kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই

মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ মিথিলার বিরুদ্ধে যৌন নীপিড়নের অভিযোগ!

অনলাইন ডেস্ক   

৭ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:০২ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ মিথিলার বিরুদ্ধে যৌন নীপিড়নের অভিযোগ!

মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ হয়ে আলোচনায় এসেছেন তানজিয়া জামান মিথিলা। মিস ইউনিভার্স নাম ঘোষণার পরে এই মডেলের নেপথ্যের ঘটনা সামনে আসতে থাকে। তবে এরইমধ্যে সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্টের মতো গুরুতর অভিযোগ সামনে এসেছে। যা মিথিলা নিজেও স্বীকার করে ক্ষমাও চেয়েছেন। 

২০১৮ সালের একটি ইউটিউব সাক্ষাৎকারে মডেল মিথিলা এবং সামিরা খান মাহিকে দেখা গেছে। উপস্থাপকের করা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছিলেন তারা। ভিডিওতে মিথিলা ও মাহি বলেন, পুরুষ শৌচাগারে ঢুকে এক ব্যক্তির নগ্ন ভিডিও ধারণ করেছিলেন তারা। সেটি আবার নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন মডেল মাহি। তাতে দেখা গেছে, ভিডিও ধারণ শেষে হাসতে হাসতে দৌঁড়ে বেরিয়ে আসছেন মিথিলা ও মাহি।

মিথিলা সম্প্রতি এ বিষয়ে শিশুসুলভ আচরণ করেছেন উল্লেখ করে ক্ষমা চাইলেও নেটিজেনরা তা মানতে নারাজ।  এ ভিডিওকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন নেটিজেনরা। তারা এই যৌন নীপিড়নের জন্য মিথিলার শাস্তি দাবি করছেন।

মিথিলা ফেসবুকে লিখেছেন,  আপনারা যে বিষয়টি তুলে ধরেছেন সেটি খুবই প্রাসঙ্গিক। আমার কৃতকর্মের জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। আমি অল্প বয়সী ও অজ্ঞ ছিলাম। এমনকি এটি নিতান্তই একটি তামাশা ছিল। একদমই আমরা সেটা মজার ছলে করেছি। আমরা সে সময় ভাইরাল হতে চেয়েছিলাম। আর এজন্যই এরকম একটা কাজ করে ফেলি। 

বিষয়টিকে শিশুসুলভ আচরণ উল্লেখ করেছেন মিথিলা। তিনি বলেন, 'এখন বুঝতে পারছি, আমরা কাজটি ঠিক করিনি এবং আমার শিশুসুলভ আচরণের জন্য আমি ভীষণভাবে দুঃখিত।'

মিথিলা বলেন, এখন বিষয়টি সামনে নিয়ে আসছেন তাদের ধন্যবাদ জানাই। একইসাথে আমি আন্তরিকভাবে ক্ষমা চাইছি। এখন আমি বড় হচ্ছি এবং কোনটা ঠিক, কোনটা ভুল সেটা দেখছি। সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে নানা কিছু দেখবো, দেখা যাবে- মুখোমুখি হবো- তবে কোনটা ভালো সেটা আমাকেই বিবেচনা করতে হবে। যাই হোক বিষয়টি খুব আন্তরিকতার সাথে দেখবেন। 

তবে মিথিলার এই বিষয়টিকে সহজভাবে মেনে নিতে পারছেন না অনেকেই। এটিকে সরাসরি যৌন নীপিড়ন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন মডেল ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান নিপা। তিনি বলেন, 'সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট কে প্লিজ চাইল্ডিস বিহেভিয়ার এর নাম দেবেন না। দুইটা দুই প্রান্তের ব্যাপার। এই জঘন্য কাজের জন্য শাস্তি হওয়া দরকার অবশ্যই। ওইসময় কোনোভাবেই বাচ্চা ছিলেন না আপনি। ২৩/২৪ বছরের মেয়ে বাচ্চা হয় কিভাবে? আবার ছোট আজাদের ইউটিউব চ্যানেলে এসে নির্লজ্জের মতো হাসতে হাসতে ঘটনাটা বলেছিলেন এবং সেই ভিডিও দেখিয়েছিলেন।'

ফেসবুকে মিথিলার ক্ষমা চাওয়া পোস্ট

রাফি নামের একজন লিখেছেন, ছেলে sexual offender দেরকে defend করতে গিয়ে ও মানুষ এই অজুহাত টা দেয়, "ছোট মানুষ, বাচচামি করসে না বুঝে"। তখন সেটা গ্রাহ্য হওয়া যেমন উচিত না, তেমনি এই ক্ষেত্রেও না। দয়া করে এই কথা বইলো না যে তোমার এটা বোঝার বয়স ছিলো না যে একটা মানুষের bathroom এ থাকা অবস্থায় ছবি তোলা ঠিক না। ছ্যাসরা যত্তসব sympathy নিতে আসসে আবার।

মুনিয়া নামের একজন লিখেছেন, "আমরা একটা লোককে কাপড় ছাড়া ওয়াশ রুমের ভিতর দিয়ে ভিডিও করেছি, হা হা হা হা"। এটা একটা পিওর সেক্স্যুয়াল হ্যারেসমেন্ট। বয়স কম ছিল, প্র‍্যাংক ছিল, এইসব বলে আসলে খুব একটা লাভ হয়না। you were not that under age and এই ধরনের কাজ করে পাবলিকলি প্রাউডলি বলার জন্য অনেক বেশি এথিকলেস হতে হয়।

মাহি নামের একজন লিখেছেন, 'আপনারা তো শিশু ছিলেন না ওই বয়সে। এখানে এই কাজ কোনো করলে কি যে সাজা দেয়া হতো এরকম সাজা আপনি এবং মাহী পাওনা আছেন।'

আনিকা নামের একজন লিখেছেন, চাইল্ডিশ বিহেভিয়ার? লাইক সিরিয়াসলি? বাচ্চারাও কারো Privacy Invade করে বাথরুমে লুকিয়ে ভিডিও করেনা আর সেখানে তো আপনারা ২৩/২৪ বছরের এডাল্ট ছিলেন। এবং এই ঘটনা ভাইরাল হবার পূর্বে তিল পরিমানও অনুতপ্ত বেধ করেননি। এখন নিজের ক্যারিয়ার বাঁচানোর জন্য ফেইক এপোলজি দিয়ে ইমেজ ক্লিন করতে চাচ্ছেন যেটা একবিন্দু পরিমাণও সিনসিয়ার মনে হয়নি। আপনি সুন্দরী, ট্যালেন্টেড কিন্তু As a human being you are a Trash.

ইমন নামের একজন লিখেছেন, যে ছেলে সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট এর স্বীকার হয়েছে ওই ছেলের এবং তার ফ্যামিলির উচিৎ এদের বিরুদ্ধে একশানে যাওয়া এইগুলো নষ্ট মস্তিষ্কের মানুষ। How can possible আজ যদি এই সেইম কাজ টি একটা ছেলে কোন মেয়ের সাথে করতো? সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় উঠে যেতো। এই ধরনের মেয়েদের কে সামাজিক ভাবে বয়কট এবং এদের বিরুদ্ধে শাস্তিযোগ্য ব্যবস্থা নেয়া জরুরী।

মিথিলার ক্ষমা চাওয়ার পোস্টে শত শত মন্তব্য, যেসবের অধিকাংশ গুলোতেই সদ্য এই মিস ইউনিভার্সের শাস্তি চাওয়া হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা