kalerkantho

রবিবার। ৫ বৈশাখ ১৪২৮। ১৮ এপ্রিল ২০২১। ৫ রমজান ১৪৪২

ছেঁড়া জিন্স পরা নিয়ে মন্তব্য, তোপের মুখে কঙ্গনা

অনলাইন ডেস্ক   

৪ মার্চ, ২০২১ ১৫:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছেঁড়া জিন্স পরা নিয়ে মন্তব্য, তোপের মুখে কঙ্গনা

কঙ্গনা বিতর্ককে ছাড়তে পারেন না, নাকি বিতর্ক কঙ্গনাকে? এই প্রশ্নই এখন ঘুরছে সবার মনে। প্রাচীন ভারতীয় নারীদের সম্মান প্রদর্শন করতে গিয়ে আজকের নারীদের নিয়ে ‘কুরুচিকর’ মন্তব্য করে বসছেন অভিনেত্রী। ছেড়ে দেওয়ার পাত্রী নন আজকের মেয়েরাও। কঙ্গনাকে যথার্থ জবাব দিয়েছেন তারাও।

কঙ্গনার কথায়, সাম্প্রতিক সময়ে নজির গড়া নারীরা ‘আমেরিকার ছেঁড়া জিনস আর রাগস পরতেই অভ্যস্ত’, নিজেদের সভ্যতা-সংস্কৃতি থেকে দূরে থাকতে ভালোবাসে তাঁরা। এই মর্মে কঙ্গনা একটি পোস্ট শেয়ার করেন, সেখানে দেখা যায়, ভারতের প্রথম (যৌথ) নারী চিকিৎসক আনন্দি রাও গোপালরাও জোশির। কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায় ও আনন্দি রাও গোপালরাও জোশি ছিলেন ঊনবিংশ শতকের ভারতের দুই মহীয়সী নারী, যাঁরা ইউরোপ থেকে চিকিৎসাশাস্ত্রে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। 

ভারতের আনন্দি রাওয়ের ছবির পাশাপাশি সিরিয়া ও জাপানের দুই নারী চিকিৎসকের সাবেকি পোশাক পরা ছবি শেয়ার করে কঙ্গনা লেখেন, প্রাচীন যুগের এই বিদুষী নারীদের কুর্নিশ জানাই, যাঁরা শুধু নিজেদের ব্যক্তিসত্তাকে তুলে ধরেননি, বরং একটা সমগ্র জাতি, সংস্কৃতি এবং দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। যদি আজকের দিনে কোনো নজির গড়া মেয়ের ছবি তোলার মতো হতো, তাহলে সে টর্নড আমেরিকান জিনস আর রাগসের মতো ব্লাউজ পরত, আমেরিকার মার্কেটিংয়ের প্রতিনিধি হয়ে যেত।'

এর পরই আসরে নেমে পরে কঙ্গনাকে চোখে আঙুল দিয়ে নেটিজেনরা মনে করিয়ে দেন, তিনিও মার্কিন ব্র্যান্ডের কম বড় ভক্ত নন। অনেকে যেমন কঙ্গনাকে ট্রোল করেছেন, তেমনই অনেকেই প্রশংসাও করেছেন অভিনেত্রীর। নিজের বিদেশি ব্র্যান্ডেড এবং ডিজাইনার পোশাক পরে অন্যদের জ্ঞান না দেওয়াই ভালো বলে মত বেশির ভাগ জনের। এর জেরে কঙ্গনার গায়ে ‘হিপোক্রিট’ তকমাও সেঁটে দিয়েছেন অনেকে। 

কঙ্গনা বরাবরই সরব হয়েছেন স্বদেশি জিনিসপত্রের প্রচারে। মোদির ‘আত্মনির্ভর’ ভারত নিয়ে  আগেও অনেকবার মুখ খুলেছেন এ তারকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা