kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

স্কুল-কলেজে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া ছাত্রী সামান্তা

অনলাইন ডেস্ক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৩:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুল-কলেজে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া ছাত্রী সামান্তা

এই মুহূর্তে বিনোদন দুনিয়ার অন্যতম আলোচিত নাম সামান্তা আক্কেনেনি। তেলেগু ছবি বা  দক্ষিণী ছবির প্রথম সারির নায়িকা হলেও ভক্তদের কাছে তার খ্যাতি 'দ্য ফ্যামিলি ম্যান টু'-এর রাজ্জির চরিত্রের জন্য।

এই চরিত্রটি রাতারাতি সামান্থা আক্কিনেনিকে বিশ্বব্যাপী স্টারডম দিয়েছে। এর সূত্র ধরেই তার সম্পর্কে অজানা তথ্য জানতে উদগ্রীব দর্শক মহল। ভক্তদের নিরাশ করেন না সামান্থা আক্কিনেনিও। মাঝেমধ্যেই ইনস্টাগ্রামে তার জীবনের নানা সিক্রেট শেয়ার করেন। ভক্তদের জানিয়ে দেন তার নিজের সম্পর্কে নানা অজানা তথ্য। 

এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে সমান্তা জানান, স্কুলে টপার ছিলেন সামান্থা। শুধু তা-ই নয়, তাকে স্কুলে সম্পদ হিসেবেও মনে করতেন শিক্ষকরা। ফলে অনেকেরই যে আগে একটা ধারণা ছিল, যারা পড়াশোনায় বিশেষ কিছু করতে পারেন না, তারাই অভিনয়ে আসেন, সে ধারণা একাধিক তারকা ভুল প্রমাণ করেছেন। সেই তালিকায় সামান্থা আক্কিনেনি অন্যতম।

চেন্নাইয়ে বড় হওয়া সামান্থার। পড়াশোনা করেছেন হলি অ্যাঞ্জেল অ্যাংলো ইন্ডিয়ান হায়ার সেকেন্ডারি স্কুলে। পরবর্তী সময়ে কমার্স নিয়ে স্টেলা ম্যারিস কলেজে পড়েন। নিজের ইনস্টাগ্রামে নায়িকা শেয়ার করলেন দশম শ্রেণির রিপোর্ট কার্ড। সে কার্ডের নম্বরের ঝলক দেখলেই বোঝা যায়, প্রতিটি বিষয়েই তুখোড় ছিলেন নায়িকা। বিশেষ করে সায়েন্স সাবজেক্টে। ক্লাসে র‌্যাংকও ছিল এক নম্বর। শুধু তাই নয়, স্কুলের অ্যাটেনডেন্সেও কখনো ফাঁকি দেননি সামান্তা। 

এদিকে সামান্তা তেলেগু নায়ক নাগা চৈতন্যর স্ত্রী। ২০১০ সালে তেলেগু ছবি ‘ইয়ে মায়া চেসাবে’-তে একসঙ্গে কাজ করেন সামান্থা আর নাগা চৈতন্য। ২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর হিন্দুমতে এবং পরদিন খ্রিস্টান রীতিতে বিয়ে করেন তারা। সামান্থার শ্বশুর দক্ষিণের জনপ্রিয় তারকা নাগার্জুন।



সাতদিনের সেরা