kalerkantho

রবিবার। ৩ মাঘ ১৪২৭। ১৭ জানুয়ারি ২০২১। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

দীপ্ত টিভির নতুন তুর্কি ধারাবাহিক 'এলিফ'‌

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দীপ্ত টিভির নতুন তুর্কি ধারাবাহিক 'এলিফ'‌

এলিফ এক দুঃখী বালিকার অশ্রুঝরা গল্প। নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে নিজ বাড়িতেই যাকে আশ্রিতার পরিচয় নিয়ে বাঁচতে হয়। একদিকে আশ্রিতা হয়ে এলিফের বেঁচে থাকার লড়াই, অন্যদিকে নিষ্ঠুর সৎবাবা বেইসেলের সংসারে মা মেলেকের জীবনসংগ্রামই এই ধারাবাহিকের মূল উপজীব্য। 

গল্পে দেখা যায়, মেয়েটি তার মায়ের গর্ভে আসতেই যেন  দুর্ভাগ্য নিয়ে এসেছে। পারিবারিক আভিজাত্যের অহমিকা এবং পূর্বশত্রুতার জেরেই এলিফের দাদি তার বাবা-মায়ের বিয়ে মেনে নেয় না। শশুড়ির হুমকির মুখে গর্ভবতী মেলেক স্বামী কেনানকে কিছু না বলেই বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয়। পরে সন্তানের কথা ভেবে মেলেক বেইসেল নামের এক মধ্যবয়সী লোককে বিয়ে করে।

কিন্তু অভাগার ভাগ্য ফেরায় কে? নিষ্ঠুর জুয়াড়ি বেইসেলের পাশবিক অত্যাচারে মেলেক শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এদিকে বেইসেল জুয়ার টাকার দায় এড়াতে এলিফকে শিশুপাচারকারীদের  কাছে  বিক্রি করে দেয়।  কিন্তু ঘটনাচক্রে মেলেক তা জেনে যায়। জীবনের একমাত্র অবলম্বন মেয়ে এলিফকে বাঁচাতে সে মরিয়া হয়ে ওঠে। তাই একপর্যায়ে  এলিফকে নিজের বাড়িতেই এক অবহেলিত আশ্রিতা হয়ে দিন কাটাতে হয়। 

অন্যদিকে এলিফের বাবা কেনান, মা আলিয়ের পছন্দে আরযু নামের এক কুটিল মহিলাকে বিয়ে করে। সেই ঘরে জন্ম নেয় এলিফের সৎবোন তুইচে। ঘটনাচক্রে তুইচের মা যখন এলিফের আসল পরিচয় জানতে পারে, তখনই শুরু হয় ভাঙ্গা-গড়ার জটিল সমীকরণ। সে কিছুতেই রাজত্ব ও রাজপুত্র হাতছাড়া হতে দেবে না। আর এভাবেই নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে রোমাঞ্চকর হয়ে ওঠে এই ধারাবাহিকের একেকটি পর্ব। 

দীপ্ত টিভির ডাবিং টিমের আন্তরিক পরিচর্যায় গল্পটি হয়ে উঠেছে আরো প্রাণবন্ত ও আকর্ষণীয়- এমনটিই দাবি টেলিভিশন কর্তৃপক্ষের। অনূদিত সংলাপ রচনা ও সম্পাদনায় কাজ করেছেন জান্নাতুল ফেরদৌস চৌধুরী, ইব্রাহিম খলিল, তানজিনা রহমান বর্ণা, মো. ফরহাদ হোসেন পাভেল, শামীমা সুলতানা ও শামীমা আক্তার।

কণ্ঠাভিনেতা ও কণ্ঠাভিনয় পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন- মেরিনা মিতু। এ ছাড়া যারা বিভিন্ন চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন- নাহিদ আখতার ইমু (এলিফ), জয়শ্রী মজুমদার লতা (মেলেক শিমশেক), শোভন দাস (কেনান এমিরওলু), তানিয়া পাটোয়ারী (আরজু এমিরওলু), রাফিকুল সেলিম (বেইসেল শিমশেক), নাদিয়া ইকবাল (তুইচে এমিরওলু), ইরা রহমান (আলিয়ে এমিরওলু), শাহরিয়ার রানা (সেলিম এমিরওলু), ইন্দ্রানী ঘটক (যেইনেপ শিমশেক), অভিক সাহা (মুরাত), মেহবুবা মিনহাজ বিপা (আইশে)। 

প্রচারিত হবে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিটে এবং পরদিন দুপুর ১২টা ১০ মিনিটে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা