kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

মাতলামির ভিডিও অনলাইন থেকে মুছতে আদালতে গেলেন

অনলাইন ডেস্ক   

২৩ জুলাই, ২০২১ ১৬:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাতলামির ভিডিও অনলাইন থেকে মুছতে আদালতে গেলেন

অতীতের তিক্ত স্মৃতি মুছে ফেলতে চান আলোচিত রিয়ালিটি শো-রোডিজ-এর বিজেতা আশুতোষ কৌশিক। এ কারণে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ আশুতোষ।  ‘right to be forgotten’-এর আওতায় এই আবেদন দাখিল করেছেন একাধিক রিয়ালিটি শো-এর মঞ্চ কাঁপানো এই প্রতিযোগী। আশুতোষের কথায়, সেই সকল ভিডিও তাঁর জীবনে ‘ক্ষতিকারক প্রভাব’ ফেলছে। তাই গুগলসহ অন্য সমস্ত অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে ওই ভিডিও মুছে দেওয়ার আবেদন তার। 

২০০৯ সালে দুটি রিয়ালিটি শো জেতার পর মাস কয়েকের মধ্যেই মদ্যপ অবস্থায় হেলমেট না পরে বাইক চালানোর দায়ে গ্রেপ্তার হন আশুতোষ কৌশিক। হাতাহাতিতেও জড়িয়েছিলেন তিনি। সেসব ভিডিও ও ফটো ইন্টারনেট থেকে সরিয়ে ফেলার আবেদন জানিয়েছেন আশুতোষ কৌশিক।

এই মর্মে বিচারপতি রেখা পাল্লি একটি নোটিশ জারি করেছেন তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রণালয়, সার্চ ইঞ্জিন গুগুল, প্রেস কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া এবং টিভি চ্যানেল পর্যবেক্ষণকারী সংস্থার উদ্দেশ্যে। ‘রাইট টু প্রাইভেসি’ এবং ‘রাইট টু ফরগটন’-এর আওতায় এই আবেদন জানিয়েছেন আশুতোষ।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষগুলোকে আদালতের কাছে নিজেদের জবাব পেশ করতে হবে। মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ডিসেম্বর মাসে। রোডিজের পাঁচ নম্বর সিজন জিতে ছিলেন আশুতোষ কৌশিক। সালটা ২০০৭, পরের বছরই বিগ বসের মঞ্চে খেতাব জেতেন তিনি। নিজের সম্মান ও আত্মমর্যাদা অটুট রাখতে বেশ কিছু ভিডিও, ছবি এবং সেই সংক্রান্ত নিউজ আর্টিকল গুগলসহ অন্যান্য প্ল্যাটফর্ম থেকে মুছে দেওয়ার কথা জানান তিনি। কারণ সেই অতীত স্মৃতি তাঁর ব্যক্তিগত জীবনকে অস্থির করে তুলছে।

আবেদনের প্রতিলিপিতে বলা হয়েছে, যদিও ভারতীয় সংবিধানে সরাসরিভাবে ‘রাইট টু বি ফরগটন’-এর উল্লেখ করা হয়নি, কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট ‘রাইট টু লাইফ’-কে মান্যতা দিয়েছে, যার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে ব্যক্তিস্বাধীনতার প্রসঙ্গ। তাই সংবিধানের ২১ নম্বর আর্টিকলের (রাইট টু লাইফ) সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত এই ‘ভুলে যাওয়ার অধিকার’। 

বিগ বস এবং রোডিজ ছাড়া কিসমত লাভ পয়সা দিল্লি, শর্টকাট রোমিও, জিলা গাজিয়াবাদের মতো বলিউড ফিল্মেও অভিনয় করেছেন আশুতোষ কৌশিক। গত বছরের এপ্রিলে সাত পাকে বাঁধা পড়েন আশুতোষ।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।



সাতদিনের সেরা