kalerkantho

সোমবার । ১১ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৬ জুলাই ২০২১। ১৫ জিলহজ ১৪৪২

লিমনের গল্পে বর্ষণ-অর্ষা

অনলাইন ডেস্ক   

৪ জুলাই, ২০২১ ১৭:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লিমনের গল্পে বর্ষণ-অর্ষা

কবি ও সাংবাদিক লিমন আহমেদের রচনায় নির্মাণ হলো নাটক 'নুরুলের শেষের কবিতা'। নাটকে কবি চরিত্রে অভিনয় করেছেন 'ঊনপঞ্চাশ বাতাস'-খ্যাত তারকা ইমতিয়াজ বর্ষণ। তার প্রেমিকা চরিত্রে দেখা যাবে লাক্স তারকা নাজিয়া হক অর্ষাকে। এছাড়াও নাটকের একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন ট্রান্সজেন্ডার হোচিমিন। সম্প্রতি ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে নাটকটির শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। এটি পরিচালনা করেছেন নিকুল মণ্ডল।

নাটকটির জন্য একটি গান লিখেছেন এ প্রজন্মের জনপ্রিয় গীতিকবি জাহিদ আকবর। অনুরুদ্ধ সুরের সুরে সুমন কল্যাণের সংগীতে গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন দেবলীনা সুর।

নাটকের গল্পে এক কবির নীরব প্রেম ও বিরহ ফুটে উঠেছে। অন স্ক্রিনে দেখা যাবে প্রেমিকা কবিতার জন্য তার কবি হয়ে ওঠা। সেই প্রেমিকাকে হারানোর শোক বুক নিয়ে বেড়ান তিনি। মহল্লার একসময়ের ডাকসাইটে সুন্দরী কবিতা অনেকদিন পর মহল্লায় ফিরে আসে। স্বামীর সঙ্গে সে কলকাতায় থাকত। হঠাৎ কেন সে ফিরে এলো তা জানা যায় না। তবে তার মলিন মুখ দেখে অনেকে কষ্ট পায়, অনেকে নানারকম গল্পও ছড়ায়। কেউ বলে কবিতার স্বামী তালাক দিয়েছে। কেউ বলে কবিতা বিধবা হয়ে ফিরে এসেছে। কবিতা বা তার পরিবার এসব নিয়ে মুখ খোলে না। এদিকে কবিতার প্রত্যাবর্তনে উল্লাস বয়ে যায় মহল্লার কবিসংঘে। 

এ সংঘের সভাপতি কবি নুরুল একসময় ভালোবাসতো কবিতাকে। খবর পেয়ে নুরুল কবিতাকে দেখতে তার বাড়ি যায়। কিন্তু কবিতার সাড়া মেলে না। বারবার চেষ্টাতে ব্যর্থ হয়ে সে আবার কবিতা লিখতে শুরু করে। এবার সাড়া মেলে। কবিতার জবাব আসে পালটা কবিতায়। নুরুলের আনন্দ আর দেখে কে। নুরুল আবার নিয়মিত আড্ডা দিতে শুরু করে ছাদে। আগে কবিতা ছাদে আসত তার সঙ্গে দেখা করতে। এখন আসে না। কবিতা লিখলে জবাব আসে কিন্তু মানুষ কবিতার দেখা মেলে না। নুরুল জানতে চায় কবিতার স্বামী-সংসারের খবর। সেসব চেপে যায় কবিতা। 

বিষয়টি রহস্যের জন্ম দেয় নুরুলের মনে। সে আরও অবাক হয় কবিতার লেখা কবিতাজুড়ে শুধু বিষাদ আর হাহাকার দেখে। একদিন সে ঠিক করে, আর অনুমতি নেবে না। জোর করেই কবিতার মুখোমুখি হবে। হঠাৎ এক খবরে ঘটনা মোড় নেয় নাটকের গল্পে। যা দর্শককে ভাবাবে।

'নুরুলের শেষের কবিতা' নাটক প্রসঙ্গে নিকুল মন্ডল বলেন, 'এটি আমার অভিষেক কাজ। অনেক আবেগ ও প্রত্যাশা মিশে আছে এ কাজটির সঙ্গে। আমি ধন্যবাদ জানাই আমার এ নাটকের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে। খুব ভালো একটি টিম পেয়েছি বলে কোনো বাজে অভিজ্ঞতা ছাড়াই নাটকটির কাজ শেষ করতে পেরেছি।'

নাটকটিতে আরও অভিনয় করেছেন শহীদুল্লাহ সবুজ, মিলি বাশার, মাসুম বাশার, আনন্দ খালেদ, হিল্লোল সরকার, জাহিদ হিমেল, জুয়েল মিয়া প্রমুখ।

শিগগিরই নাটকটি একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচার হবে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা।



সাতদিনের সেরা