kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

প্রিয়জন হারালেন রুদ্রজিৎ-প্রমিতা

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ জুন, ২০২১ ১৭:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রিয়জন হারালেন রুদ্রজিৎ-প্রমিতা

চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি ধুমধাম করে বিয়ে সারেন ভারতের টেলিভিশনের মিষ্টি জুটি প্রমিতা ও রুদ্রজিৎ। একেবারে রুপকথার মতো ছিল তাঁদের এনগেজমেন্ট অনুষ্ঠান। রুদ্রজিতের বাড়ি পুরুলিয়ায়। সেখানেই হয় তাঁদের বাগদান অনুষ্ঠান।

শুধুই আংটি বদল নয়, ওই দিনই হয় তাঁদের আইনি বিবাহ। বিয়ের কয়েক মাসের মধ্যেই এবার বাবাকে হারালেন রুদ্রজিৎ। টানা এক মাস হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন রুদ্রজিতের বাবা। নানান শারীরিক অসুস্থতা এবং শেষে ব্রেন স্ট্রোক হয়ে মারা যান তিনি। ফাদার'স ডে-এর আগে বাবাকে হারিয়ে শোকে ভেঙে পড়েছেন অভিনেতা।

যে কোনও অনুষ্ঠানই ইতিমধ্যে বেশ ধুমধাম করে উদযাপন করেছেন প্রমিতা-রুদ্রজিৎ। কিন্তু এ বছর রুদ্রজিতের বাবা অসুস্থ থাকায় জামাইষষ্ঠী পালন করতে দেখা যায়নি এই জুটিকে। বাবা কে হারানোর খবর নিজের ইনস্টাগ্রামে জানান অভিনেতা।

প্রমিতার প্রথম সিরিয়াল 'সাত ভাই চম্পা'। এই ধারাবাহিকে প্রমিতা ছিলেন পারুলের চরিত্রে আর রুদ্রজিৎ সেনাপতি রাঘবের ভূমিকায়। সিরিয়ালের সেট থেকেই প্রেমপর্ব শুরু হয় তাঁদের। তবে স্বভাবগত দিক থেকে দুজনে বিপরীত মেরুর মানুষ। প্রমিতা যতটাই ছটফটে, রুদ্রজিৎ ততটাই চুপচাপ ও শান্ত।

এমনকী, প্রমিতাকে বিয়ে করার কথা নিজের বাবা-মা কে বলতে সংকোচ বোধ করেছিলেন রুদ্রজিৎ। শেষমেষ প্রমিতার উৎসাহেই বাড়িতে তাঁদের বিয়ের সিদ্ধান্ত জানান। লকডাউন কম-বেশি সবার জীবনই বদলে দিয়েছে। এই ট্রেন্ড থেকে বাদ পড়েননি তারকারাও। তাঁদের জীবন অনেকটাই পালটে দিয়েছে লকডাউন। তবু এই লকডাউনেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন প্রমিতা- রুদ্রজিৎ।

আসলে তাঁদের প্ল্যান ছিল ২০২৩ সালে বিয়ে করার। কিন্তু লকডাউনের কারণে তৈরি হওয়া দূরত্ব মত পালটে দেয় জুটির। দীর্ঘ দিন দেখা না হওয়ার ফলে তাঁরা পরস্পরকে মিস করতে শুরু করেন। শেষে নিরুপায় হয়েই লিভ ইন অর্থাৎ একসঙ্গে পাকাপাকি বসবাসের বন্দোবস্ত করেন।

চলতি বছর প্রমিতা ও রুদ্রজিতের বাড়িতে ছিলেন তাঁদের বাবা-মাও। তার কয়েক মাসের মধ্যেই পাওয়া গেল চরম দুঃসংবাদ। রুদ্রজিৎ সেই মুহূর্তে ব্যস্ত ছিলেন 'জীবন সাথী' ধারাবাহিক নিয়ে। প্রমিতাকে দেথা যাচ্ছিল 'রানী রাসমণি' সিরিয়ালে অন্নদার চরিত্রে। এইসময়



সাতদিনের সেরা