kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মালদ্বীপে বসে মিটিং করছেন ঢাকার নায়িকা

অনলাইন ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৩:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মালদ্বীপে বসে মিটিং করছেন ঢাকার নায়িকা

'মালদ্বীপে বসে মিটিং করছেন ঢাকার নায়িকা' শিরোনামেই রহস্যের গন্ধ পাওয়া যায়। কিসের মিটিং, কী এমন মিটিং- যা ঢাকায় করা গেল না, যেতে হলো মালদ্বীপে?'

'আরে ভাই মালদ্বীপের মিটিং ঢাকায় করা গেলে তো ঢাকাতেই করতাম, মালদ্বীপে আসতাম না।'

মোবাইলফোনে যখন চিত্রনায়িকা মালদ্বীপে অবস্থানরত অধরাকে প্রশ্ন করা হলো- তার বিরক্তি মেশানো উত্তরই এলো। পরমুহূর্তে অবশ্য স্বাভাবিকভাবেই ফিরিস্তি দিলেন, কিসের মিটিং, কেন মিটিং।

সমুদ্রবেষ্টিত ডেশটির রিসোর্টের এক চিলতে মাটিতে চেয়ার পেতে যেন একটি সভার আয়োজন করা হয়েছে। সেখানেই সবাই মন্ত্রমুগ্ধের মতো বক্তার কথা গিলছেন। সেই শ্রোতাদের দলে একজন এ দেশের নায়িকা, অধরা। বিষয়টি জানার জন্যই অধরার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। 

মালদ্বীপে অধরা

কালের কণ্ঠকে অধরা বললেন, যদিও পুরো প্রোজেক্ট নিয়ে এখন কথা বলা নিষেধ রয়েছে। তার পরেও যতটুকু বলা যায় ততটুকুই বলছি, মালদ্বীপে এসেছি এক সপ্তাহ হয়ে গেল। এখানে দেশের বাইরের একটি প্রোজেক্ট, আরেকটু পরিষ্কার করে বললে- দেশের বাইরের একটি চলচ্চিত্রে কাজ করছি, সেটার শুটিং হচ্ছে এখানে। এ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছি। সেই সিনেমার খুঁটিনাটি ও পরিকল্পনা নিয়েই ছিল মিটিং।' 

অধরা মালদ্বীপে শুটিংয়ের অভিজ্ঞতাও বর্ণনা করলেন। সেই বর্ণনা যেন উভচর প্রাণীর কথা মনে করিয়ে দেয়। কেননা দেশের চলচ্চিত্রগুলোতে কাজ করতে হয়েছে ডাঙায়, আর এখানে কাজ করতে হচ্ছে জলে- কথা শেষের আগেই হাসলেন। তারপর থেমে বললেন, আসলে মালদ্বীপে অধিকাংশ শুটিংয়ের জন্যই জলে থাকতে হচ্ছে। এখানে সর্বত্র নীলাভ জল। ভালো লাগে, তাই বলে এতটা সময় পানিতে- এটা ভয়েরও বটে। এই মুহূর্তে জলেই ছিলাম। উঠে আসার পর আপনার ফোন পেলাম। আমাদের যে রিসোর্টের নিচেই জল কিংবা জলের ওপরেই রিসোর্ট। আপনার সঙ্গে কথা শেষ হলে ফের জলে যেতে হবে।' 

কথোপথনের বেশ পরে ছবিগুলো কালের কণ্ঠকে পাঠান নায়িকা

অধরা জানালেন না সিনেমার নাম কী, কোন দেশের সিনেমা। এরই মধ্যে কথা শেষ করে ফেললেন। তারপর জলে নেমে গেলেন কি না, সেটা জানা যায়নি...



সাতদিনের সেরা