kalerkantho

বুধবার । ১৩ মাঘ ১৪২৭। ২৭ জানুয়ারি ২০২১। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অভিনেত্রী দুলারী ইসলাম গ্রহণ করে একা জীবন শুরু করেন

অনলাইন ডেস্ক   

২৩ নভেম্বর, ২০২০ ১৪:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অভিনেত্রী দুলারী ইসলাম গ্রহণ করে একা জীবন শুরু করেন

অভিনেত্রী শাহনাজ পারভিন দুলারী আশির দশক থেকে এখন পর্যন্ত খল চরিত্রে দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে যাচ্ছেন। সুমিতা দেবী, মায়া হাজারিকা কিংবা রিনা খানের পর দুলারী হচ্ছেন একজন জনপ্রিয় খল অভিনেত্রী। প্রায় ৮ শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। পেয়েছেন বহু পুরস্কার।

দুলারী সম্প্রতি পরিচালক মালেক আফসারীর ‘উল্টো চশমা’ নামে একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তাঁর জীবনের বহু অজানা কথা সাধারণ দর্শকদের জন্য বলেছেন।

শাহনাজ পারভিন দুলারী বলেন, ‘আমি হিন্দুর মেয়ে। আমার আগের নাম আল্পনা দুলারী দে। এখন আমার নাম শাহনাজ পারভিন দুলারী। আমি মুসলিম ধর্ম পালন করি। আমি ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি, কোরবানি দেই, রোজার মাসে রোজা রাখি, আমার যে ধর্ম ভালো লাগে...।’

তিনি বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই অভিনয় অনেক ভালো লাগতো। দেখতাম- রাজ্জাক ভাই, শাবানা আপা, কবরী আপাকে অভিনয় করতে। তখন থেকেই আসছে অভিনয়ের প্রতি ঝোঁক। পঞ্চম শ্রেণিতে ওঠার পর একদিন স্কুল পালিয়ে ‘মালেকা বানুর’ শুটিং দেখতে গিয়েছিলাম। এরপর বাড়িতে ফেরার পর মায়ের মার খেলাম। ওই মার খাওয়ার পর থেকেই মনে জিদ চেপে গেলো আমি অভিনয়ই করবো। মূলত বান্ধবীর মামার হাত ধরেই আমার সিনেমায় আসা। কিছুদিন পর বাড়ি থেকে চম্পট! চলে আসি এফডিসিতে। সেখানে এসে পরিচালক সিরাজুল ইসলামের সাথে দেখা হয়। আমি তাকে অনুরোধ করি; আমি তো আর বাড়ি ফিরে যেতো পাবো না সুতরাং আপনি আমাকে কাজ দেন। তখন তিনিই আমাকে প্রথম কাজ দেন।’

এই অভিনেত্রী বলেন, ‘প্রথমে আমি কমেডি দিয়েই অভিনয় শুরু করি। ৫ বছরে আমার ১৩০টি কমেডি ছবি রিলিজ। এরপর আমি খল চরিত্র শুরু করি। এখনো সেটাই চলছে।

ধর্ম পরিবর্তনের ফলাফল প্রসঙ্গে দুলারী বলেন, 'এর মাঝে আমি বাড়ি ফেরে গেলে আমার বাবা-মা আমাকে গ্রহণ করলেও আমার কাকারা আমাকে গ্রহণ করেনি। তাই তখন থেকেই আমি তাদের থেকে আলাদা।’ 

দুলারীর পরোপকারী ও সমাজসেবক হিসেবে যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। সম্প্রতি তিনি কাজ করেছেন পরিচালক কাজী হায়ত ও চিত্রনায়ক শাকিব খানের ‘বীর’ সিনেমায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা