kalerkantho

বুধবার । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৯ মে ২০২১। ৬ শাওয়াল ১৪৪

দর্শকদের আবেগে ভাসিয়ে শেষ হলো ব্যাচেলর পয়েন্ট

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ এপ্রিল, ২০২১ ১২:৩৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দর্শকদের আবেগে ভাসিয়ে শেষ হলো ব্যাচেলর পয়েন্ট

এই সময়ে দেশীয় মিডিয়ায়, বিনোদন মাধ্যমে যে ক'টি নাট্য সিরিজ দাপিয়েছে তার মধ্যে অন্যতম 'ব্যাচেলর পয়েন্ট।' ভক্তদের মুখে মুখে মারজুক রাসেলের  'এ এ এ এ এহ...' কিংবা কাবিলার নোয়াখালীর সংলাপ।

সময়ের দর্শকপ্রিয় নাট্য সিরিজ 'ব্যাচেলর পয়েন্ট'। নাটকটির শুরু থেকেই সিজন ১ ও ২ দিয়ে ব্যাপকভাবে আলোচিত হন নির্মাতা কাজল আরেফিন অমি।  এই সিরিজে কাবিলা, নেহাল, শুভ, আরেফিন আর হাবু ভাই নামের চরিত্রগুলো তরুণ প্রজন্মের দর্শকদের কাছে যেন জীবন্ত হয়ে উঠেছে। নাটকটির কোনও কোনও পর্ব ধ্রুব টিভিতে প্রচারের একদিনের মধ্যেই মিলিয়ন ভিউ হয়েছে।

অবশেষে শেষ হলো ধারাবাহিক 'ব্যাচেলর পয়েন্ট।'  শুরু থেকে প্রতিটি পর্ব টানটান উত্তেজনায় ছিল। ৩ টি সিজনে ৭৯ পর্বে এসে ধারাবাহিকটি শেষ হলো। 

দেশের নানা প্রান্ত থেকে রাজধানীতে ভিড় করেন ব্যাচেলর অনেক নারী-পুরুষ। তাদের কেউ থাকেন মেসে, কেউ বা আবার দলবদ্ধ হয়ে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন।

নগরীতে বসবাসরত ব্যাচেলরদের জীবনযাপন নিয়ে নির্মিত হয়েছে ধারাবাহিক নাটক ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’। কমেডি ঘরানার নাটকটি রচনা, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন কাজল আরেফিন অমি।

ব্যাচেলর পয়েন্ট-এর প্রতিটি চরিত্র আলোচনায় এসেছে নতুনভাবে, নতুন স্বরে। আলোচনা সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। পেয়েছে ভালোবাসা। কাবিলা চরিত্রটি যেমন অনবদ্য হয়ে উঠেছিল, তেমনই পাশা, হাবু, শুভ, নেহাল, অন্তরা থেকে শুরু করে প্রতিটি চরিত্র ছিল অনন্য। এই ধারাবাহিকে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন মারজুক রাসেল, চাষি আলম, তৌসিফ মাহবুব, শামীম হাসান, মিশু সাব্বির, জিয়াউল হক পলাশ, শরাফ আহমেদ জীবন, সাবিলা নূর, মনিরা মিঠু, ফারিয়া শাহরিন, আবদুল্লাহ রানা, পাভেল, মুসাফির বাচ্চু, শিমুল শর্মা, তুর্যসহ অনেকে। 

ব্যাচেলর পয়েন্টের প্রতিটি পর্ব যেমন ছিল আলোচনায়, তেমনই ইউটিউবে ভিউয়ের পরিমাণ ছিল মাথ্যা ঘোরানো। বলা যায় এসব খেলাস সাঙ্গ হলো। আসলেই কি তাই? পরিচালকের সঙ্গে কথা হলো এ বিষয়ে। 

প্রথম ও দ্বিতীয় সিজন হিট হলে তৃতীয় সিজন বানিয়েছিলেন পরিচালক অমি। দর্শকদের কথা, ব্যাচেলর পয়েন্ট ‘সিজন ৩’ আগের দুই সিজনকে ছাড়িয়ে গেছে। তাদের প্রশ্ন ‘সিজন ৪’ আসবে? পরিচালকের উত্তর, এখনো কিছু ভাবিনি। যদি জীবিত থাকি অবশ্যই ব্যাচেলরদের পরে কী হয় দেখাবো।

মঙ্গলবার ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সিজন ৩ এর শেষ পর্ব প্রচার হয়েছে ধ্রুব টিভির ইউটিউবে। প্রচারের পর থেকে সিরিয়ালটির নিয়মিত দর্শকরা আনন্দ-দুঃখে আবেগে ভাসছেন।

অমি বলেন, মানুষ এই সিরিয়ালের কারণে আমাকে যে পরিমাণ ভালোবাসা দিয়েছে তা কখনোই ভুলবো না। লক্ষ লক্ষ দর্শকদের কাছে কৃতজ্ঞতা যারা সবসময় ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ সাপোর্ট করেছে, আমাদের আপন করে নিয়েছে।



সাতদিনের সেরা