kalerkantho

শনিবার । ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩১ জুলাই ২০২১। ২০ জিলহজ ১৪৪২

‘লজ্জায়, ঘেন্নায় মরে যেতে ইচ্ছে করছে’

অনলাইন ডেস্ক   

২১ জুন, ২০২১ ১৫:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘লজ্জায়, ঘেন্নায় মরে যেতে ইচ্ছে করছে’

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা-বিধায়ক কাঞ্চন মল্লিককে নিয়ে নতুন গুঞ্জন বেশ কিছুদিন আগেই চাউর হয়েছে। শোনা যাচ্ছে, তিনি নাকি কৃষ্ণকলি খ্যাত টেলি অভিনেত্রী শ্রীময়ী চট্টরাজের সঙ্গে প্রেম করছেন। কাঞ্চন বিষয়টিকে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলে অস্বীকার করলেও স্ত্রী পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন ভিন্ন কথা। এবার এ ঘটনা থানা পর্যন্ত গড়াল। স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছেন পিঙ্কি। 
 
জানা গেছে, পিঙ্কি অভিযোগ করেছেন, তাকে হুমকি দিয়েছেন কাঞ্চন মল্লিক এবং তার প্রেমিকা শ্রীময়ী। প্রেমের কথা ফাঁস হয়ে যাওয়ায় এই হুমকি দেওয়া হয়েছে বলেই দাবি করেছেন তিনি। এ খবর প্রকাশ্যে আসার পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন শ্রীময়ী। তার দাবি, কাঞ্চন মল্লিকের সঙ্গে তার পরকীয়ার সম্পর্ক নেই। এ অভিনেত্রী বলেন, ‘পিংকি বন্দ্যোপাধ্যায় সম্ভবত প্রচারের আলো টানতে আমাকে আর কাঞ্চন মল্লিককে জড়িয়ে এই নোংরা খেলায় মেতেছেন। লজ্জায়, ঘেন্নায় আত্মহত্যা করতে ইচ্ছে করছে।’ 
 
এরই মধ্যে পিংকি বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছেন শ্রীময়ী, কিন্তু তিনি সাড়া দেননি। শ্রীময়ী অনুরোধ জানিয়ে কঞ্চনের স্ত্রীকে এ-ও বলেছেন, ‘দোহাই পিংকিদি, কথা বলো, এভাবে নিজের মনগড়া কাহিনি সব জায়গায় বলে প্রচারের আলো টেনো না। আমিও মেয়ে। আমারও পরিচিতি আছে। আমায় কেন এভাবে অকারণে কলঙ্কিত করছ?’ 
 
ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, গতকাল রাতে পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি আটকে কাঞ্চন ও শ্রীময়ী তাকে হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তা-ই নয়, পিঙ্কির নিউ আলীপুরের বাড়িতেও নাকি গিয়েছিলেন কাঞ্চন ও শ্রীময়ী। কিন্তু সেখানে পিঙ্কি তখন বাড়ি ছিলেন না। তারপর চেতলা থেকে ফেরার পথে তার গাড়ি আটকানো হয় বলে অভিযোগ। এর পরই আজ রবিবার থানায় অভিযোগ করেন পিঙ্কি। 
 
উল্লেখ্য, কাঞ্চন মল্লিকের দ্বিতীয় স্ত্রী পিঙ্কি বন্দ্যোপাধ্যায়। তাদের আট বছরের একটি ছেলেও রয়েছে। এরই মধ্যে দাম্পত্যে ফাটল দেখা দিল। এর আগে শ্রীময়ী ও কাঞ্চনের প্রেমের সম্পর্কের গুঞ্জন নিয়ে পিঙ্কি এক প্রতিক্রিয়ায় জানান, দু’জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ প্রেম করতেই পারেন। কিন্তু তা অস্বীকার করলে সাবেক ও বর্তমান দু'জনকেই অসম্মান করা হয়।



সাতদিনের সেরা