kalerkantho

সোমবার । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৭ মে ২০২১। ০৪ শাওয়াল ১৪৪

বিয়ে করেছেন নাজিরা মৌ

অনলাইন ডেস্ক   

১২ এপ্রিল, ২০২১ ১২:১৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিয়ে করেছেন নাজিরা মৌ

বিয়ে করেছেন টেলিভিশন অভিনেত্রী নাজিরা মৌ। মৌ-এর স্বামীর নাম মিজানুর মুরাদ রহমান। পেশায় ব্যবসায়ী মুরাদ যুক্তরাজ্যে থাকেন। তাঁর পৈতৃক বাড়ি সিলেটে। চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি রাজধানীর বনানীর একটি রেস্তোরাঁয় বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হলেও গণমাধ্যমকর্মীদের নিকট এই খবর আসে সদ্য।  

বন্ধুদের মাধ্যমেই মুরাদের সঙ্গে মৌ-এর পরিচয় ঘটে। সেটা বিয়ের ৫-৬ মাস আগে। এরপর প্রণয় থেকে পরিণয় পর্যন্ত গড়াতে সময় লাগেনি। জানুয়ারিতেই পরিণয়সূত্রের গিঁট লেগে যায়। 

নাজিরা মৌ বলেন, বিয়ের ৫-৬ মাস আগে আমার একট কমন ফ্রেন্ডের মাধ্যমে ওর ( মুরাদ রহমান) সঙ্গে পরিচয় হয়। তবে সে পরিচয় ছিলো বন্ধুত্বের। তারপর মুরাদের সিদ্ধান্ত পরিবারকে জানালে তারাও মত দেন।এরপর দুই পরিবারের সিদ্ধান্তে শুভ কাজটি সম্পন্ন হয়েছে।

বিয়েটা আকস্মিকভাবে হয়ে গেছে বলে জানান এই অভিনেত্রী। তবে বিয়ের পরপরই উড়াল দেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে। সেখানে মধুচন্দ্রিমার সময়টুকু বেশ তাড়িয়ে উপভোগ করছেন। অন্তত সোশ্যাল হ্যান্ডেল তাই বলছে।
 
নাজিরা মৌ আরও বলেন, হঠাৎ করেই আমাদের বিয়েটা হয়ে গেয়েছে। বিয়ে শুধু দুই পরিবারের নিকটজনের উপস্থিতি ছিল। তাই সেভাবে সবাই জানানোর সুযোগ পায়নি সেসময়।সকলের কাছে দোয়া চেয়ে নাজিরা মৌ বলেন, যে বিশ্বাস, ভালোবাসা নিয়ে আমার দাম্পত্য জীবন শুরু করেছি। 

বিজ্ঞাপনে কাজ করে পরিচিতি পান অভিনেত্রী নাজিরা মৌ। তবে তিনি মডেলিঙের পাশাপাশি নাটকেও কাজ করেছেন। শুরুতেই তৌকীর আহমেদ ও  অপূর্বসহ জনপ্রিয় অভিনেতাদের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেন তিনি। ছোটপর্দার গণ্ডি পেরিয়ে কাজ করছেন রুপালী পর্দায়ও।নানা ধরনের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তাও পান এই গ্ল্যামারকন্যা।

নাজিরা মৌ অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ‘নন্দিনী’। এতে মৌয়ের বিপরীতে অভিনয় করছেন ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত। ছবিটির শুটিং শেষ চলছে সম্পাদনার কাজ।

বর্তমানে এই অভিনেত্রীর একাধিক ধারাবাহিক নাটকে কাজ করছেন। তার অভিনীত বেশকিছু ধারাবাহিক প্রচার হচ্ছে।ছবিটি পরিচালনা করেছেন সোয়াইবুর রহমান রাসেল।

পুরো নাম খন্দকার নাজিরা আহমেদ। তবে নাজিরা মৌ নামেই সবাই তাকে চেনে। তিনি ১৯৮৮ সালের ১৮ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। গ্রামের বাড়ি নরসিংদী। 



সাতদিনের সেরা