kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

নকল বাচ্চুর খোঁজ...

রংবেরং প্রতিবেদক   

৩ অক্টোবর, ২০২০ ০৬:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নকল বাচ্চুর খোঁজ...

‘প্রেমে অনেক জ্বালা’র শুটিংয়ে সাদেক বাচ্চু, জীবদ্দশায় শেষবার ক্যামেরার সামনে

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৪ সেপ্টেম্বর মারা গেছেন অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। তাঁর মৃত্যুতে বিপদে পড়েছেন বদিউল আলম খোকন, শামীম আহমেদ রনীসহ বেশ কয়েকজন পরিচালক। খোকনের ‘আগুন’, ‘আমার মা আমার বেহেশত’ ও ‘হারজিত’ ছবিগুলোতে অভিনয় করছিলেন বাচ্চু। রনীর ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’, ‘বিক্ষোভ’ ও ‘কমান্ডো’ ছবিতেও আছেন। শুটিংও করেছিলেন বেশির ভাগ। কথা ছিল করোনা স্বাভাবিক হলে ছবির বাকি অংশের শুটিংয়ে অংশ নেবেন; যদিও করোনার মধ্যেই মান্নান গাজীপুরীর ‘প্রেমে অনেক জ্বালা’র শুটিং করেছিলেন সাদেক বাচ্চু। এর কিছুদিন পরেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন তিনি। তাঁর হঠাৎ মৃত্যুতে মাথায় হাত উঠেছে এই নির্মাতাদের। বাচ্চুর অংশ গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় বাদও দিতে পারছেন না কেউ কেউ। বাধ্য হয়ে তাঁরা খুঁজছেন বাচ্চুর মতো দেখতে কাউকে।

পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘বাচ্চু ভাই আমার প্রিয় অভিনেতা। আমার সব ছবিতেই তাঁকে রাখতাম। নির্মাণাধীন তিনটি ছবিতে তাঁর আরো কিছু দৃশ্যের শুটিং বাকি। উপায় না পেয়ে তাঁর মতো কাউকে খুঁজছি। সালমান শাহ মারা যাওয়ার পর বেশ কয়েকজন নকল সালমান শাহকে পেয়েছিলাম আমরা। আশা করছি, বাচ্চু ভাইয়ের ক্ষেত্রেও কাউকে না কাউকে পাব। যদি কেউ মনে করেন বাচ্চু ভাইয়ের সঙ্গে তাঁর চেহারার মিল আছে, তাহলে তাঁকে পরিচালক সমিতিতে যোগাযোগ করার অনুরোধ করছি।’

শামীম আহমেদ রনী বলেন, “শাপলা মিডিয়ার সব ছবিতেই অভিনয় করেছেন বাচ্চু ভাই। ‘কমান্ডো’ ছবিতে দেবের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আছেন। এখন তাঁর অংশ বাদ দিতে গেলে দেবের অংশও বাদ পড়ে যায়। সেটা তো সম্ভব নয়! ‘বিক্ষোভ’ ছবিতেও শ্রাবন্তী দিদির সঙ্গে অভিনয় করেছেন। সেটার ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার। ফলে বাচ্চু ভাইয়ের মতো দেখতে কাউকে না পেলে বিপদেই পড়ব।”

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা