kalerkantho

রবিবার । ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৫ রজব ১৪৪২

শাবনূরের নাম বিক্রি করে এক লাখ ফলোয়ার!

অনলাইন ডেস্ক   

২১ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৪১ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



শাবনূরের নাম বিক্রি করে এক লাখ ফলোয়ার!

শিরোনাম দেখে চমকে ওঠার কোনো কারণ নেই। ফেসবুকে তারকাদের নাম দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলে সেটিতে লাখ লাখ ফলোয়ার তৈরি করার পর হুট করে একদিন অ্যাকাউন্টের নাম পাল্টে গেল। কিছুদিন আগেই নির্মাতা কাজী হায়াতের নামের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট শোবিজ অঙ্গনের তারকাদের পোস্টে মন্তব্য করছিল আর তারকারাও তার উত্তর দিচ্ছিলেন, কেননা তারা ধরেই নিয়েছিল সেটা আসলেই কাজী হায়াত। 

কালের কণ্ঠের পক্ষ থেকে কাজী হায়াতকে সে সময় ফোন দেওয়া হলে তিনি বলেন, 'আমি শুনেছি ফেসবুক বলতে একটি বিষয় আছে, আমি সেসব বুঝি না, এগুলো মারুফ বোঝে।'  অর্থাৎ কাজী হায়াত জানেনই না তার নামে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে নেপথ্যে একজন প্রতারক ঘুরছেন উদ্দেশ্য নিয়ে। 

চিত্রনায়িকা ববিতার নামে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে বিভিন্ন পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছিল। সিনেমা বানানো নিয়ে কথা হচ্ছিল, অথচ ববিতা এসবের কিছুই জানেন না। তখন ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন ববিতা। কদিন আগেই ছোট পর্দার অভিনেতা তৌসিফের বিরুদ্ধে পাঁচ লাখ টাকা প্রতারণার অভিযোগ তুলে এক গৃহবধূ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তৌসিফও পাল্টা অভিযোগ দায়ের করেন। কালের কণ্ঠকে তৌসিফ সে সময় বলেন, আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভেরিফায়েড। এখন কেউ যদি ভুয়া অ্যাকাউন্টের সঙ্গে কথা বলে টাকা দেয় তার দায় কি আমি নেব?' 

শাবনূর নাম ব্যবহার করে প্রায় এক লাখ ফলোয়ারপ্রাপ্তি, সংবাদ প্রকাশের সেই অ্যাকাউন্টের নাম নাজিফা জামান। নাম পরিবর্তন হয়েছে, কিন্তু ইউআরএল পরিবর্তন হয়নি। (বাঁয়ে ওপরে)  

তারকাদের এসব অ্যাকাউন্টের আচরণ এতটাই অনুকরণীয় যে পেছনে আসল মানুষটি রয়েছেন কি না বোঝার উপায় নেই। সম্প্রতি কাজী শাবনূর নূপুর নামে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ফেসবুকে খুব ঘুরছিল। নিয়মিত পোস্ট ও ছবি দেওয়া হচ্ছিল। আবার পপি ও সমসাময়িক নায়ক-নায়িকাকে ট্যাগ করা হচ্ছিল সেইসব ছবি ও পোস্ট। যার কারণে ওই অ্যাকাউন্ট যে শাবনূরেরটা, নিশ্চিত করে ধরে নেওয়া যায়। তবে সমস্যা হয়ে যায় শাবনূরের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে। 

কালের কণ্ঠকে শাবনূর অস্ট্রেলিয়া থেকে জানান, তার ফেসবুকে কোনো উপস্থিতি নেই। একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন, কিন্তু সেটি চালান না। তিনি ইনস্টাগ্রামে সক্রিয় থাকেন। তাহলে তার নামে এই অ্যাকাউন্ট কে চালায়? বিষয়টি নিয়ে কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ হতেই ওই অ্যাকাউন্টের নাম বদলে নাজিফা জামান হয়ে যায় আর শাবনূরের সব ছবি ও ভিডিও সরিয়ে ফেলা হয়। কয়েক দিন নীরব থাকলেও ফের ওই অ্যাকাউন্টে অন্য নারীর ছবি আপলোড দেওয়া শুরু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, এর নেপথ্যে অসাধু চক্র জড়িত। 

মিডিয়া জগতের কয়েকজন সাংবাদিক বলছেন, কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে ওই ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি খোলা হয়েছে। প্রতারণা ছাড়া আর কোনো উদ্দেশ্য থাকতে পারে না।

একই কথা আগেই কালের কণ্ঠকে বলেছেন শাবনূরের বোন ঝুমুর। শাবনূরের ইনস্টাগ্রামে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শাবনূরের ছোট বোন কাজী জেসিকা জেরিন ঝুমুর কালের কণ্ঠকে বলেন, 'আপুর নামে ফেসবুকে অসংখ্য অ্যাকাউন্ট ও পেইজ রয়েছে। সেসব ভুয়া। শুনেছি আপুর (শাবনূর) শুভাকাঙ্ক্ষীরা সেই অ্যাকাউন্টকে শাবনূরের অ্যাকাউন্ট মনে করছেন। এতে বড় ধরনের সমস্যা হতে পারে, সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। শুনলাম একটি সক্রিয় অ্যাকাউন্ট ফেসবুকে শাবনূরের ছবি ও ভিডিও শেয়ার করছে। নিয়মিত পোস্ট দিচ্ছে। বিভিন্নজনের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে কৌশলে নিজের উদ্দেশ্য হাসিল করার চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। চাইলে আপুর সঙ্গে ইনস্টাগ্রামে যোগাযোগ করতে পারেন। সেখানে তাদের প্রিয় শাবনূরকে পাওয়া যাবে।' 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক চিত্রনায়ক মামুনুন ইমন কালের কণ্ঠকে বলেন, ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে প্রতারণা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। এটার একটা সুরাহা হওয়া দরকার। ছোট পর্দা, বড় পর্দাসহ সব স্তরের শোবিজ তারকাদের সংগঠনের সম্মিলিত উদ্যোগ প্রয়োজন। এটা ঠেকানো না গেলে ক্রমে অনেকেই বিপদে পড়বে। আমি নিজেই এ রকম কয়েকবার বিব্রত হয়েছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা