kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

দেশি অনুষ্ঠানের মান নিম্নমানের বলায় আইনজীবীকে পাল্টা নোটিশ

অনলাইন ডেস্ক   

১৪ অক্টোবর, ২০২১ ১৪:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশি অনুষ্ঠানের মান নিম্নমানের বলায় আইনজীবীকে পাল্টা নোটিশ

বিদেশি চ্যা‌নেল পুনরায় চালু এবং ক্লিন‌ ফিড ইস্যুতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়‌কে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক এস এম সামসুর রহমান শিমুলকেও একটি নোটিশ পাঠানো হয়।

গত রবিবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ার এ নোটিশ পাঠান। নোটিশে বলা হয়েছে, ক্লিন ফিড (বিজ্ঞাপনবিহীন) ছাড়া কোনো বিদেশি চ্যানেল সম্প্রচার করা বর্তমানে সম্ভব নয় বিধায় কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) সদস্যরা গত ১ অক্টোবর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সব ধরনের বিদেশি চ্যানেল সম্প্রচার বন্ধ রেখেছে।

এতে বলা হয়, ‘বিদেশি চ্যানেলগুলোর সঙ্গে ক্লিন ফিড ছাড়া কিভাবে বাংলাদেশে সম্প্রচার অব্যাহত রাখা যায়, সেই ব্যাপারে কোনো আলোচনা না করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় ও কোয়াবের হঠকারী সিদ্ধান্তের ফলে বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুষ বিদেশি চ্যানেল দেখার প্রয়োজনীয় ফি প্রদান করেও তা দেখার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ফলে বিনোদনের অভাব দেখা দিয়েছে, যা সুস্পষ্টভাবে বাংলাদেশের সংবিধান ও মানবাধিকারের লঙ্ঘন।’

নোটিশে আরো বলা হয়েছে, বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলোর অনুষ্ঠানের মান অত্যন্ত নিম্ন। ফলে বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ বিদেশি চ্যানেলগুলোতে বিনোদনের স্বাদ গ্রহণ করে থাকে। কিন্তু এই নোটিশের গ্রহীতাদের হঠকারী সিদ্ধান্তের ফলে বাংলাদেশের জনগণ বিশেষ করে শিশুরা কার্টুন, মহিলারা রান্না ও সিরিয়াল এবং পুরুষরা সংবাদ, খেলা ও রিয়ালিটি শো দেখতে পারছে না বলে তারা বর্তমানে ব্যাপক বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে। যা প্রচলিত আইনের পরিপন্থী।’

এদিকে ওই নোটিশে বাংলাদেশের অনুষ্ঠানের মান নিম্নমানের বলায় আইনজীবী খন্দকার হাসান শাহরিয়ারকে পাল্টা নোটিশ পাঠানো হয়েছে দেশের একজন নির্মাতার পক্ষ থেকে। 

নোটিশের বক্তব্য প্রত্যাহার ও ক্ষমা চাইতে নোটিশদাতাকে পাল্টা আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) চলচ্চিত্রকার মোস্তফা মননের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী নাজমুস সাকিব এ নোটিশ প্রেরণ করেন।

নোটিশের ওই অংশে দেশি কনটেন্টকে অত্যন্ত নিম্নমানের উল্লেখ করায় দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনে বিরূপ প্রভাব পড়ছে বলে পাল্টা নোটিশ দিয়েছেন চলচ্চিত্রকার মোস্তফা মনন।

তাই মোস্তফা মনন তার নোটিশ পাওয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে গত ৩ অক্টোবরের নোটিশের বক্তব্য প্রত্যাহার ও এ বিষয়ে নোটিশদাতাকে ক্ষমা চাইতে অনুরোধ জানিয়েছেন। অন্যথায় এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে দেওয়ানি ও ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা