kalerkantho

সোমবার । ১১ মাঘ ১৪২৭। ২৫ জানুয়ারি ২০২১। ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

প্লিজ মাথায় নিন, শেষটাও ভালোবাসার সঙ্গে শেষ হতে পারে : শবনম ফারিয়া

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ নভেম্বর, ২০২০ ১১:৩৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্লিজ মাথায় নিন, শেষটাও ভালোবাসার সঙ্গে শেষ হতে পারে : শবনম ফারিয়া

ভেঙে গেছে ছোটপর্দার তারকা অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার বৈবাহিক জীবন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজেই বিচ্ছেদের খবরটি জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী!

শনিবার সন্ধ্যায় নিজের ফেসবুকে ফারিয়া লেখেন, ‘মানুষের জীবন নদীর মতো। কখনো জোয়ার, কখনো ভাটা। কখনো বৃষ্টিতে পানি বেড়ে যায়, শীতকালে পানি শুকিয়ে যায়। আমাদের জীবনেও এমনটা হয়! আমাদের জীবনে কিছু মানুষ আসে; কেউ কেউ স্থায়ী হয়, কেউ কেউ কিছু কারণে স্থায়িত্ব ধরে রাখতে পারে না।’

শবনম ফারিয়ার এই বিচ্ছেদের সংবাদ জানানোর পর সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল প্রতিক্রিয়ায়। বৈবাহিক সম্পর্ক চুকে গেলেও 'বন্ধুত্বের সম্পর্ক' থাকবে এমন অভিমত এক শ্রেণির নেটিজেন নিতে পারছিলেন না। নানা আলোচনা-সমালোচনায় সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম সরগরম করে রাখছিলেন। তবে রবিবার সকালে শবনম ফারিয়া অনুরোধ করলেন, তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে কে যেন কোনো রকম প্রত্যাশা না রাখে। তিনি এ-ও জানালেন, যথেষ্ট কারণ ছিল বলেই বিচ্ছেদের মতো কঠিন একটি সিদ্ধান্তে আসতে হলো। 

রবিবার সকালে শবনম ফারিয়া তাঁর সোশ্যাল হ্যান্ডেলে লিখেছেন,  তাঁর মানে কী দাঁড়ালো, মানুষ ব্লেইম গেইম, গালিগালাজ, মানুষকে ছোট করা পছন্দ করে!  বিচ্ছেদ কেন সুন্দর হবে! কেন বলবে আমরা বিচ্ছেদের পরও বন্ধুত্ব থাকবে! যেই মানুষটা পাঁচ বছর ধরে আমার জীবনের সঙ্গে  পত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে জড়িয়ে ছিল, এত এত স্মৃতি, যা চাইলেই মোছা যাবে না, তাকে কিভাবে ছোট করি?

তিনি বলেন, অবশ্যই মানুষটার সঙ্গে আমার যথেষ্ট কারণ না থাকলে বিচ্ছেদের মতো সিদ্ধান্তে আসতাম না, কাউকে অসম্মান করে যেমন কেউ বড় হতে পারে না, তেমনি আমাদের কাছের সবাই ও পরিবার জানে কেন এই সিদ্ধান্তে আসা!  তার বাইরে কাউকে কোনো ধরনের এক্সপ্লেনেশন দেওয়ার দরকারই নেই ! 
Infact আমরাও চাইনি কাউকে জানাতে; কিন্তু 'এ কী করলেন শবনম ফারিয়া' নিউজ না দেখার জন্য আমরা জানাতে বাধ্য হই! 

শেষটাও সম্মান দিয়ে হতে পারে উল্লেখ করে দেবীখ্যাত এই অভিনেত্রী বলেন, 'প্লিজ! মাথায় নেন, শেষটাও সুন্দর হতে পারে, শেষটাও সম্মান দিয়ে, ভালোবাসার সঙ্গে শেষ হতে পারে! আমার কষ্ট, আমার অভিমান সব আমার কাছেই থাক!  এবং মনে রাখবেন, কাউকে ছোট করা আল্লাহ্ কখনোই পছন্দ করেন না!'

২০১৫ সালে ফেসবুকের মাধ্যমে হারুন অর রশিদ অপুর সঙ্গে শবনম ফারিয়ার বন্ধুত্ব হয়। এরপর ফেসবুকে কথা বলতে বলতে তাঁদের দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বের বন্ধন মজবুত হয়। তিন বছর ধরে চলে তাদের বন্ধুত্ব। তারই একপর্যায়ে দুজনই পরস্পরের প্রতি ভালোবাসা অনুভব করেন। অপু-ফারিয়ার সম্পর্ক তাঁদের দুই পরিবার জানলে তারাও এতে পূর্ণ সমর্থন দেন। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় তাদের।

টুকটাক মডেলিং করলেও ২০১৩ সালে শবনম ফারিয়া আদনান আল রাজীব পরিচালিত ‘অল টাইম দৌড়ের ওপর’ নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে অভিনেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। সে বছর ভালোবাসা দিবসে প্রচারের পর রাতারাতি পরিচিতি পান ফারিয়া।

এরপর অসংখ্য দর্শক সমাদৃত নাটকে দেখা গেছে ফারিয়াকে। কাজ করেছেন একাধিক বিজ্ঞাপনেও। চলতি বছর ‘দেবী’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় তাঁর। ছবিতে নিলু চরিত্রে অভিনয় করে আলাদা পরিচিতি পেয়েছেন মিষ্টি হাসির শবনম ফারিয়া।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা