kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

পরীমণিকে অসুস্থ দেখে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিল পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক   

১৪ জুন, ২০২১ ০৮:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরীমণিকে অসুস্থ দেখে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিল পুলিশ

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ জানাতে চার দিন আগে চিত্রনায়িকা পরীমণি বনানী থানায় গিয়েছিলেন। তাকে অসুস্থ দেখে পুলিশ সদস্যরা রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যান বলে জানিয়েছেন বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরে আজম মিয়া।

রবিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে অভিনেত্রী পরীমণি মোবাইল ফোনে গণমাধ্যমকে থানায় ও হাসপাতালে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

পরীমণি বলেন, চার দিন আগে ভোরের দিকে আমি বনানী থানায় গিয়েছিলাম। সেখানে এক দায়িত্বরত পুলিশের সঙ্গে কথা বলি। আমার কথাবার্তা শুনে ওই পুলিশ কর্মকর্তা আমাকে বলেন—আপনি শান্ত হোন, বাসায় যান, সকাল ১০টায় ওসি সাহেব এলে বিষয়টি জানানো হবে।

এ বিষয়ে বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরে আজম মিয়া বলেন, তিন-চার দিন আগে চিত্রনায়িকা পরীমণি ভোরের দিকে বনানী থানায় আসেন। থানার ডিউটি অফিসারের সঙ্গে কথা বলেন। তখন তাকে অসুস্থ দেখা যায়। পরে বনানী থানা পুলিশ তাকে নিরাপত্তা দিয়ে এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে যায়। তাকে বলা হয়— আপনি সুস্থ হলে থানায় আসবেন। কিন্তু তিনি আর যোগাযোগ করেননি, থানায়ও আসেননি।

ওসি আরো বলেন, সেদিন পুলিশকে তিনি (পরীমণি) জানিয়েছিলেন, তাকে জোর করে কিছু খাওয়ানো হয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) সন্ধ্যায় জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণি তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে তাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করেন। ফেসবুক পোস্টে তিনি তার জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন বলেও জানান। ফেসবুক পেইজে অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি খোলা চিঠি লেখেন পরীমণি। এরপর সাংবাদিকরা যোগাযোগ করলে তিনি তৎক্ষণাৎ তার নিজ বাসায় একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পরীমণী বলেন, ‘গত চার দিন ধরে একজন সাধারণ মেয়ে হিসেবে আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। কিন্তু কারো হেলপ পাইনি। সবাইকে বলেছি, আমি সুইসাইড করার মতো মেয়ে না। যদি আমি মরে যাই, মনে করবেন আমাকে মেরে ফেলা হয়েছে। আর আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ, আপনারা আমাকে হত্যার বিচার করবেন।’



সাতদিনের সেরা