kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

ঈশানার রবীন্দ্র সংগীতের ভিডিও

অনলাইন ডেস্ক   

৫ আগস্ট, ২০২১ ১৭:০২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঈশানার রবীন্দ্র সংগীতের ভিডিও

৬ আগস্ট, ২২ শ্রাবণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আসছে গানের ভিডিও ‘আমার পরান যাহা চায়’।  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জনপ্রিয় এ গানটি গেয়েছেন ইমন ফেরদৌস। সংগীত করেছেন মারভিন অধিকারী রূপম। গানটির দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন দৃষ্টিনন্দন স্থানে। মডেল হয়েছেন ইমন ফেরদৌস ও ঈশানা। 
 
ভিডিওটি নিয়ে অস্ট্রেলিয়া থেকে ঈশানা বলেন, ‘খুবই ভালো একটা কাজ হয়েছে। অনেক দিন পর আমার নতুন কাজ আসছে। মাঝে টিভিতে কিছু কাজ প্রচার হয়েছে। সেগুলো অস্ট্রেলিয়াতে আসার আগে করা ছিল। ভিডিওর সঙ্গে ইমন ফেরদৌসের গায়কী দারুণ মানিয়েছে। শিমুল শিকদার গুণী নির্মাতা। তাঁর কাজের ভক্ত আমি।’ 
গানের ভিডিওতে অতিথি চরিত্রে দেখা যাবে ঈশানার স্বামী সাররিফ চৌধুরীকেও। ঈশানা বর্তমানে অস্ট্রেলিয়াতে স্থায়ীভাবে বাস করছেন। তিনি বলেন, ‘লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন খুব মিস করি। সামনে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা ভালো হলে আরেকটা কাজ করব। নাট্যকার শফিকুর রহমান শান্তনু ভাইয়ের কাছ থেকে স্ক্রিপ্ট পেয়েছি। স্ক্রিপ্ট অনুযায়ী প্রস্তুতিও নিচ্ছি।’
 
‘আমার পরান যাহা চায়’ গানটির সিনেমাটোগ্রাফি, পরিচালনা ও সম্পাদনা করেছেন শিমুল শিকদার। যিনি ‘এক জীবন’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গানের ভিডিওর নির্মাতা। ইতিমধ্যে মিউজিক ভিডিওটি সুইডেন ফিল্ম ফেস্টিভাল ২০২১-এ ‘সেরা মিউজিক ভিডিও’সহ ১৮টি আন্তর্জাতিক উৎসবে বিভিন্ন শাখায় পুরস্কার পেয়েছে।
 
শিমুল বলেন, ‘পৃথিবীর অনেক নামকরা ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে মিউজিক ভিডিও ক্যাটাগরিতেও পুরস্কার দেয়া হয়। সেই লক্ষ্যে আমরা এটি পাঠিয়েছিলাম। এটি শুধু আমার জন্য নয়। বাংলাদেশের জন্যও গর্বের। বাংলাদেশের যারা গানের ভিডিও নির্মাণ করেন তারাও সাহস করতে পারেন আন্তর্জাতিক উৎসবগুলোতে অংশগ্রহণ করতে। আমেরিকান এক ডিরেক্টর একটা ফেস্টিভ্যালের জাজ ছিলেন। তিনি মিউজিক ভিডিওটা দেখে সরাসরি আমাকে মেইল করছেন। তিনি এতো মুগ্ধ হয়েছেন যে প্রতিটি ক্যাটাগরিতে তিনি দশে দশ দিয়েছেন।’
 
তিনি যোগ করেন,‘ কাজটি করতে গায়ক, প্রযোজক, মডেল ঈশানা ও তার স্বামী সাররিফ চৌধুরীদের ভূমিকা অপরিসীম। আমার কাজের প্রতি তাদের বিশ্বাস ছিল। যার ফলে একটা ভালো ও প্রশংসিত প্রডাকশন হয়েছে।’
 
নির্মাতা শিমুল শিকদার অস্ট্রেলিয়াতে ফিল্ম নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। শিমুল শিকদার দীর্ঘদিন ধরে সিনেমাটোগ্রাফি সহ ক্যামেরার পেছনে কাজ করছেন। তিনি একই সাথে লেখালেখির সঙ্গে জড়িত। এখন তিনি ফিল্ম পরিচালনার জন্য একটি স্ক্রিপ্ট নিয়ে কাজ করছেন। লকডাউনের ঝামেলা শেষ হলে শুটিং শুরু করবে বলে জানিয়েছেন।


সাতদিনের সেরা