kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

টিকটকার ফারজানা যেভাবে ফাঁদে ফেলে ছিনতাই করতেন

অনলাইন ডেস্ক   

১ আগস্ট, ২০২১ ১৫:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টিকটকার ফারজানা যেভাবে ফাঁদে ফেলে ছিনতাই করতেন

চট্টগ্রামের মেয়ে ফারজানা বেগম। বয়স মাত্র ২৭। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি পরিচিত টিকটক ফারজানা। টিকটক রাজ্যে তার বেশ পরিচিতিও আছে। এ পরিচয়ের আড়ালেও টিকটকার ফারজানার আছে অন্য এক পরিচয়। 

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের খাতায় ফারজানা একজন ভয়ংকর ছিনতাইকারী। তার নামে পুলিশের খাতায় আছে আটটি মামলা। শুক্রবার মধ্যরাতে নগরীর ডবলমুরিং থানা পুলিশের অভিযানে আগ্রাবাদ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হন ফারজানা।

ফারজানার স্বামী রুবেল মাত্র দুই দিন আগে এলজি ও ছোরাসহ গ্রেপ্তার হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১১টি মামলা রয়েছে। তারা স্বামী-স্ত্রী মিলেই গড়ে তুলেছে ছিনতাই চক্র। নগরজুড়ে বেড়াচ্ছে ছিনতাই করে। সিএনজির পেছন থেকে কেটে কিভাবে ছিনতাই করতে হয় তা ফারজানার দলেরা অভ্যস্ত।

পুলিশ জানায়, ফারজানার ছিনতাইয়ের রয়েছে নানা কৌশল। এর মধ্যে একা চলাচলরত কোনো ছেলেকে প্রথমে টার্গেট করে। এরপর ঠিকানা জিজ্ঞেস করার নামে তাকে থামায়। থামলেই ছোরা দেখিয়ে তার কাছে থাকা টাকা ও মোবাইল দিয়ে দিতে বলে, অন্যথায় তার বিরুদ্ধে ইভ টিজিং ও যৌন হয়রানির অভিযোগ আনার হুমকি দেয়। এতে ভয়ে সব কিছু দিয়ে দেয় ছেলেরা। আর মেয়েদেরও ঠিকানা জিজ্ঞাসা করার ভান করে থামায়। এরপর ছোরার ভয় দেখিয়ে সব ছিনিয়ে নেয়। 

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ফারজানা টিকটক ও লাইকি করে। টিকটক লাইকিতে ফারজানা সেলিব্রিটি। কিন্তু আমাদের কাছে সে একজন মোস্ট ওয়ান্টেড। দুর্ধর্ষ একজন ছিনতাইকারী। কিশোরদের নিয়ে তার নিজস্ব একটি ছিনতাইকারী দলও আছে। সে ছেলে ও মেয়েদের কাছ থেকে আলাদা কৌশলে ছিনতাই করে।



সাতদিনের সেরা