, এই প্রজন্মের ডিভাইসে বেজে চলে। তারপর দীর্ঘকাল অর্ণব 'শীতনিদ্রায়'  চলে যান। অর্থাৎ অর্ণবের খোঁজ নেই, মাঝেমধ্যে দেখা হলেও ফের ডুব। 

কিছুদিন আগে অর্ণবের সঙ্গে এক তরুণীর দেখা মেলে। প্রেম কি না ঠিক বোঝা যাচ্ছিল না। তরুণীর নাম সুনিধি।  দেশের একটি বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশনেও একসঙ্গে দুজন অংশ নেন। তখনো স্পষ্ট ছিল না প্রেমের বিষয়টি। তবে গত বছর যখন একেবারে বিয়ের ঘোষণা দেন অর্ণব, ঠিক অর্ণব নন। মিথিলা, অর্ণবের কাজিন- জানালেন তাঁর বিয়ের কথা।

সুনিধি নায়েক ভারতের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীতে স্নাতকোত্তর পড়েছেন। তিনি একজন পেশাদার এসরাজ বাদক। বাজাতে জানেন হিন্দুস্তানি শাস্ত্রীয় সংগীত। আসামে জন্ম নেওয়া সুনিধির সঙ্গে বিশ্বভারতীতেই পরিচয় অর্ণবের। বিশ্বভারতীতে আয়োজিত ‘রবি অ্যান্ড র‍্যাবি’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানে সুনিধির কণ্ঠে রবীন্দ্রসংগীত শুনে মুগ্ধ হয়েছিলেন অর্ণব। শুভ কামনা জানিয়ে সেই মুগ্ধতা প্রকাশও করেছিলেন তিনি। সেই পরিচয় থেকেই দিনদিন একে অপরের সুরসঙ্গী হয়ে ওঠেন।


এই রকম আরো খবর


সাতদিনের সেরা